শনিবার ৩০ মে ২০২০
Online Edition

আদমদীঘিতে সজনে ডাঁটার বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা

আদমদীঘি (বগুড়া) সংবাদদাতা : বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলায় এবার সজনের ডাঁটার বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা। উপজেলার হাট বাজারগুলোতে এখনো পুরো দমে উঠতে শুরু করেনি সজনে ডাঁটা। তাই বেশি দাম দিয়ে কিনতে হচ্ছে ক্রেতাদের। আর এদিকে বেশি দাম হওয়ায় বেজায় খুশি সজনে চাষীরা। খেতে সুস্বাদু অপরদিকে রোগ-ব্যাধির আরোগ্য লাভের নিয়ামক সজনে এখন প্রতি কেজি ৮০ থেকে ১০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। উপজেলার গ্রামে বা শহরের আনাচে কানাচে অনেকটা অনাদর আর অবহেলায় বেড়ে উঠা এসব সজনে গাছগুলো। তাছাড়া সজনের কদর বাড়ে চৈত্র-বৈশাখ মাসে। সে কারণে লাভের আশা করেন কৃষক ও পাইকাররা। ভেষজ ও পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ এক প্রকার সবজির নামই সজনে। সজনে মূলত ফল। তবে আমাদের দেশে সজনে ডাঁটা অতিপুষ্টিকর সবজি হিসাবে সমাদৃত। এর ফুল, পাতা ও ডাঁটা সবই খাওয়া যায় এবং সবকিছুতেই রয়েছে সমান ভেষজ ও পুষ্টিগুণ। মানব দেহের জন্য অধিকতর, পুষ্টিকর ও ক্ষমতাসম্পন্ন সজনে সবজি হিসাবে ব্যাপক সমাদৃত। গ্রীষ্মকালে মানুষকে বিভিন্ন রোগ-বালাই থেকে দূরে রাখতে সহায়তা করে এই সজনে। বিশেষ করে জলবসন্ত, ডায়রিয়া ও লিভারজনিত সমস্যাসহ বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধের ক্ষেত্রে সজনে বিরাট ভূমিকা রাখে। শরীরকে সতেজ রাখতে সাহায্য করে। সজনে খাওয়া উচ্চ রক্তচাপের রোগীদের জন্য বেশ উপকারী। টিউমার যখন একেবারে প্রাথমিক অবস্থায় থাকে তখন সজনের পাতা এই টিউমার নিরাময় করতে পারে। উপজেলার গ্রামীণ সড়কের দু’ধারে, বাড়ির আঙিনায়, পুকুর পাড়ে ও পতিত জমিতে পরিচর্যা ছাড়াই সজনের ফলন হচ্ছে। উপজেলার একজন বিশিষ্ট চিকিৎসক ডা. দুলাল হোসেন জানান, সজনে পরিবেশ বান্ধব সবজি। শখের এই সজনে কেবল খেতেই যে সুস্বাদু তা নয়। এর ভেষজ গুণের জন্য এটি স্বাস্থ্য সুরক্ষার কাজেও বেশ প্রয়োজনীয়। সজনের রয়েছে আমাদের দেহকে নানা রোগ থেকে মুক্ত রাখার অনেক বড় একটি গুণ। উৎপাদিত সজনে ডাঁটা বাজারে আসার সঙ্গে সঙ্গে পাইকারি দরে বিক্রি হয় ৫০/৬০ টাকা। আর খুচরা দোকানীরা সেই সজনে ডাঁটা প্রতি কেজি ৮০ থেকে ১০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করে থাকেন। 

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ কামরুজ্জামান জানান, এবার উপজেলার সর্বত্র ব্যাপকহারে সজনে গাছে ডাটা  এসেছে, এখনো সজনে ডাটা পুরো দমে বাজারে উঠতে শুরু করেনি। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে আশা করা যাচ্ছে এবার ভালো ফলন হবে। তিনি আরোও বলেন, কোনো প্রকার বালাইনাশক প্রয়োগ ও পরিচর্যা না করে প্রতিটি গাছে ৭ থেকে ৯ মণ পর্যন্ত সজনে পাওয়া যাবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ