শনিবার ৩০ মে ২০২০
Online Edition

জেএমবি বা কোনো প্রকার জঙ্গিগোষ্ঠীর সাথে তাদের দূরতম সম্পর্ক নেই -ছাত্রশিবির

রাজশাহীর পুঠিয়া থানা থেকে ৪ শিবির কর্মীকে অন্যায়ভাবে গ্রেফতারের পর তাদের পরিকল্পিতভাবে জেএমবির সাথে জড়িয়ে মিথ্যা মামলা প্রদানের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির।

গতকাল বুধবার দেয়া যৌথ প্রতিবাদ বার্তায় ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত ও সেক্রেটারি জেনারেল মোবারক হোসাইন বলেন, গত ১৩ মার্চ সন্ধ্যায় পুঠিয়া উপজেলার বানেশ্বর বাজার থেকে মোঃ হাবিবুর রহমান, রাকিবুল ইসলাম, মোঃ নেওয়াজ সরকার এবং মোঃ সোহেল রানা নামের চার শিবির কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়। পরিবারের সদস্যরা থানায় যোগাযোগ করলে পুলিশ গ্রেফতারের পক্ষে যৌক্তিক কোনো কারণ দেখাতে না পারলেও অন্যায়ভাবে তাদের একদিন থানায় আটক রাখে। পরবর্তীতে পরিকল্পিতভাবে গতকাল তাদের জেএমবির সাথে জড়িয়ে মিথ্যা মামলা দিয়ে আদালতে হাজির করে। যা অত্যন্ত অমানবিক ও ন্যক্কারজনক ঘটনা। নেতৃদ্বয় বলেন, তারা সবাই রাজশাহী কলেজসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত ছাত্র। জেএমবি বা কোনো প্রকার জঙ্গিগোষ্ঠীর সাথে তাদের দূরতম সম্পর্ক নেই। পরিকল্পিতভাবে তাদের এ মামলায় জড়ানো হয়েছে। জঙ্গিবাদের মতো জাতীয় নিরাপত্তা ইস্যু নিয়ে পুলিশের এই নাটক অপ্রত্যাশিত। আমরা দৃঢ়ভাবে বলতে চাই, তারা ছাত্রশিবিরের কর্মী, জেএমবি বা অন্য কোনো সংগঠনের সাথে তাদের সম্পর্ক আবিষ্কার নিকৃষ্ট ষড়যন্ত্র ছাড়া কিছু নয়। শুধুমাত্র রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতেই এ মিথ্যাচারের আশ্রয় নিয়েছে পুলিশ। নেতৃদ্বয় বলেন, স্বার্থান্বেষী মহলের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে পুলিশের একের পর এক বেআইনি কর্মকাণ্ড দেখতে দেখতে দেশের মানুষ বিরক্ত ও ক্ষুব্ধ। নিরপরাধ ছাত্রদের গ্রেফতার করে তাদের নিয়ে নাটক সাজানো ও ইচ্ছামতো মামলায় জড়িয়ে দেয়া পুলিশের নিত্যদিনের কাজে পরিণত হয়েছে। এই অমানবিক ও দায়িত্বহীন আচরণ একদিকে যেমন অনেক নিরীহ ছাত্রের জীবন ধ্বংস করে দিচ্ছে অন্যদিকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ভাব-মর্যাদা ক্ষুণœ করছে। যা একটি রাষ্ট্রের জন্য চরম লজ্জাজনক। আমরা অবিলম্বে নিরপরাধ শিবির কর্মীদের মিথ্যা মামলা থেকে অব্যাহতি দিয়ে তাদের মুক্তির দাবি জানাচ্ছি। একইসাথে ভবিষ্যতে এমন আইনের শাসনের পরিপন্থী কাজ থেকে বিরত থাকতে সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ