বুধবার ১২ আগস্ট ২০২০
Online Edition

নেত্রকোনা জেলা ছাত্রদলের ১৫ নেতা-কর্মীর জামিন

নেত্রকোনা সংবাদদাতা: নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় ছাত্রদলের কর্মী সমাবেশে বাধা প্রদানকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনায় ১৩ পুলিশসহ ২০ জন আহত হওয়ার ঘটনায় পুলিশ কর্তৃক দায়েরকৃত পুলিশ এসল্ট মামলায় হাই কোর্ট থেকে জেলা ছাত্রদলের সভাপতি ফরিদ হোসেন বাবু ও সাধারণ সম্পাদক অনীক মাহবুব চৌধুরীসহ ১৫ নেতা-কর্মীদের আগাম জামিন লাভ করেছেন।  
হাইকোর্ট বিভাগের রিট আবেদন সূত্রে জানা যায়, হাই কোর্ট বিভাগের বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি মিসেস কৃষ্ণা দেবনাথ’র সমন্বয়ে গঠিত ডিভিশন ব্রেঞ্চে মঙ্গলবার আগাম জামিনের প্রার্থনা করলে বিজ্ঞ বিচারকদ্বয় উভয় পক্ষের বক্তব্য শুনে তাদেরকে চার সপ্তাহের জন্য জামিন মঞ্জুর করে বিচারিক আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ প্রদান করেন। জামিন প্রাপ্তরা হচ্ছেন, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি ফরিদ হোসেন বাবু, সাধারণ সম্পাদক অনিক মাহবুব চৌধুরী, সিনিয়র সহ-সভাপতি সারোয়ার আলম এলিন, সহ-সভাপতি তোফিক হাসান খান মিল্কি, ফারদিন চৌধুরী রিমি, এস এম দেলোয়ার হোসেন, মাহ্মুদ মোস্তফা ঝলমল, সাখাওয়াত হোসেন হাইউল, শামসুল হুদা শামীম, এ টি এম মোস্তফা জামান মামুন, মাজহারুল ইসলাম জিপু, শাহরিয়া রহমান সাইদ, লতিফুল হক চৌধুরী সুজন, এম এ সাইদ ইমরান, আতিকুল হাসান বাপ্পী।
রিট পিটিশন দাখিল করেন ব্যারিষ্টার মোঃ কায়সার কামাল। তাকে সহযোগিতা করেন এ্যাডভোকেট কে.আর.খান পাঠান সাহের, এ্যাডভোকেট মাহবুবুর রহমান, এ্যাডভোকেট মাকসুদুল হক।
উল্লেখ্য, নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া পৌর শহরে আলীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে গত ২৪ ফেব্রুয়ারী ছাত্রদলের কর্মী সমাবেশকে কেন্দ্র করে ছাত্রদলের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে ১৩ পুলিশ ও ছাত্রদলের ৮ জন নেতাকর্মী আহত হয়। এ ঘটনায় কেন্দুয়া থানার এস আই গোপাল কৃষ্ণ দাস বাদী হয়ে গত ২৫ ফেব্রুয়ারি বিএনপি, যুবদল ছাত্রদল ও জামায়াত শিবিরের ২৩৯ জনের নাম উল্লেখ করে আরো ৩ শত অজ্ঞাতনামা নেতাকর্মীসহ মোট ৫৩৯ জনকে আসামী করে পুলিশ এসল্ট মামলা দায়ের করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ