বুধবার ০৫ আগস্ট ২০২০
Online Edition

মেন্ডিসের সেঞ্চুরিতে গল টেস্টে প্রথম দিনটি শ্রীলংকারই

স্পোর্টস রিপোর্টার: শ্রীলংকার এই দলটি নতুন দল বলেই বাংলাদেশের প্রত্যাশা ছিল অনেক বেশি। তাই প্রথম টেস্টেই বাংলাদেশ চেয়েছিল নিজেদের আধিপত্য বজায় রেখে এগিয়ে যেতে। কিন্তু বাংলাদেশকে হতাশ করে টেস্টের প্রথম দিনটিই নিজেদের করে নিল স্বাগতিক শ্রীলংকা। বাংলাদেশের বিপক্ষে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ৪ উইকেটে ৩২১ রান করেই প্রথম দিনটি পার করেছে স্বাগতিকরা। দলের পক্ষে কুশল মেন্ডিস ১৬৬ রানে ও নিরোশান ডিকভেলা ১৪ রানে ব্যাটিংয়ে আছেন। গতকাল প্রথম দিনেই ছিল লংকান ব্যাটসম্যানদের আধিপত্য। বিশেষ করে কুশল মেন্ডিস। তিনি একাই প্রথম দিনটিতে বাংলাদেশের সেরা সেরা বোলারদের ভুগিয়েছেন। সেঞ্চুরি করে ব্যাটিংয়ে আছেন ১৬৬ রানে। তার ব্যাটিংয়েই বাংলাদেশ প্রথম দিনে পিছিয়ে পড়ে। অবশ্য এই ব্যাটসম্যান আউট হয়ে যেতে পারতেন প্রথম বলেই। কিন্তু বেচে যান নো বলের কারনে। আর বেচেই তিনি সেঞ্চুরি পূরণ করে দিন শেষে অপরাজিত আছেন ১৬৬ রানে। এখানেই পল টেস্টের প্রথম দিনে পিছিয়ে পড়ে টাইগাররা। গতকাল মেন্ডিস নিজের প্রথম বলেই হতেই পারতো। আর এটা হলে হয়তো দিনটি হতে পারতো বাংলাদেশেরই। কিন্তু ‘নো’ বল বাঁচিয়ে দিয়েছে তাকে। শুভাশীষ রায়ের বল মেন্ডিসের ব্যাটে লেগে ধরা পড়ে উইকেটরক্ষক লিটন দাসের গ্ল্যাভসে। কিন্তু টিভি রিপ্লেতে দেখা যায় বল করার সময় নির্ধারিত সীমানা পেরিয়ে গেছেন শুভাশীষ, বলটি তাই ‘নো’ বল। লে বেচে গিয়ে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় সেঞ্চুরি পূরণ করেন তিনি। ২৪২ বলের ইনিংসটি তিনি সাজিয়েছেন ১৮ চার ও ২ ছক্কায়। শুধু মেন্ডিসই নয়। বাংলাদেশকে ভুগিয়েছে চতুর্থ উইকেট জুটিটাও। এখানেও অবদান মেন্ডিসের। আসিলা গুনারত্নের সঙ্গে মেন্ডিস গড়েন ১৯৬ রানের জুটি। এই জুটি ভাঙার আগেই দলটি পৌঁছে য়ায় ২৮৮ রানে। তবে এই জুটি ভাঙেন তাসকিন আহমেদ। তাসকিনের বল বল গুনারতেœর ব্যাটের কানায় লেগে ভেঙে যায় স্টাম্প। তাতে স্বাগতিকরা হারায় চতুর্থ উইকেট। বোল্ড হওয়ার আগে গুনারত্নে ১৩৪ বলে খেলেন ৮৫ রানের কার্যকরী ইনিংস। অবশ্য দিনের শুরুতে বাংলাদেশ কিন্তু ভালোই করেছিল। দলীয় ১৫ রানের মাথায়ই উইকেট পেয়েছিল বাংলাদেশ। গলে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে দুই পেসার তাসকিন ও মুস্তাফিজুরকে দেখে খেলছিলেন লংকান দুই ওপেনার। কিন্তু শুভাশীষ রায় দলীয় ১৫ রানে ৫.৪ ওভারে দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে বোল্ড করেন ওপেনার উপুল থারাঙ্গাকে। থারাঙ্গা বিদায় নেন ৪ রানে। অবশ্য পরের বলে ফিরতে পারতেন মেন্ডিস। শুভাশীষের দ্বিতীয় বলেই উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়েছিলেন। কিন্তু নো বল হওয়ায় বেঁচে যান লঙ্কান এই ব্যাটসম্যান। এরপরেই জুটি গড়েন করুনা ও মেন্ডিস। দ্বিতীয় উইকেটে এই জুটিতে আসে ৪৫ রান। এই জুটিকেই ভেঙে দেন অফ স্পিনার মিরাজ। মিরাজের বলে ৩০ রান করেই বোল্ড হন করুনারত্নে। মেহেদী হাসান মিরাজের অফ স্টাম্পের বাইরের বল মারতে গিয়ে বোল্ড হয়ে ফেরেন ওপেনার করুনারত্নে। ব্যাটের ভেতরের কানায় লেগে বল আঘাত হানে স্টাম্পে।
৭৬ বলের ইনিংসে ছিল ২টি চার। ফলে ৬০ রানে দলটি হারায় দ্বিতীয় উইকেট। আর দ্বিতীয় সেশনের প্রথম দিকে মুস্তাফিজের বল উঠিয়ে মারতে গিয়েই মিরাজের তালুবন্দী হন ক্রিজে দীর্ঘক্ষণ মাটি কামড়ে থাকা দীনেশ চান্ডিমাল। ৫৪ বলে ৫ রান করে ফেরেন এই ব্যাটসম্যান। ফলে ৯২ রানে লংকানরা হারায় তিন উইকেট। তবে চতুর্থ উইকেট জুটিতে মেন্ডিস ও গুনারত্নে মিলে ১৯৬ রানে জুটি করেই দলকে এগিয়ে নেয়। দলীয় ২৮৮ রানে তাসকিনের বলে গুনারত্নে ৮৫ রান করে আউহ হলেও নিরোশান ডিকভেলকে নিয়ে দিন পার করেন মেন্ডিস। বাংলাদেশের পক্ষে মুস্তাফিজ, তাসকিন, শুভাশীষ ও মিরাজ একটি করে উইকেট নেন। প্রথম টেস্টে গতকাল তিনটি পরিবর্তন এনেছে বাংলাদেশ। ভারত টেস্ট থেকে তিনটি পরিবর্তনে বাদ পড়েছেন সাব্বির, রাব্বি ও তাইজুল। সুযোগ পেয়েছেন মুস্তাফিজুর, লিটন ও শুভাশীষ।
সংক্ষিপ্ত স্কোর :
শ্রীলংকা : ৩২১/৪ (৮৮ ওভারে) -আসেলা গুনারত্নে ৮৪, দিনেশ চান্দিমাল ৫, দিমুথ করুনারতেœ ৩০, উপুল থারাঙ্গা ৪, কুশল মেন্ডিস ১৬৬ (অপ.) ও নিরোশান ডিকভেলা ১৪ (অপ.)।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ