মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০
Online Edition

শুরুর নির্বাচনেই হোঁচট খেলো নতুন ইসি

 

মিয়া হোসেন: কে এম নুরুল হুদার নেতৃত্বাধীন নতুন নির্বাচন কমিশন শুরুতেই অনেকটা হোঁচট খেয়েছে। নতুন কমিশনের অধীনে অনুষ্ঠিত প্রথম নির্বাচনেই জনগণের সাড়া মেলেনি। জনগণের স্বতঃস্ফূর্ততা ও উৎসাহ লক্ষ্য করা যায়নি। এর মধ্যেও কেন্দ্র দখল ভোট ডাকাতি এজেন্টদের মারধরের ঘটনা ঘটেছে। বেশকিছু কেন্দ্রে জাল ভোট, প্রকাশ্যে সিল, কেন্দ্র দখল ও প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর এজেন্টদের বের করে দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। জাল ভোট দেয়ার অপরাধে ৩ আওয়ামী লীগ কর্মীকে কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। নানা অনিয়মের অভিযোগে কয়েকটি স্থানে নির্বাচন বর্জন করেছেন বিএনপির প্রার্থীরা। সবচেয়ে বেশি অনিয়মের ঘটনা ঘটেছে বরিশালের গৌরনদী উপজেলা পরিষদে চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে। এখানে ক্ষমতাসীন দলের কর্মীদের প্রকাশ্যে সিল মারতে দেখা যায়। এ ছাড়া পুলিং এজেন্টদের মারধর করে বের করে দেয়ার অভিযোগও উঠেছে। অনিয়মের ছবি তুলতে গেলে সাংবাদিকদের ক্যামেরা ছিনিয়ে নিয়ে ছবি ডিলিট করে দেয়া হয়। 

গত সোমবার ১৪টি উপজেলা পরিষদ ও ৪টি পৌরসভায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ নির্বাচনে উপজেলা পরিষদে ৫০ শতাংশেরও কম ভোট পড়েছে বলে জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়। আর এ নির্বাচনের মাধ্যমে নতুন ইসিকে সাধারণ মানুষ কিভাবে গ্রহণ করেছে তা প্রতীয়মান হয়েছে বলে মনে করছে বিশেষজ্ঞগণ। নির্বাচন যেমন ছিল নিরুত্তাপ, তেমনি উৎসবহীন। তবে তেমন কোন অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটনায় এ নির্বাচনকে সুষ্ঠু নির্বাচন হিসেবে দেখছে ইসি।

বরিশালের গৌরনদী উপজেলা পরিষদে চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে ভোটাদের অনুপস্থিতিতে ভোটকেন্দ্র দখল, ভোটডাকাতি, পোলিং এজেন্টদের মারধর ও পোলিং এজেন্টদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়াসহ নানা কারচুপির অভিযোগ পাওয়া গেছে। সাংবাদিকের ক্যামেরা ছিনিয়ে নিয়ে ভোট কারচুপির ও মোটরসাইকেল বহরের ছবি ডিলিট করে দিয়ে পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে ক্যামেরা ফেরত দেয়া হয়েছে। অবশ্য, আ’লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী সৈয়দা মনিরুন নাহার মেরী অভিযোগগুলো অস্বীকার করেছেন। 

বিএনপির মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মনজুর হোসেন মিলন অভিযোগ করেন, আমি ৪৫টি ভোটকেন্দ্রের সবগুলোতে ধানের শীষের পোলিং এজেন্ট দিয়েছিলাম। রোববার রাতে ও গতকাল সোমবার সকালে সরকারি দলের স্থানীয় ও বহিরাগত ক্যাডাররা আমার পোলিং এজেন্টদের ভোটকেন্দ্রে না যাওয়ার জন্য হুমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করে। হুমকি উপেক্ষা করে কয়েকটি ভোটকেন্দ্রে ধানের শীষের এজেন্টরা ভোটকেন্দ্রে যান। 

কুমিল্লার আদর্শ সদর উপজেলা পরিষদে উপনির্বাচনে কয়েকটি কেন্দ্রে জাল ভোট ও এজেন্ট বের করে দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। বেলা ১১টায় বিবির বাজার উচ্চ বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে জাল ভোটের অভিযোগে ভ্রাম্যমাণ আদালত আবুল হাসানাত চৌধুরী নামে এক আওয়ামী লীগ কর্মীকে ৭ দিনের সাজা দেন। একই অভিযোগে দক্ষিণ দুর্গাপুর ইউনিয়নের দিদার মডেল হাইস্কুল ভোট কেন্দ্রে মো. রিপন নামে আওয়ামী লীগের এক সমর্থককে ৫ দিনের কারাদণ্ড দেয়া হয়। বিভিন্ন কেন্দ্রে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর এজেন্টদের কেন্দ্রে যেতে বাধা দেয়ার অভিযোগ উঠেছে।

ইসি সূত্রমতে, গত সোমবার তিনটি উপজেলা পরিষদের সাধারণ এবং ১১টি উপজেলা পরিষদের ও ৪টি পৌরসভার বিভিন্ন পদে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা পরিষদের তিনটি সাধারণ নির্বাচনে ৪৮ দশমিক ৩৩ শতাংশ এবং পৌরসভার উপ-নির্বাচনগুলোতে ৬৪ দশমিক ৪৮ শতাংশ ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। 

উপজেলা পরিষদের সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে- সিলেটের ওসমানীনগর, খাগড়াছড়ির গুইমারা ও সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর। আর উপজেলা পরিষদের উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে- বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ, সাতক্ষীরার কলারোয়া, কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর, নীলফামারীর জলঢাকা, পাবনার ঈশ্বরদী, নাটোরের বড়ইগ্রাম, পাবনার সুজানগর, কুমিল্লার আদর্শ সদর, পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী, বরিশালের গৌরনদী ও বানারীপাড়া।

এছাড়া পৌরসভার উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে- টাংগাইলের সখীপুর, পটুয়াখালীর গলাচিপা, রাজশাহীর আড়ানী ও বগুড়ার শেরপুর।

এ নির্বাচনে অধিকাংশস্থানে আ’লীগ প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছে। তবে কয়েকটি স্থানে বিএনপি প্রার্থী জয়ী হয়েছেন। সিলেটের ওসমানীনগর ও সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে বিএনপি প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর উপজেলায় চেয়ারম্যান হয়েছেন বিএনপির প্রার্থী, এখানে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের প্রার্থী তৃতীয় হয়েছেন। খাগড়াছড়ির গুইমারায় স্বতন্ত্র প্রার্থী চেয়ারম্যান হয়েছেন।

বরিশালের বানারীপাড়া ও গৌরনদী, কুমিল্লার আদর্শ সদর, পাবনার সুজানগর, পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালীতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছেন।

নীলফামারীর জলঢাকায় জামায়াতে ইসলামীর নেতা ফয়সাল মুরাদ ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন।

সিলেটের ওসমানী নগর, খাগড়াছড়ির গুইমারা ও সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলায় উপজেলা পরিষদের তিনটি পদেই ভোট হয়। বরিশালের বানারীপাড়া, গৌরনদী, পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী, কুমিল্লার আদর্শ সদর, পাবনার সুজানগর ও কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে ভোট হয় শুধু চেয়ারম্যান পদে।

নাটোরের বড়াইগ্রাম, নীলফামারীর জলঢাকা, সাতক্ষীরার কলারোয়া ও বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জে ভোট হয় ভাইস চেয়ারম্যান পদে। শুধু নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে ভোট হয় পাবনার ঈশ্বরদীতে।

চার পৌরসভার মধ্যে পটুয়াখালীর গলাচিপায় মেয়র পদে, টাঙ্গাইলের সখীপুরের ২ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ডে, রাজশাহীর আড়ানী পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডে এবং শেরপুর পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ভোট হয়। গলাচিপায় মেয়র পদে জয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী।

ভোটগ্রহণ শুরুর দুই ঘণ্টা পর সকাল ১০টায় নাটোরের বড়াইগ্রাম ইউনিয়নের ৭ নম্বর কুমরুল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মাত্র দুই-একজন ভোটার দেখা গিয়েছিল। ভোটগ্রহণ শুরুর দুই ঘণ্টা পর সকাল ১০টায় নাটোরের বড়াইগ্রাম ইউনিয়নের ৭ নম্বর কুমরুল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মাত্র দুই-একজন ভোটার দেখা গিয়েছিল।

নির্বাচনকে শান্তিপূর্ণ উল্লেখ করে ইসি সচিব মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ সাংবাদিকদের বলেন, “কোথাও কোনো বিশৃঙ্খলা হয়নি, কোনো অভিযোগও আসেনি। কোথাও নির্বাচনী পরিস্থিতিরও অবনতি হয়নি। সার্বিকভাবে নির্বাচন সুষ্ঠু, সুন্দর ও শান্তিপূর্ণ হয়েছে। নতুন ইসির প্রথম এই বড় নির্বাচনে বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করা হয়েছিল বলে জানান সচিব।

 ভোটার উপস্থিতি তুলনামূলক কম থাকার বিষয়টি স্বীকার করে ইসি সচিব বলেন, যেহেতু উপজেলা নির্বাচন, আবার এর মধ্যে উপ-নির্বাচন ছিল বেশি, তাই ভোটার উপস্থিতিও কম হয়েছে। ৩০ মার্চ অনুষ্ঠেয় কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি বাড়বে বলে মনে করেন তিনি।

মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ বলেন, আসছে কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচন হবে বেশ প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক হবে। রাজনৈতিক দলগুলোর সক্রিয় অংশ নেওয়ার পাশাপাশি সচেতন ভোটারদের উপস্থিতিও থাকবে।”

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ