বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন পদ্ধতি বৃহৎ ষড়যন্ত্রেরই অংশ

গতকাল শনিবার নিজস্ব কার্যালয়ে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দল আয়োজিত লিডারশিপ ওয়ার্কশপ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার: রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন পদ্ধতি বৃহৎ ষড়যন্ত্রেরই অংশ বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, বিগত জরুরি অবস্থার সময় মইনউদ্দিন-ফখরুদ্দিনরা একটা বৃহৎ ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন প্রথা চালু করেছিল। এর মাধ্যমে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আনতে আয়োজিত পাতানো নির্বাচনে বিএনপিকে অংশ নিতে বাধ্য করার ষড়যন্ত্র হয়েছে। তবে এই ষড়যন্ত্র বাস্তবায়ন করা আর সম্ভব হবে না জানিয়ে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগকে সতর্ক করেন তিনি। গতকাল শনিবার রাজধানীর পুরানা পল্টনে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দল আয়োজিত ‘লিডারশিপ ওয়ার্কশপ’ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।
মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি ইশতিয়াক আজিজ উলফাতের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা দলের সাধারণ সম্পাদক সাদেক আহমেদ খান, বিএনপি নেতা আবদুস সালাম আজাদ, যুবদলের নুরুল ইসলাম নয়ন প্রমুখ।
আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যের জবাবে তিনি বলেন, আপনি বলেছেন, বিএনপি যদি না আসে নিবন্ধন বাতিল হয়ে যাবে। আরে নিবন্ধন কী? আপনারা যখন ৭৯ ও ৮৬ সালে নির্বাচনে গিয়েছিলেন, কোন নিবন্ধনের ওপরে নির্বাচনে গিয়েছিলেন? তিনি বলেন, ফখরুদ্দিন-মইনউদ্দিনের সময় নিবন্ধনের নামে ষড়যন্ত্র হয়েছিল। যাতে করে বিএনপি প্রহসনের নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে থাকবে আর আর শেখ হাসিনা আজীবন রাজত্ব করবে।
আজীবন ক্ষমতায় থাকার যে সুখ স্বপ্ন দেখছে তা ভুলে যাওয়ার জন্য ওবায়দুল কাদেরের প্রতি আহ্বান জানিয়ে রিজভী বলেন, এই দেশটি ছোট হলেও সাড়ে ১৬ কোটি মানুষকে আপনি নিবন্ধনের ফিতায় বাঁধবেন- সেই সুখ স্বপ্ন কোনোদিন আপনাদের পূরণ হবে না। তিনি আরো বলেন, যতই ভয় দেখান না কেন বাংলাদেশের মাটিতে আপনারা যুবলীগ-ছাত্রলীগকে দিয়ে প্রশাসনের মধ্যে লোক ঢুকিয়ে নির্বাচনের পুনরাবৃত্তি করতে পারবেন না।
রিজভী বলেন, আমি দৃঢ়তার সঙ্গে বলতে চাই, (আগামী নির্বাচনে) নিরপেক্ষ সরকার হতে হবে, সেই নির্বাচনে জনগণ অংশগ্রহণ করবে, সেই রকম নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নিশ্চয়ই বিএনপি নির্বাচনে যাবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ