বৃহস্পতিবার ২৬ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

দলে ফেরাটাই আমার মূল লক্ষ্য -ইমরুল

স্পোর্টস রিপোর্টার : শ্রীলংকার বিপক্ষে শততম টেস্ট নয়, এখন দলে ফেরাটাই মূল লক্ষ্য ইমরুল কায়েসের। কারণ শততম টেস্ট নিয়ে আলাদা করে কিছু ভাবছেন না ইমরুল। তার কাছে সব টেস্টই বিশেষ। অবশ্য শততম টেস্টে সুযোগ  পেলে ভাগ্যবান মনে করবেন নিজেকে আর চেষ্টা করবেন সেরাটা দেওয়ার। এমনটাই জানিয়েছেন ওপেনার ইমরুল কায়েস। অবশ্য ফিটনেস পরীক্ষায় পাস পারলেই কেবল শ্রীলংকায় যেতে পারবেন ইমরুল। দুই-একদিনের মধ্যেই একাডেমির ফিজিও বায়েজীদ ইসলামের কাছে ফিটনেস পরীক্ষা দেবেন তিনি। সেখান থেকে সবুজ সংকেত পেলেই শ্রীলংকা যাবেন অভিজ্ঞ এই ওপেনার। দল ঘোষণার দিন ইমরুলের টেস্ট সিরিজে খেলা নিয়ে এমনটাই জানিয়েছিলেন নির্বাচকরা। ফলে ইমরুল নিজেকে ফিট প্রমাণ করতে শুরু থেকেই চেষ্টা করে যাচ্ছেন। যে চেষ্টার ফল তিনি পেয়েছেন বিসিএলের পঞ্চম রাউন্ডে। এই রাউন্ডে ১৩৬ রানের দারুণ একটা ইনিংস খেলে নির্বাচকদের বার্তা দিয়েছিলেন। যদিও প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু জানিয়েছিলেন, রান করলেও ইমরুলকে ফিটনেস পরীক্ষায় পাস মার্ক পেতে হবে। নিজের ফিটনেস নিয়ে আত্মবিশ্বাসী ইমরুল সংবাদ মাধ্যমকে বলেন,‘ফিটনেসের দিক  থেকে আমার কোনও সমস্যা নেই। কারণ শেষ দুটি চার দিনের ম্যাচ খেলেছি। ফিল্ডিংয়ে কোনও সমস্যা নেই, ব্যাটিংয়েও কোনও সমস্যা নেই। একটা ম্যাচে লম্বা সময় ব্যাটিং করেছি, কোনও সমস্যা হয়নি এখন পর্যন্ত।’ কলম্বোতে অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় টেস্ট নিয়ে সবার মধ্যেই উত্তেজনা কাজ করছে। বারণ সেটাই হবে বংলাদেশের শততম টেস্ট ম্যাচ। ইমরুলও এর বাইরের নন, যদিও খুব  বেশি ভাবছেন না শততম টেস্ট নিয়ে। তিনি বলেন,‘আসলে শততম টেস্ট নিয়ে আমার এখন কোনও চিন্তা নেই। আমার চিন্তা হলো দলে ফেরা এবং পারফরম করা। এটাই এখন আমার একমাত্র লক্ষ্য, আমি ওভাবেই কাজ করে যাচ্ছি। জিমে, নেট সেশনে কাজ করে চেষ্টা করছি ভালোভাবে দলে ফেরার।’ আগামী ১৫ মার্চ কলম্বোতে বাংলাদেশ তাদের শততম টেস্ট ম্যাচটি খেলবে। এই টেস্টকে স্মরণীয় করে রাখতে বিসিবি শ্রীলংকান ক্রিকেট বোর্ডকে বিশেষ অনুরোধ করেছে। শুধু তাই নয়, বাংলাদেশের সদস্যরা এই টেস্টে বিশেষ ক্যাপ পাবেন বলে মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস জানিয়েছেন। মাইলফলকের এই টেস্টে সুযোগ পেলে নিজের সেরাটা দেবেন বলে জানিয়েছেন ইমরুল। তিনি বলেন,‘ জাতীয় দলে প্রত্যেকটা টেস্ট ম্যাচই গুরুত্বপূর্ণ প্রত্যেক খেলোয়াড়ের জন্য। সবাই চেষ্টা করে ভালো খেলার। আলাদা করে বললে শততম টেস্টে যারাই সুযোগ পাবে, তাদেরকে ভাগ্যবান বলতে হবে। যদি আমি  খেলতে পারি অবশ্যই নিজেকে ভাগ্যবান মনে করব।’ সঙ্গে যোগ করলেন, ‘এখন ইনজুরি থেকে ফিরে এসেছি। আমি জানি না নির্বাচকরা আমাকে নির্বাচন করবেন কিনা। যদি করে অবশ্যই চেষ্টা করব সেরাটা  দেওয়ার।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ