বৃহস্পতিবার ২৬ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

ভারতে শান্তি-সম্প্রীতি বজায় রাখতে বিজেপিকে ক্ষমতার বাইরে রাখতে হবে -আজম খান

৩ মার্চ, পার্সটুডে : উত্তর প্রদেশের নগর উন্নয়নমন্ত্রী ও সমাজবাদী পার্টির (সপা) সিনিয়র নেতা মুহাম্মদ আজম খান বলেছেন, ‘ভারতে শান্তি-সম্প্রীতি এবং মানবতা কায়েম রাখতে বিজেপিকে ক্ষমতার বাইরে রাখতে হবে। বিজেপি বর্ণ-সম্প্রদায়, হিন্দু-মুসলিমের রাজনীতি করে দেশকে বিপর্যয়ের দিকে নিয়ে যেতে চাচ্ছে।’ বৃহস্পতিবার কাজিপুর এলাকায় সপা প্রার্থীর সমর্থনে এক নির্বাচনি সভায় বক্তব্য রাখার সময় তিনি ওই মন্তব্য করেন।
 প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে উদ্দেশ করে আজম খান বলেন, ‘বিজেপি রমজান এবং দেওয়ালির নামে রাজনীতি করে হিন্দু-মুসলিমকে বিভক্ত করতে চায়। দেশের ‘বাদশাহ’র মুখে এ ধরণের কথা শোভা পায় না। বিজেপি লাশের স্তূপের উপর রাজনীতি করতে শিখেছে। উন্নয়ন পরিকল্পনার সঙ্গে তাদের কোনো সম্পর্ক নেই। আমাদের এখানে মন্দির-মসজিদে কোনো পার্থক্য নেই। প্রত্যেকেই নিজ নিজ পদ্ধতিতে ইবাদত করতে পেরে খুশি। কিন্তু বিজেপি পার্থক্য করে বিভক্ত করতে চায়। বিজেপি বিদ্বেষের বীজ বুনতে চাচ্ছে। ঈদ এবং দেওয়ালিতে পার্থক্য করতে চাচ্ছে, একে প্রতিরোধ করতে হবে।’
তিনি বলেন, ‘মোদিজি বলছেন, সপা সরকারের আমলে কবরস্থানের প্রাচীর নির্মাণ করেছে কিন্তু শ্মশানের জন্য কিছু করেনি। যদিও ২৩৬ কোটি টাকা কবরস্থানের জন্য দেয়া হলেও ৪২৬ কোটি টাকা শ্মশানের জন্য দেয়া হয়েছে।’ গত ১৯ ফেব্রুয়ারি উত্তর প্রদেশের ফতেহপুরে এক নির্বাচনি সভায় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘গ্রামে কবরস্থান তৈরি হলে শ্মশানও তৈরি হওয়া উচিত। রমজানে বিদ্যুৎ এলে দেওয়ালিতেও থাকা প্রয়োজন।’ এর পর থেকে এ নিয়ে বিভিন্ন মহলে তীব্র সমালোচনা শুরু হয়েছে। আজম খান বলেন, ‘এই দেশে ফুলের তোড়ার মতো যাতে বিভিন্ন রকমের ফুল রয়েছে। এদের সংযুক্ত করলে দেশ শক্তিশালী হবে।’ তিনি বলেন, ‘মোদি নিজেকে ফকির বলে থাকেন। কিন্তু এ পর্যন্ত তিনি ৮০ কোটি টাকার পোশাক পরেছেন।’
বিএসপি প্রধান মায়াবতী বিএসপিতে যে ১০০ মুসলিম প্রার্থী দাঁড় করিয়েছেন তার আসল উদ্দেশ্য মুসলিম ভোট বিভক্ত হয়ে রাজ্যে বিজেপি সরকার গঠন বলেও আজম খান মন্তব্য করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ