শুক্রবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

বাংলাদেশের ভারতীয় কোচ সুনীলের কাণ্ড

স্পোর্টস রিপোর্টার: বাংলাদেশ-ইরানের মধ্যকার সেমিফাইনাল ম্যাচে লজ্জাজনক কাণ্ড ঘটালেন বাংলাদেশ দলের ভারতীয় কোচ সুনীল ধাগে। ম্যাচের কয়েক মিনিট বাকি থাকতে হৃদয় তৃতীয় গোল করে পার্থক্য কমিয়ে আনেন। এর আগেই ১১ গোলে পিছিয়ে স্বাগতিকরা। তৃতীয় গোল দেয়ার পর ইরানের গোলরক্ষককে উদ্দেশ্য করে বাজে অঙ্গভঙ্গি করলেন বাংলাদেশ দলের এই ফরোয়ার্ড। তা মেনে নিতে না পেরে এক পর্যায় হৃদয়কে গিয়ে ধাক্কা দেন ইরানের কোচ কাম খেলোয়াড় মোহাম্মদ রেজা শেখ জাফরী। রেফারি লাল কার্ড দেখান রেজাকে। এরপর স্বাগতিক দলের ভারতীয় কোচ সুনীল ধাগে যা করেছেন তাতে হতবাক মিরপুর ইনডোর স্টেডিয়ামে উপস্থিত সকলেই। তিনি দৌঁড়ে গিয়ে তর্ক করা শুরু করেন ইরানের কোচের সঙ্গে এবং এক পর্যায়ে তার গালে চড় মারেন। সঙ্গে সঙ্গে রেফারি লাল কার্ড দেখিয়ে বের করে দেন বাংলাদেশের কোচকে।
স্বাগতিক দলের ভারতীয় কোচের এমন কাণ্ডে সাময়িক উত্তেজনা তৈরি হয় মিরপুর ইনডোর স্টেডিয়ামে। ম্যাচ শেষে দুই দলের খেলোয়াড়দের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে উত্তেজনা। ইরানের কয়েকজন খেলোয়াড় তেড়ে আসতে থাকে বাংলাদেশ ডাগআউটের দিকে। তখন মাইকে টেকনিক্যাল অফিসাররা বারবার বলতে থাকেন, এমন আচরণ করলে দলও সাসপেন্ড হয়ে যেতে পারে। পরে দুই দলের কর্মকর্তারা খেলোয়াড়দের নিবৃত করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ম্যাচ শেষে মাঠের কাণ্ডে বাংলাদেশী মিডিয়ার তোপের মুখে পড়েন কোচ সুনীল। রোলবল বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার জন্য ভারতীয় কোচ অবশ্য করজোড়ে ক্ষমা চেয়েছেন। পড়ে ইরানের ওই কোচ কাম খেলোয়াড় মোহাম্মদ রেজা শেখ জাফরির কাছে প্রকাশ্যে ক্ষমা চেয়ে তার সঙ্গে কোলাকুলি করেছেন বাংলাদেশের ভারতীয় কোচ।
সংবাদ সম্মেলনে ইরানের কোচ কাম খেলোয়াড় রেজা বলেছেন, ‘এটা দুঃখজনক। তবে গোলের পর বাংলাদেশের খেলোয়াড় (হৃদয়) যে কাজ করেছেন সে জন্য তাকে লাল কার্ড দেয়া উচিত ছিল। দিয়েছেন হলুদ কার্ড। আমরা রেফারির সিদ্ধান্তকে সম্মান জানিয়েছি।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ