সোমবার ১০ আগস্ট ২০২০
Online Edition

পঞ্চম দিনে গড়াল বাংলাদেশ-ভারত টেস্ট

স্পোর্টস রিপোর্টার : পঞ্চম দিনেই গড়ালো বাংলাদেশ-ভারত ঐতিহাসিক টেস্ট। অধিনায়ক মুশফিকের সেঞ্চুরিসহ ১২৭ রানের ইনিংসেই বাংলাদেশ টেস্টটি নিতে পেরেছে পঞ্চম দিনে। তবে হায়দরাবাদ টেস্টে শেষ দিনে কি অপেক্ষা করছে বলা মুশকিল। তবে এটা বলাই যায়, টেস্টের শেষ দিনের প্রথম সেশনটার ওপরই নির্ভর করছে এই টেস্টের ফলাফল। আজ যদি বাংলাদশে প্রথম সেশনটা কোনো উইকেট না হারিয়ে পার করতে পারে তবে অনেক কিছুই হতে পারে শেষ দিনে। কিন্তু কাজটা অনেক কঠিন বাংলাদেশের জন্য। তবে সাকিব-মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ব্যাটিংয়ে থাকায় কিছুটা ভালো করার স্বপ্ন দেখতেই পারে বাংলাদেশ। আর যদি প্রথম সেশনেই বাংলাদেশ গতকালের মতো উইকেট হারাতে থাকে, তবে এই টেস্টে বড় ব্যবধানে পরাজয়ের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে মুশফিকদের।
হায়দরাবাদ টেস্টে টসে জিতে আগে ব্যাট করে ভারত ৬ উইকেটে ৬৮৭ রানের বিশাল স্কোর গড়ে ইনিংস ঘোষণা করলে প্রথম থেকেই চাপে পড়ে বাংলাদেশ। তবে প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে মুশফিকের সেঞ্চুরি আর সাকিব ও মিরাজের হাফসেঞ্চুরিতে প্রথম ইনিংসে ৩৮৮ রান তুললেও ফলোঅন এড়াতে পারেনি টাইগাররা। অবশ্য বাংলাদেশকে ফলোঅন না করিয়ে ভারত দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ৪ উইকেটে ১৫৯ রান করে ইনিংস ঘোষণা করে। ফলে জয়ের জন্য বাংলাদেশের সামনে টাগের্ড়ট দাঁড়ায় ৪৫৯ রান। বিশাল এই টার্গেট সামেনে নিয়ে গতকাল ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ তিন উইকেটে ১০৩ রান করে চতুর্থ দিন পার করেছে। ফলে জয়ের জন্য বাংলাদেশের এখনও দরকার ৩৫৬ রান। দলের পক্ষে সাকিব ২১ রানে আর রিয়াদ ৯ রানে ব্যাটিংয়ে আছেন। জয়ের জন্য ৪৫৯ রানের বিশাল টার্গেট সামনে নিয়ে ব্যাট করতে নেমে গতকাল বাংলাদেশ শুরুটা মোটেও ভালো করতে পারেনি। বরং ১০৩ রান করতেই হারিয়ে বসেছে টপঅর্ডারের তিন ব্যাসম্যানকে। ব্যাট করতে নেমে পঞ্চম ওভারে দলীয় ১১ রানে প্রথম উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ব্যক্তিগত ৩ রানে অশ্বিনের বলে কোহলির হাতে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেন ওপেনার তামিম। এরপর রাহানের হাতে ক্যাচ তুলে সাজঘরে ফেরেন অপর ওপেনার সৌম্য সরকার। তিনি করেন ৬৬ বলে ৪২ রান। ব্যাট করতে নেমে প্রথম ইনিংসের মতো টিকতে পারেননি মুমিনুল হকও। অশ্বিনের বলে রাহানের হাতে ক্যাচ তোলার আগে মুমিনুল করেন ২৭ রান। ফলে দলীয় ৭৫ রানে বাংরাদেশ হারায় প্রথম তিন উইকেট। অবশ্য ব্যাট করতে নেমে সাকিব-রিয়াদ জুটি আর কোনো উইকেট না হারিয়ে ১০৩ রানে দিন পার করেছে। এর আগে ভারতের বিপক্ষে টেস্টের তৃতীয় দিনের শুরুটা ভালো না করতে পারলেও শেষটা ভালোই করেছিল বাংলাদেশ। মুশফিকুর রহিম এবং মেহেদী হাসান মিরাজের ব্যাটে ফলোঅন এড়ানোর লড়াাই করছিল দল। তবে চতুর্থ দিনের প্রথম ওভারেই আউট হন মিরাজ। আর শেষ উইকেট হিসেবে বিদায় নেন মুশফিকও। ফলে বাংলাদেশের প্রথম ইনিংস ৩৮৮ রানেই অল আউট হয়। চতুর্থ দিনের শুরুতেই ব্যক্তিগত ৫১ রানে ভুবনেশ্বর কুমারের বলে বোল্ড মিরাজ। ফলে মুশফিকের সঙ্গে তার ৮৭ রানের জুটিটি ভাংগে দলীয় ৩২২ রানে। তবে এর আগেই মিরাজ নিজের টেস্ট ক্যারিয়ারের প্রথম ফিফটি করেন। মিরাজের বিদায়ের পর মাত্র ১০ রান করেই আউট হন তাইজুল ইসলাম। তবে অপর প্রান্তে ব্যাট করে চলছিলেন মুশফিক। যার ফলে টেস্ট ক্যারিয়াারের পঞ্চম সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন মুশফিক। সেঞ্চুরি করতে ২৩৬টি বল খেলেছেন তিনি। আর এতে ছিল ১৩টি চার ও ১টি ছক্কার মার। মুশফিক একপ্রান্ত আগলে রাখলেও অপর প্রান্তে ব্যাটসম্যানরা আসা-যাওয়ায় ব্যস্ত ছিলেন। নবম উইকেট হিসেবে তাসকিন আহমেদও ৮ রানে ফিরে যান সাজঘরে। এরপর মুশফিকের সঙ্গে কামরুল ইসলাম রাব্বি যোগ দেন। কিন্তু অশ্বিনের করা বলে আউট হয়ে মুশফিক মাঠ ছাড়েন ১২৭ রান করে। ফলে বাংরাদেশের প্রথম ইনিংস শেষ হয় দলীয় ৩৮৮ রানে। আর ২৯৯ রানের পিছনে থেকেই মাঠ ছাড়তে হয় টাইগারদের। ভারতের হয়ে উমেশ যাদব নেনন ৩টি উইকেট। আর দুইটি করে উইকেট নেন রবীন্দ্র জাদেজা এবং রবিচন্দ্রন অশ্বিন। এদিকে প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ থেকে ভারত ২৯৯ রানে এগিয়ে থাকলেও টাইগারদের ব্যাটিংয়ে না পাঠিয়ে অধিনায়ক বিরাট কোহলি দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নামেন। আর চতুর্থ দিনের চা বিরতির আগে ভারত ৪ উইকেটে ১৫৯ রান করে ইনিংস ঘোষণা করলে জয়ের জন্য বাংলাদেশ পায় ৪৫৯ রানের টার্গেট। গতকাল ভারতের দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুতেই আঘাত হানেন তাসকিন। চতুর্থ ওভারে তিনি ফেরান প্রথম ইনিংসের সেঞ্চুরিয়ান মুরালি বিজয়কে। তিনি ১৪ বলে ১টি চারের মারে ৭ রান করেন। এরপর ষষ্ঠ ওভারেই একইভাবে তাসকিনের বলে আউট হয়ে ফিরে গিয়েছেন আরেক ওপেনার লোকেশ রাহুল। তিনি করেছিলেন ১০ রান। রাহুল বিদায় নিলে উইকেটে আসেন বিরাট কোহলি। ভারতের দলপতি ওডানডে স্টাইলেই খেলতে থাকেন। তবে তাকে আটকে দেন অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। আউট হওয়ার আগে কোহলি ৪০ বলে ২টি চার ও ১টি ছক্কার মারে ৩৮ রান করেন। ফলে পূজারার সঙ্গে ক্রিজে যোগ দেন আজিঙ্কা রাহানে। তবে তাকেও খুব বেশিক্ষণ টিকতে দেননি সাকিব। রাহানেকে সরাসরি বোল্ড আউট করেছেন সাকিব। আউট হওয়ার আগে রাহানে করেন ৩৫ বলে ২৮ রান।
তৃতীয় দিন শেষে স্কোর:
ভারত ১ম ইনিংস: ৬৮৭/৬ ইনিংস ঘোষণা
ভারত ২য় ইনিংস: ১৬৯/৪ ইনিংস ঘোষণা
বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: ৩৮৮/১০
বাংলাদেশ ২য় ইনিংস : ৩৫ ওভারে ১০৩/৩ (লক্ষ্য ৪৫৯) (তামিম ৩, সৌম্য ৪২, মুমিনুল ২৭, মাহমুদউল ৯*, সাকিব ২১*; ভুবনেশ্বর ০/১৪, অশ্বিন ২/৩৪, ইশান্ত ০/১৯, উমেশ ০/৯, জাদেজা ১/২৭)।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ