বৃহস্পতিবার ০১ অক্টোবর ২০২০
Online Edition

জানুয়ারি মাসে রাজনৈতিক সন্ত্রাস

মুহাম্মদ ওয়াছিয়ার রহমান : [দুই]
১৮ জানুয়ারি লক্ষ্মীপুরে এক আদালত ২০১০ সালের ৫ সেপ্টেম্বর রাতে ছাত্রলীগ জেলা সিনিয়র সহ-সভাপতি আশরাফুল আলমকে হত্যা প্রচেষ্টা মামলার রায়ে আট ছাত্রলীগ নেতাকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেয় আদালত। দণ্ডপ্রাপ্তরা হলো- জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি চৌধূরী মাহমুদুন্নবী সোহেল, সহ-সভাপতি খোরশেদ আলম বাপ্পি, সাধারণ সম্পাদক রাকিব হোসেন লোটাস, ছাত্রলীগ নেতা সজীব, মেরাজ, রূপম, রকি ও কাউছার। রায়ের বিরুদ্ধে ছাত্রলীগ প্রতিবাদ মিছিল ও ঢাকা-রায়পুর রোড অবরোধ করে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই হলে ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে প্রতিমাসে কমিশন না দেয়ায় কবি জসিম উদ্দিন হল ও শহীদুল্লাহ্ হলে ইন্টারনেট সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান কে.এস নেটওয়ার্কের ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সংযোগ বন্ধ করে দেয়। প্রতি হলে ছাত্রলীগ নেতাদের ১০টি লাইন ফ্রি দেয়ার পরও তারা এই চাঁদাদাবী করে।
১৯ জানুয়ারি খুলনা মহানগরীতে গগনবাবু রোডে অশালীন উক্তি ও যৌন হয়রানীর প্রতিবাদ করায় জেলা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ও খুলনা সিটি করপোরেশনের ৮নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত আসনের সাবেক কাউন্সিলর হালিমা ইসলামের বাড়ীতে হামলা ও ভাংচুর করে ছাত্রলীগ। ঘটনায় জড়িত থাকায় পুলিশ দশ ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীকে আটক করে। আটককৃতরা হলো- মহানগরী উপ-প্রচার সম্পাদক মশিউর রহমান বাদশা, কমার্স কলেজ ছাত্রলীগ নেতা মিথুন, মেহেদী, জাহাঙ্গীর, হাবিবুর রহমান, ইনজামুল কবীর, দেবাশীষ পাল, সবুজ বিপ্লব, আবু দাউদ ও আশিকুর রহমান। ২১ জানুয়ারি ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত পাঁচজন। হল দখল ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে কলেজ ছাত্রলীগের আহ্বায়ক নূরে আলম রাজু ও যুগ্ম-আহ্বায়ক রাসেল গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে রাসেল ও মামুনসহ আহত হয় পাঁচজন। ২২ জানুয়ারি ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের ঊনিশ নেতা-কর্মীকে দলীয় শৃংখলা ভঙ্গের দায়ে বহিস্কার করে ছাত্রলীগ। বহিষ্কৃতরা হলো- ছাত্রলীগ ঢাকা কলেজ আহবায়ক নূর আলম ভূঁইয়া রাজু, যুগ্ম-আহবায়ক শাহজান ভূঁইয়া শামীম, সালেহ আহমেদ হৃদয়, সামাদ আজাদ জুলফিকার, হিরণ ভূঁইয়া, কলেজ শাখার সদস্য শাহরিয়ার রাশেদ, হাসানুজ্জামান মুন্না, রহমতউল্লাহ্্, রুবেল ম-ল, সাদ্দাম হোসেন, কর্মী সৈকত, আব্দুল আজিজ ফয়েজ, নাঈম ইবনে আজাদ, তুহীন, জসিম উদ্দিন, মাইনুল ইসলাম, মিল্টন খন্দকার, রানা ও সুজন। ২৩ জানুয়ারি চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে নিজামপুর বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে ছাত্রলীগ দু’গ্রুপের সংঘর্ষে ওয়াহেদপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক নূরুল আমিন মুহুরী আহত হয়, হাসপাতালে নিয়ে গেল ডাক্তাররা তাকে মৃত ঘোষণা করে। ছাত্রলীগ রেজভী গ্রুপ ও ফজলু গ্রুপের মধ্যে পর পর দু’দিন সংঘর্ষে এই হত্যাকান্ড ঘটে।
২৬ জানুয়ারি মুন্সীগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগ দলীয় শৃংখলা রক্ষা করতে ব্যর্থ হওয়ায় ৫টি কমিটির বাতিল করে জেলা কমিটি। শাখা গুলি হচ্ছে- মিরকাদিম পৌর শাখা, লৌহজং উপজেলা শাখা, শ্রীনগর সরকারী কলেজ শাখা, শ্রীনগর উপজেলা শাখা ও মুন্সীগঞ্জ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট শাখা। ২৯ জানুয়ারি সিলেট শহরের ঝর্ণারপাড় এলাকায় ৪৩ বোতল ফেনসিডিলসহ আটকদের ছাড়িয়ে নিতে পুলিশের উপর হামলা করে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি সুজেল আহমেদ তালুকদার, ইমন দাস, মনিরুল ইসলাম, কামরুল ইসলাম, সজীব আহমেদ তালুকদার, সৌরভ তালুকদার, শাহেদ আহমেদ, জুবায়ের খান, মাসুদ আহমেদ, শামসুজ্জামান ও সুমন পাল। তারা আসামী তানভীর ও প্রভাতকে ছিনিয়ে নেয় এবং আরো ২/৩ জন পালিয়েও যায়। তাদের হামলায় আহত হয় এসআই হাবিবুর রহমান, এটিএসআই আহসান হাবিব, এসআই অনুপ কুমার চৌধূরী, এটিএসআই আব্দুল হেকিম ও কনস্টেবল আরোজ মিয়া। ৩০ জানুয়ারি সিলেট এমসি কলেজে ছাত্রদল মিছিল নিয়ে ক্যাম্পাসে ঢুকতে গেলে ছাত্রলীগ নেতা দেলোয়ার হোসেন ও হোসাইন আহমেদের নেতৃত্বে তাদের বাধা দেয়া হয়, ফলে দাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয় এতে ছাত্রদলের তিনজন আহত হয়। ৩১ জানুয়ারি সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত নয়জন। আন্তঃবিভাগ ক্রিকেট টুর্নামেন্টে ব্যবসায় প্রশাসন ও ইন্ডাস্ট্রিয়াল প্রোডাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের মধ্যে খেলা চলছিল। এক পর্যায়ে উভয় বিভাগের মধ্যে বাক-বিতণ্ডা ও হাতাহাতি বাধে। এতে তিনজন শিক্ষার্থী আহত হয়। এ নিয়ে খেলার মাঠে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে শাবি ছাত্রলীগ সভাপতি সঞ্জিবন চক্রবর্তী পার্থ ও সহ-সভাপতি অঞ্জন রায়ের সমর্থকরা দেশী অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষে পার্থ গ্রুপের অনুসারী ছাত্রলীগ নেতা জাকির হোসেন, আবু হাসান মোল্লা এবং অঞ্জন গ্রুপের নজরুল ইসলাম ও খলিলুর রহমানসহ নয়জন আহত হয়।
যুবলীগ: ১ জানুয়ারি মেহেরপুরের গাংনীতে বামুন্দি নিশিপুর স্কুল এন্ড কলেজের সামনে মার্কেট নির্মানকে কেন্দ্র করে যুবলীগের সাথে স্থানীয়দের সংঘর্ষে আহত তিনজন। উপজেলা যুবলীগ সভাপতি মোশাররফ হোসেন ও এ্যাড: রাশেদুল হক জুয়েলের মধ্যে সংঘর্ষে আহতরা হলো- মোশররফ হোসেন, বামুন্দি ইউনিয়ন যুবলীগ সাধারন সম্পাদক রায়হান ও বড় বাবু। নড়াইলের কালিয়ার গাজীরহাট বাজারে যুবলীগ উপজেলা সভাপতি মোস্তফা কামালের লাইসেন্স করা শর্টগানের গুলিতে হামিদপুর ইউপি ৬নং ওয়ার্ড মেম্বার হাসান শেখ আহত হয়। তবে ঘটনাটি অসতর্ক অবস্থায় হয়েছে বলে জানা যায়। ৩ জানুয়ারি নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে হাটগাঁও গ্রামে প্রতারণার মাধমে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রবিউল ফয়সালের নেতৃত্বে পুলিশ যুবলীগ নেতা মানিক খোনকারকে গ্রেফতার করলে যুবলীগ কর্মীরা তাকে পুলিশের হাত থেকে ছিনিয়ে নেয়। সরকারী কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগে পরে পুলিশ তার মেয়েকে গ্রেফতার করে। বান্দরবন জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কাজী মজিবুর রহমানের বনানী স’মিল এলাকার বাড়ীতে দখলবাজীর অভিযোগে হামলা করে যুবলীগ-ছাত্রলীগ। ৫ জানুয়ারি বরিশালে দলীয় কার্যালয়ের সামনে বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশে হামলা করে যুবলীগ-ছাত্রলীগ। তাদের হামলায় মহানগর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক জিয়াউদ্দিন সিকদার, দক্ষিণ জেলা বিএনপি’র সভাপতি এবাদুল হক চাঁন, সাধারণ সম্পাদক এ্যাডঃ আবুল কালাম শাহীন ও বিএনপি নেত্রী ফারজানা রোজীসহ অর্ধশত আহত হয়। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি বিতর্কিত সংসদ নির্বাচনের প্রতিবাদে বিএনপি এই দিন “গণতন্ত্র হত্যা দিবস” পালন করছিল। ১০ জানুয়ারি নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে দারগা পুকুরপাড় এলাকায় প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে অনৈতিক কাজে লিপ্ত থাকা কালে যুবলীগ নেতা ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান কামাল হোসেনকে আটক করা হয়। এ সময় ক্ষিপ্ত হয়ে কামাল হোসেন গুলি ছুঁড়লে আবুল কালাম ও মিজান আহত হয়। ১১ জানুয়ারি গাজীপুরের কালীগঞ্জে যুবলীগ নেতার তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে নাসিমা আক্তারকে হত্যার দায়ে নাগরী ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি সফিকুল ইসলাম মাসুম আকন্দের নামে মামলা করে নিহতের প্রথম ঘরের মেয়ে তানজিনা আক্তার। উল্লেখ্য, নাগরী ইউনিয়নের ৭, ৮ ও ৯নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত আসনের মেম্বার থাকা কালে মাসুদের সাথে পরিচয়, সম্পর্ক ও পরে বিয়ে হয়। গত ৮ নভেম্বর মাসুদের বাড়ীতে পিঠা উৎসবের সময় নাসিমা আক্তার নিখোঁজ হয়। এই মামলায় মাসুমকে গ্রেফতার করে পুলিশ। রাজনৈদিক সংশ্লিষ্টতা বিলম্বে প্রকাশ হওয়ায় ঘটনাটি জানুয়ারি মাসে প্রকাশ হলো। ১৬ জানুয়ারি নরসিংদীর পলাশে ঘোড়াশাল বিদ্যুৎ কেন্দ্রে শ্রমিক নিয়োগে চাপ সৃষ্টির লক্ষ্যে ঘোড়াশাল পৌর ৩নং ওয়ার্ড যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হামিদ মিয়া শ্রমিকদের মারধর করে। পরে তার বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়। ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে উচ্চখিলা ইউনিয়নের ৪, ৫ ও ৬নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী আসনের মেম্বার শাহনাজ আক্তারকে লাঞ্ছিত করে ইউনিয়ন যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক আজিজুল হক। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে আবেদন করলে তিনি তদন্ত করতে কমিটি গঠন করেন।
১৮ জানুয়ারি লক্ষ্মীপুরে এক আদালত ২০১০ সালের ৫ সেপ্টেম্বর রাতে ছাত্রলীগ জেলা সিনিয়র সহ-সভাপতি আশরাফুল আলমকে হত্যা প্রচেষ্টা মামলার রায়ে ফেনী পৌর যুবলীগ যুগ্ম-আহবায়ক এহতেশাম হায়দার বাপ্পিকে কারাদণ্ড দেয়। ১৯ জানুয়ারি নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে গার্মেন্টসে ঝুট ব্যবসা নিয়ে যুবলীগ দু’গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। সানারপাড় সোনামিয়া মার্কেটে সিকোটেক্স গার্মেন্টসে ঝুট ব্যবসা নিয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ৩নং ওয়ার্ড যুবলীগ সাধারন সস্পাদক তোফায়েল হোসেন ও যুবলীগ নেতা ফারুকের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে তোফায়েল, রিপন, বিলকিস ও আল-ইসলামসহ আহত হয় পাঁচজন। ২২ জানুয়ারি কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে কামালপুর বাজারে রাস্তা নির্মাণকে কেন্দ্র করে গ্রামবাসীর উপর বেপরোয়া গুলি চালায় যুবলীগ নেতা আব্দুস সালাম, ফলে ষোল জন গুলিবিদ্ধ হয়। গুলিবিদ্ধরা হলো- আব্দুল হামিদ, সাদ্দাম হোসেন, মরজেম, ঝন্টু, মতিয়ার, দুলাল, ফরিদ, সুজন, খবির, রাসেল, শহীদ, রিয়াজ মোল্লা, সাবদেল, মন্টু, হাসান ও মোন্তাজ। ২৩ জানুয়ারি নারায়নগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে বিষ্ণাদী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির নির্বাচন নিয়ে প্রধান শিক্ষক খোরশেদ আলমকে মারধর করে যুবলীগ নেতা নূরুল ইসলাম মেম্বার, জিয়াউর রহমান ও শাহ জালালসহ ৮-১০ জন মারধর করে। তারা নির্বাচন বন্ধ করার জন্য চাপ দেয়, তা না শুনায় প্রধান শিক্ষককে মারধর করে, তার অফিসে তালা ঝুলিয়ে দেয়। ২৪ জানুয়ারি সিরাজগঞ্জ সদরে ধীতপুর কানু এলাকায় এমপি ও জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক ডাঃ হাবিবে মিল্লাত মুন্নাকে ফেসবুকে কটুক্তি ও হত্যার হুমকি দেয়ায় যুবলীগ নেতা আহসান হাবিব জুয়েলকে গনধোলাই দিয়ে পুলিশে দেয় ইউনিয়ন ছাত্রলীগ।
২৭ জানুয়ারি নোয়াখালী সদরে খলিফার হাট ইউপি মেম্বার ও যুবলীগ নেতা জহির উদ্দিনের বাড়ীতে অভিযান চালিয়ে পুলিশ যুবলীগ কর্মী মহিউদ্দিন লাতু, বাবর এবং রুবেলকে ১টি এলজি, ৩৪ রাউন্ড গুলি, ৩টি ককটেল ও ২৫টি চকলেট বোমা উদ্ধার করে। দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলায় জমি দখলের ঘটনায় রাঙ্গামাটি বাজার থেকে আলাদিপুর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি নাজমুল হাসানকে আটক করে পুলিশ। ৩১ জানুয়ারি সাতক্ষীরা পাশপোর্ট অফিসের নির্মাণ সংক্রান্ত দরপত্রে সর্ব নিম্ন দরে এস.এস বিল্ডার্স সিডিউল জমা দিয়েও যুবলীগ-ছাত্রলীগের চাপে দরপত্র প্রত্যাহার করে নেয়। এ ছাড়া অনেক ঠিকাদার তাদের চাপে সিডিউল জমা দিতে পারেনি।
শ্রমিক লীগ: ১২ জানুয়ারি বগুড়ার শাহজানপুরে উপজেলা শ্রমিক লীগ যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ইউনুস আলীর মাদক ও জুয়ার আস্তানা থেকে দশ জনকে আটক করে পুলিশ। পরে ১৩ জানুয়ারি ভ্রাম্যমাণ আদালত তাদের বিভিন্ন মেয়াদে দণ্ড দেয়। ইউনুস আলী পুলিশকে ম্যানেজ করে রানীরহাট বন্দরে সরকারী জায়গা দখল করে মদ ও জুয়ার আসর বসায়। দণ্ডপ্রাপ্তরা হলো- শ্রমিক লীগ নেতা আব্দুর রহমান, মিজানুর রহমান, ইয়াসিন আলী, জিয়াউল হক, আনোয়ার হোসেন, আব্দুর রাজ্জাক, জাহাঙ্গীর, বাদশা, মিরাজুল ইসলাম ও আব্দুল খালেক।
স্বেচ্ছাসেবক লীগ: ৩ জানুয়ারি লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে নয়নপুর গ্রাম থেকে পুলিশ স্বেচ্ছাসেবক লীগ ইছাপুর ইউনিয়ন সিনিয়র সহ-সভাপতি মাসুদ রানাকে ২টি দেশীয় পাইপ গান ও ২ রাউন্ড গুলিসহ আটক করে। ৮ জানুয়ারি গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে এমপি লিটন হত্যা মামলায় আসামী হিসাবে সাবেক উপজেলা পরিষদ ভাইস-চেয়ারম্যান ও স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা আহসান হাবিব মাসুদকে গ্রেফতার দেখায় পুলিশ, তাকে ৬ জানুয়ারি নিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নেয়া হয়। ১৭ জানুয়ারি পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার বড়মাছুয়ায় গত ইউপি নির্বাচনী দ্বন্দ্বে স্বেচ্ছাসেবক লীগ বড়মাছুয়া ইউনিয়ন সভাপতি আব্দুল কাইউম হাওলাদারকে কুপিয়ে জখম করে প্রতিপক্ষ উপজেলা স্বেচ্চাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ছাত্রলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাডঃ নিজাম ও টোকাই জুয়েলসহ আরো কয়েকজন।
মহিলা আওয়ামী লীগ: ১ জানুয়ারি নারায়নগঞ্জের রূপগঞ্জে মহিলা আওয়ামী লীগের ভোলানাথপুর নীলা মার্কেটে দলীয় কোন্দলে উপজেলা মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান ফেরদৌসী আলম নীলার কার্যালয়ে হামলা ও ভাংচুরসহ পঁচিশ নেতা-কর্মীকে আহত করে। সেখানে তারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবিসহ অন্যান্য আসবাবপত্র ভাংচুর করে। হামলায় মহিলা আওয়ামীে লীগ কর্মী লাকি বেগম, মনোয়ারা বেগম, লাইলী বেগম, হেলেনা বেগম, পারভীন আক্তার, মোসাম্মৎ বেগম, বিলবিস, খাদিজা আক্তার, ফেরদৌসী আক্তার, হেলেনা আক্তার, রত্না আক্তার, উম্মে হানী, হাশি বেগম ও সাথী আক্তারসহ আহত পঁচিশ জন।
যুব মহিলা লীগ: ১৮ জানুয়ারি ফেনীর দাগনভূঁঞার পশ্চিম রামচন্দ্রপুর গ্রাম থেকে পূর্ব চন্দ্রপুর ইউনিয়ন যুব মহিলা লীগ সভানেত্রী তাজ নাহারকে তার বাড়ী থেকে ১ কেজি গাঁজাসহ গ্রেফতার করে ভ্রাম্যমান আদালত দুই বছরের কারাদণ্ড দেয়। 
প্রজন্ম লীগ : ১৬ জানুয়ারি নারায়নগঞ্জে রূপগঞ্জে মুহুরী এলাকায় ঢাকা ভিলেজ আবাসন প্রকল্পে চাঁদাবাজী কালে প্রজন্ম লীগ নেতা জয়নাল আবেদীনকে আটক হয়। ১৮ জানুয়ারি লক্ষ্মীপুরের এক আদালত ২০১০ সালের ৫ সেপ্টেম্বর রাতে ছাত্রলীগ জেলা সিনিয়র সহ-সভাপতি আশরাফুল আলমকে হত্যা প্রচেষ্টা মামলার রায়ে জেলা প্রজন্ম লীগ সাধারণ সম্পাদক জুয়েলকে কারাদণ্ড দেয়।
রেল শ্রমিক লীগ: ৬ জানুয়ারি বান্দরবনে পিকনিকে গিয়ে মহিলাদের সাথে অশোভন আচরণ, মাতলামী, পুলিশ ও জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সাথে অসৌজন্য ব্যবহার করায় চট্টগ্রাম রেল শ্রমিক লীগ নেতা সিরাজুল ইসলাম ও তার লোকজনকে বিতাড়ন করে প্রশাসন। পরে তারা ৭ জানুয়ারি চট্টগ্রামে এসে বিক্ষোভ করে এবং রেল চলাচলে বিঘœ ঘটায়।
বিএনপি: ২ জানুয়ারি নরসিংদীর রায়পুরায় জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দল ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সাধারন সম্পাদক ও বিএনপির সাবেক উপজেলা সভাপতি এম.এন জামান আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে আদালত তা নামঞ্জুর করে তাকে জেল হাজতে পাঠায়। চট্টগ্রামের মিরসরাই বিএনপির সাবেক সদস্য-সচিব ও সাবেক চেয়ারম্যান সালাহ উদ্দিন আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে আদালত তা নামঞ্জুর করে তাকে জেল হাজতে পাঠায়।
৪ জানুয়ারি ঢাকা থেকে বিএনপি’র ফরিদপুর বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক খন্দকার মাসুকুর রহমান মাসুককে গ্রেফতার করে পুলিশ। নোয়াখালীর সেনবাগে উপজেলা চেয়ারম্যান ও বিএনপির উপজেলা সিনিয়র সহ-সভাপতি আবুল কালাম আজাদ এবং ছাতারপাইয়া ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহমানকে আটক করে পুলিশ। ৮ জানুয়ারি পটুয়াখালী জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি মাকসুদ বায়োজিত পান্না ও যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ওয়াহিদ সরওয়ার কামালকে গ্রেফতার করে পুলিশ।
১১ জানুয়ারি ফরিদপুরের বোয়ালমালী পৌর সভার সাবেক মেয়র ও বিএনপি পৌর সাধারণ সম্পাদক আব্দুস শাকুর শেখকে গ্রেফতার করে পুলিশ। কিশোরগঞ্জ জেলা বিএপির সভাপতি শরীফুল আলম এবং কুলিয়ারচর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা নূরুল মিল্লাতসহ একচল্লিশ নেতা-কর্মী আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে আদালত তা নামঞ্জুর করে তাদের জেল হাজতে পাঠায়। ময়মনসিংহের নান্দাইল পৌর মেয়র ও আওয়ামী লীগ পৌর সভাপতি রফিক উদ্দিন ভূঁইয়ার গাড়ী ভাংচুরের ঘটনায় সাবেক মেয়র ও পৌর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এএফএম আজিজুল ইসলাম পিকুলকে প্রধান আসামী করে মামলা করে মেয়র রফিক। ১৪ জানুয়ারি ঝালকাঠির রাজাপুরে উত্তর কাঠিপাড়া গ্রামে আওয়ামী লীগ নেতা রজব আলী খানের বাড়ীতে বিএনপি নেতা আনোয়ার সিকদারের ছেলে আসাদ সিকদারসহ ১৫-২০ জন সন্ত্রাসীসহ হামলা করে তাকে, তার বাবা আব্দুর রহীম খান ও তার স্ত্রী মরিয়ম আক্তারকে আহত করে।
এ সময় তার বাড়ী ভাংচুর এবং ১টি ল্যাপটপ, ক্যামেরা, ৫টি মোবাইল সেট, ৭ ভরি স্বর্ণ, নগদ টাকা ও লাইট ছিনিয়ে নেয়। ২৪ জানুয়ারি দিনাজপুর জেলার খানসামা উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি শহিদুজ্জামান শাহকে দলীয় শৃংখলা ভঙ্গ করে আওয়ামী লীগে যোগদান করায় বিএনপি থেকে বহিষ্কার করে সংগঠনটি।
ছাত্র দল: ৪ জানুয়ারি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে জাতীয় পর্যায়ের বক্সার মুনায়েবুর রহমান খানকে মারপিট করায় ছাত্রদল চবি শাখা যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সালাহ উদ্দিন উজ্জ্বলকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। ৮ জানুয়ারি পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদল সাধারন সম্পাদক জাকির হোসেন ফরাজীকে কলেজ রোড এলাকায় নিজ বাসা থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ।  [চলবে]

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ