সোমবার ১০ আগস্ট ২০২০
Online Edition

কোপা দেল রের ফাইনালে বার্সেলোনা

স্পোর্টস ডেস্ক : কাম্প নউয়ে জয় দেখেনি কেউ। তবে দুই লেগের লড়াইয়ে আতলেতিকো মাদ্রিদকে ছিটকে দিয়ে টানা চতুর্থবারের মতো কোপা দেল রের ফাইনালে উঠেছে বার্সেলোনা। সেমি-ফাইনালের ফিরতি লেগের ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র হয়েছে। দুই লেগ মিলিয়ে কাতালান ক্লাবটির জয় ৩-২ ব্যবধানে। আতলেতিকোর মাঠে ২-১ গোলে জিতেছিল বার্সেলোনা। লাল কার্ড পাওয়ায় শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে খেলতে পারবেন না লুইস সুয়ারেস। বার্সেলোনা ৪৩তম মিনিটে দারুণ এক আক্রমণে এগিয়ে যায়। তিন জনের মধ্যে দিয়ে কোনাকুনি গিয়ে ডি বক্সের বাইরে থেকে লিওনেল মেসির নীচু শট গোলরক্ষক ঝাঁপিয়ে ঠেকালেও বিপদমুক্ত করতে পারেননি। ফিরতি বল ফাঁকায় পেয়ে লক্ষ্যভেদে কোনো ভুল করেননি সুয়ারেস। বার্সেলোনা দ্বিতীয়ার্ধের শুরুটাও করে আক্রমণাত্মক। তবে ৫৭তম মিনিটে স্পেনের মিডফিল্ডার রবের্তো দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখলে ১০ জনের দলে পরিণত হয় তারা। তিন মিনিট পর অঁতোয়ান গ্রিজমান জালে বল পাঠালেও অফসাইডের বাঁশিতে আতলেতিকোর উল্লাস থেমে যায়। আর ৬৯তম মিনিটে বেলজিয়ামের মিডফিল্ডার ইয়ানিক কারাসকো দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখলে মাদ্রিদের দলটিও ১০ জনে পরিণত হয়। ৭৭তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ হতো পারতো; কিন্তু প্রায় ২৫ গজ দূর থেকে মেসির ফ্রি-কিক ক্রসবারে লাগে। দুই মিনিট পর জেরার্দ পিকে নিজেদের ডি-বক্সে গামেরোকে ফাউল করলে পেনাল্টি পায় আতলেতিকো। নিজেই শট নিয়ে ক্রসবারের উপর দিয়ে উঁচিয়ে মারেন এই ফরাসি ফরোয়ার্ড। ভুলের প্রায়শ্চিত্ত করতে দেরি করেননি গামেরো। ৮৩তম মিনিটে বাঁ-দিক থেকে গ্রিজমানের নি:স্বার্থ পাস পেয়ে সহজেই জালে পাঠান বদলি নামা এই স্ট্রাইকার। নির্ধারিত সময়ের শেষ মিনিটে সুয়ারেসও দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন। পাঁচ মিনিটের যোগ করা সময়ে আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে লড়াই আরও জমে ওঠে। তবে নয় জনের বার্সেলোনা শেষ পর্যন্ত আর কোনো নাটকীয়তার জন্ম হতে দেয়নি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ