শুক্রবার ২৩ অক্টোবর ২০২০
Online Edition

জানুয়ারি মাসে রাজনৈতিক সন্ত্রাস

জানুয়ারি মাসে রাজনৈতিক সন্ত্রাস : জানুয়ারি মাস ছিল রাজনৈতিকভাবে প্রাকৃতিক আবহাওয়ার মত বেশ ঠাণ্ডা। এ মাসে নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে সার্চ কমিটি করা উপলক্ষে রাষ্ট্রপতির সংলাপ ছিল উল্লেখযোগ্য ঘটনা। নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে রাজনৈতিক দলগুলো, মিডিয়া ও বুদ্ধিজীবীরা ছিল আগের চেয়ে সরব। জানুয়ারিতে ১৩৯টি রাজনৈতিক সন্ত্রাসের তথ্যে নিহতের সংখ্যা ৯। এই ৯ জনের ৬ জনই আওয়ামী লীগের হাতে, ছাত্রলীগ ১, যুবলীগ ১ ও জাসদের হাতে ১ জন খুন হয়। এ মাসে রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতায় প্রাপ্ত তথ্যে আহত হয় ৩০৭ জন এবং গ্রেফতার অনেক বেশী হলেও ২৬৫ জনের তথ্য পাওয়া গেছে বাকীদের পরিচয় প্রকাশিত হয়নি। গ্রেফতারকৃতরা অধিকাংশই বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতা-কর্মী এবং দণ্ডপ্রাপ্ত ৫২ জন। এই ৫২ জনের আওয়ামী লীগের ৭, ছাত্রলীগের ৩০, যুবলীগ-১, প্রজন্ম লীগ-১, শ্রমিক লীগ-১০, যুব মহিলা লীগ-১, বিএনপির ১ এবং ছাত্রদল-১ জন। প্রাপ্ত তথ্য অনুসারে জানুয়ারি মাসে নিহত হয়- (১) শরীয়তপুরের জাজিরায় আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে হোসেন খাঁ নামে একজন নিহত হয়, (২) সুনামগঞ্জে দিরাইয়ে জলমহল দখল নিয়ে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের বন্দুক যুদ্ধে তাজুল ইসলাম, (৩) শাহারুল ও (৪) উজ্জল মিয়া নিহত হয়, (৫) ফেনীর ছাগলনাইয়ায় প্রবাসীর স্ত্রী আকলিমা আক্তার হত্যা মামলা আওয়ামী লীগ নেতা আটক এবং (৬) নড়াইলের নড়াগাতীতে দলীয় কোন্দলে আওয়ামী লীগ নেতা প্রভাষ রায়কে কুপিয়ে হত্যা করা হয়, (৭) চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে নূরুল আমিন মু-রী নিহত হয়, (৮) গাজীপুরের কালীগঞ্জে স্ত্রী হত্যার দায়ে যুবলীগ নেতা আটক ও (৯) কুষ্টিয়ার মিরপুরে জাসদের হাতে নিহত হয় আওয়ামী লীগ নেতা লুৎফর রহমান।
আওয়ামী লীগ : ১ জানুয়ারি মেহেরপুরের গাংনীতে ডিজেএমসি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে হাতুড়ি পিটিয়ে আহত করে আওয়ামী লীগ নেতা মামুন হোসেন। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি হতে না পেরে তাকে এই হাতুড়ি পিটা করা হয়। ২ জানুয়ারি ফেনীর সোনাগাজী মু-রী প্রজেক্টে আওয়ামী লীগের দলীয় কোন্দলে এমপি হাজী রহিমুল্লাহ্্র দু’টি ড্রেজার পুড়িয়ে দেয় প্রতিপক্ষ। এমপি এ জন্য ফাজিলপুর ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা মজিবুল হক রিপন, যুবলীগ নেতা আইউব নবী ফরহাদ ও ছাত্রলীগ নেতা ইফতেখারসহ তাদের সহযোগীদের দায়ী করে। নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় রায়জুড়া গ্রামে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষ, ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ ও লুটপাট করা হয়। সিএনজি, অটো টেম্পু স্ট্যা- দখল নিয়ে আওয়ামী লীগ নেতা আবু তাহের ও অপর নেতা ইসলাম উদ্দিনের মধ্যে সংঘর্ষে দুলাল মিয়াসহ পাঁচজন আহত হয়। ৩ জানুয়ারি পটুয়াখালীর দশমিনায় আওয়ামী লীগ সদর ইউনিয়ন সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হাই সিকদার ও তার দুই ছেলেসহ নয়জনের বিরুদ্ধে আদালতে লুট ও নির্যাতনের মামলা করে কাটাখালী গ্রামের কৃষক খলিলুর রহমান। উল্লেখ্য, গত ১ ডিসেম্বর ঐ নির্যাতন ও লুটের ঘটনা ঘটায়। বরিশাল জেলার গৌরনদীর টরকি বাসস্ট্যান্ড থেকে আওয়ামী লীগ আগৈলঝাড়ার রাজিহার ইউনিয়ন সাংগঠনিক সম্পাদক মতিউর রহমান হওলাদারের ছেলে ডালিম হাওলাদার ৫০০ টাকার ১৪টি জাল নোটসহ আটক হয়। ৫ জানুয়ারি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে হিন্দুদের বাড়ি-ঘর ও মন্দিরে হামলার মূল হোতা আওয়ামী লীগ নেতা এবং হরিপুর ইউপি চেয়ারম্যান দেওয়ান আতিকুর রহমান আঁখিকে ঢাকার ভাটেরা থানা এলাকা থেকে আটক করে পুলিশ। উল্লেখ্য, গত ৩০ অক্টোবর এই হামলার ঘটনা ঘটে।
৭ জানুয়ারি হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে আওয়ামী লীগ নেত্রী ও এমপি আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরী এবং হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি দেওয়ান শাহ নেওয়াজ গাজী মিলনের সমর্থকদের মধ্যে বালিদারা বাজারে ফ্রি চিকিৎসা সেবা প্রদান কালে দু’গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। ৮ জানুয়ারি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে হিন্দুদের বাড়ি-ঘর ও মন্দিরে হামলার অন্যতম হোতা আওয়ামী লীগ নেতা সুরূজ আলীকে চাপরতলা গ্রাম থেকে আটক করে পুলিশ। উল্লেখ্য, গত ৩০ অক্টোবর নাসিরনগরে এই হামলা হয়। পাবনার সাঁথিয়ায় আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ছয়জন। উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক তপন হায়দার সান এবং সাঁথিয়া পৌর মেয়র ও আওয়ামী লীগ নেতা মিরাজুল ইসলামের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে পুলিশ সদস্য সাইফুল ইসলাম, সোহাগ মাহমুদ ও গৃ ধৈূ মারুফা বেগমসহ আহত ছয়জন। শরীয়তপুরের জাজিরায় বড়কান্দি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত পাঁচজন। আওয়ামী লীগ নেতা ও বড়কান্দি ইউপি চেয়ারম্যান এস.এম সিরাজ এবং সাবেক চেয়ারম্যান সফি খলিফার সমর্থকদের মধ্যে এই সংঘর্ষ হয়। ১০ জানুয়ারি শরীয়তপুরের জাজিরায় বড়কান্দি ইউনিয়নের মাদবরকান্দি গ্রামে আওয়ামী লীগ নেতা ও বড়কান্দি ইউপি চেয়ারম্যান এস.এম সিরাজ এবং সাবেক চেয়ারম্যান সফি খলিফার সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে হোসেন খাঁ নামে একজন নিহত এবং অপর দশজন আহত হয়। প্রতিপক্ষের বোমার আঘাতে হোসেন খাঁর মাথার খুলি উড়ে যাওয়াসহ আব্দুর রহমান বেপারী, জাহাঙ্গীর মাদবর, ইলিয়াস দড়ি, নূরু মিয়া খাঁ, নূর হোসেন খাঁ, সেকেন্দার ছৈযাল ও রজব আলী মাদবরসহ আহত দশজন। নোয়াখালীর হাতিয়ায় চরকিং ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে বিশজন আহত হয়। আহতরা হলো- আব্দুর রহীম, জসিম উদ্দিন, আবুল কাশেম, আব্দুল কাদের, আব্দুল করীম, জুয়েল, সাইফুল ও রাশেদসহ বিশজন।
 ১১ জানুয়ারি ঢাকার রিপোটার্স ইউনিটিতে বরগুনা-২ আসনের এমপি ও আওয়ামী লীগ নেতা শওকত হাসানুর রহমান রিমন এবং পাথরঘাটা উপজেলা চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা রফিকুল ইসলাম রিপনের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করে অভিযোগ করেন পাথরঘাটা মহিলা আওয়ামী লীগের সাবেক মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা বিলকিস আরা রানী, লিখিত বক্তব্যে তাদের বিরুদ্ধে হামলা ও নির্যাতনের অভিযোগ করে। “পাথরঘাটা-বামনা-বেতাগীর নির্যাতিত মুক্তিযুদ্ধপ্রেমী” মানুষের পক্ষে আওয়ামী লীগের একটি অংশ এই অভিযোগ করে। সংবাদ সম্মেলনে আরো বক্তব্য রাখেন- রায়হানপুর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ইদ্রিস চৌধুরী, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ সাবেক সহ-সভাপতি ও পাথরঘাটার আদিবাসী ইসমাইল হোসেন ও মুক্তিযোদ্ধা সুলতান। ঢাকার চামেলীবাগে আওয়ামী লীগের দলীয় কোন্দলে ১৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আলী রেজা খান রানাকে না পেয়ে তার মা শারমিন সুলতানা আলোকে গুলী করে দলীয় প্রতিপক্ষ বলে অভিযোগ করেন রানা। ১৩ জানুয়ারি নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে চনপাড়ায় খাবার হোটেলে অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা নিয়ে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের উত্তেজনা ও বাড়ি-ঘরে হামলার ঘটনা ঘটে। আওয়ামী লীগ নেতা সিরাজ মিয়া ও অপর নেতা মেম্বার বজলুর রহমান গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়।  কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় বিয়ের অনুষ্ঠানে আনন্দ করার সময় মজা করে শর্টগানের গুলী ছোঁড়া ও পিস্তল প্রদর্শন করে আওয়ামী লীগ উপজেলা সাধারণ সম্পাদক ও মেয়র শামীমুল ইসলাম সানা। নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপে পরস্পর হামলা ও ভাংচুরের মামলা দায়ের করে। আওয়ামী লীগ নেতা সিরাজ মিয়া ও বজলুর রহমানের মধ্যে এই ঘটনা ঘটে।
১৬ জানুয়ারি টাঙ্গাইলে আওয়ামী লীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদ হত্যা এবং ঘাটাইল জিবিজি কলেজ ছাত্র-সংসদের ভিপি ও উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা আবু সাঈদ রুবেলকে হত্যা প্রচেষ্টার সাথে সম্পৃক্ত থাকার দায়ে সংসদ সদস্য আমানুর রহমান খান রানা, তার তিন ভাই টাঙ্গাইল পৌর সভার সাবেক মেয়র সহিদুর রহমান খান মুক্তি, জেলা বণিক সমিতির সাবেক সভাপতি জাহিদুর রহমান খান কাকন ও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি সানিয়াত খান বাপ্পাকে বহিষ্কার করে দলটি। নারায়ণগঞ্জের সাত খুনের মামলায় আওয়ামী লীগ নেতা নূর হোসেনের ফাঁসির দ- দেয় আদালত। ১৭ জানুয়ারি সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে ঘোড়ামারা সাতপাকিয়া জারলিয়া জলমহাল দখল নিয়ে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের বন্দুক যুদ্ধে তাজুল ইসলাম, শাহারুল ইসলাম ও উজ্জল মিয়া নিহত হয়। জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মতিউর রহমান এবং দিরাই-শাল্লা এলাকার এমপি ও কেন্দ্রীয় নেতা সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের অনুসারী যুবলীগ নেতা একরাম হোসেন ও আওয়ামী লীগ নেতা আহাদ মিয়া গ্রুপের মধ্যে দীর্ঘ দিন ধরে দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। এ দিন জলমহল দখল নিয়ে সংঘর্ষে আরো বিশজন আহত হয়। চুয়াডাঙ্গার জীবননগরে উথলী গ্রাম থেকে ৪৫০ বোতল ফেনসিডিলসহ উথলী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক চিরকুমার কফিল উদ্দিনকে গ্রেফতার করে র‌্যাব।
১৮ জানুয়ারি নোয়াখালীর হাতিয়ায চরকিং ইউপিতে জনতা বাজারে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত পাঁচজন। আওয়ামী লীগ নেতা ইকবাল মেম্বার এবং আব্দুল ওয়াহাব সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে পূর্বে নিহত আফের উদ্দিনের মা জাহানারা বেগম ও আরো দুই মহিলাসহ পাঁচজন আহত হয়। ফেনীর ছাগলনাইয়ায় ছয়ঘরিয়া গ্রামে ওমান প্রবাসী সফি আহমেদের স্ত্রী আকলিমা আক্তারকে হত্যা মামলায় আওয়ামী লীগ নেতা ও ইউপি মেম্বার সফি উদ্দিনকে আটক করে পুলিশ। উল্লেখ্য, গত বছর ১৯ অক্টোবর অসুস্থ মাকে দেখে বাড়ি ফেরার পথে নিখোঁজ হয় এবং চার দিন পর তার লাশ ফেনী নদী থেকে উদ্ধার করা হয়। নিহতের ভাই সাইফুল ইসলাম বাদী হয়ে মামলা করলে পুলিশ সফি উদ্দিনের শ্যালিকা হালিমা খাতুনকে গ্রেফতার করে। হালিমার দেয়া তথ্য অনুসারে সফি উদ্দিন মেম্বারকে গ্রেফতার করা হয়। বিলম্বে রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতা উদঘাটিত হওয়ায় ঘটনাটি জানুয়ারিতে প্রকাশ হলো। লক্ষ্মীপুরের এক আদালত ২০১০ সালের ৫ সেপ্টেম্বর রাতে ছাত্রলীগ জেলা সিনিয়র সহ-সভাপতি আশরাফুল আলমকে হত্যা প্রচেষ্টা মামলার রায়ে আওয়ামী লীগ নেতা মানিককে কারাদ- দেয়। ১৯ জানুয়ারি নাটোরের নলডাঙ্গায় আওয়ামী লীগ নেতার অনুমতি না নেয়ায় বৃদ্ধার লাশ দাফন করা গেল না। বাঁশিলা দক্ষিণপাড়া গ্রামের বৃদ্ধা আঞ্জুনাম আরা বুধবার মারা গেলে তার অছিয়ত অনুসারে স্বামীর কবরের পাশে গ্রামের দক্ষিণপাড়া কেন্দ্রীয় কবরস্থানে দাফনের জন্য গেলে আওয়ামী লীগ ২নং ওয়ার্ড সভাপতির অনুমতি ছাড়া লাশ দাফন করতে দেয়নি তাকে। কবরস্থানের সভাপতি আজিজ খাঁ ও সহ-সভাপতি জয়নাল খাঁর অনুমতি নিয়ে এবং সিদ্ধান্ত অনুসারে কবর প্রতি ৫০০/- টাকার স্থলে ১০০০/- টাকা জমা দিয়েও তাকে দাফন করতে দেয়নি মাধনগর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি তাহের উদ্দিন। তাহের উদ্দিনের পূর্ব অনুমতি না নেয়ায় কবর খুঁড়েও দফন করতে পারেনি তারা। চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে উয়ারুক বাজারে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত হয় দশজন। আওয়ামী লীগ নেতা হুমায়ুন কবীর মজুমদার ও টামটা উত্তর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ওমর ফারুক দর্জির সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে ভা-ারী মুসা মজুমদার, কামাল হোসেন, কামরুল হাসান মজুমদার, মোহাম্মদ হোসেন পাটোয়ারী, কামরুজ্জামান, মঞ্জুর এলাহী, বাচ্চু, শাহীন, জাভেদ ও মাসুদ আহত হয়। ২২ জানুয়ারি রাজবাড়ির পাংশায় ইউপি নির্বাচনত্তোর কসবামাঝাইল ইউপির শান্তিখোলা গ্রামে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সহিংসতায় বাড়ি-ঘর ভাংচুর, অগ্নিসংযাগ ও পাঁচজন গুলীবিদ্ধ হয়। সহিংসতায় আহতরা হলো- ইয়াসিন বিশ্বাস ও আল-আমিনসহ পাঁচজন।
২৪ জানুয়ারি নীলফামারীর ডিমলায় তিস্তা ব্যারেজের কমান্ড এলাকায় বোমা মেশিনের সাহায্যে অবৈধ পাথর উত্তোলনের দায়ে আওয়ামী লীগ নেতা রফিকুল ইসলামকে আটক করে পুলিশ। জামালপুর পৌর সভার চৌদ্দ কোটি পঞ্চাশ লাখ টাকার টেন্ডার জমা দানে আওয়ামী লীগ-যুবলীগ নেতা-কর্মীরা বাধা দেয়, এমন অভিযোগ করে জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও ঠিকাদার সরোয়ার হোসেন এবং তাদের বাধায় তিনিও টেন্ডার জমা দিতে পারেননি। ২৫ জানুয়ারি গাজীপুরের টঙ্গীতে সাহাজ উদ্দিন সরকার স্কুল এ- কলেজে দখল ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের লড়াইয়ে একজন অভিভাবক ও ছাত্র সমাজের সাবেক কেন্দ্রীয় নেতা ইসরাফিল মিয়া আহত হয়। গাজীপুরের শ্রীপুরে ডাঃ কামাল উদ্দিন উচ্চবিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া অনুষ্ঠানের দাওয়াতপত্র ছাপা নিয়ে প্রধান শিক্ষক মজিবর রহমান খানকে মারধর করার পর স্কুল থেকে বের করে দেয় স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও কাওরাইদ ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি মোস্তাক কামাল খান। পরে ছাত্র-ছাত্রীরা প্রতিবাদে ক্রীড়া অনুষ্ঠান বর্জন ও মঞ্চ ভাংচুর করে।
২৬ জানুয়ারি ফরিদপুরের শালথায় লক্ষণদিয়া গ্রামে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের তিন দিন ধরে সংঘর্ষে আশিজন আহত, দেড় শতাধিক বাড়ি-ঘর ভাংচুর ও অগ্নি সংযোগ করা হয়। আওয়ামী লীগ নেতা আবু মাতুব্বর ও মিন্টু শেখের সমর্থকদের মধ্যে এই সংঘর্ষ হয়। ঘটনায় গট্টি ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান লাভলুসহ মোট আশিজন আহত হয়। সাতক্ষীরা জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি রিফাত আমীনের ছেলে রাশেদ সরোয়ার রুমন ফের চাঁদাবাজির মামলায় আসামী। ভোমরা স্থলবন্দর ট্রান্সপোর্ট ব্যবসায়ী সিরাজুল ইসলামের নিকট পাঁচ লাখ টাকা চাঁদার দাবির অভিযোগে রুমনসহ চারজনের নামে মামলা দায়ের করে। ঐ মামলায় পুলিশ ইমরান হোসেন টনি ও তুহীনকে আটক করে। চাঁদাবাজির সময় তারা মাকসুদুর রহমানকে মারধর করে। গত বছর ১৮ সেপ্টেম্বর আরেকটি চাঁদাবাজির মামলায় রাশেদ সরোযার রুমন আটক হয়ে তিন মাস হাজত বাস করে। নীলফামারীর সৈয়দপুরে কামারপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কারাদণ্ডপ্রাপ্ত রইস উদ্দিন জোতদারকে আটক করে পুলিশ। তাকে একটি মামলায় ঢাকার যুগ্ম-জেলা জজ আদালত দু’বছরের কারাদণ্ড দেয়। ২৭ জানুয়ারি শরীয়তপুরের জাজিরায় লাউখোলা বাজারে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষ অর্ধ শতাধিক ককটেল বিস্ফোরণ ঘটানো ও বিশজন আহত হয়। উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি তমিজ খান ও আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুর রাজ্জাক মাদবর গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে আব্দুর রাজ্জাক মাদবর, মাসুদ দৌকিদার, তোতা মিয়া সরদার ও সজিব মাদবরসহ আহত বিশজন।
২৯ জানুয়ারি মেহেরপুরের গাংনী উপজেলায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দফতরি কাম প্রহরী নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ তুলে ইউএনও আরিফ-উজ-জামানকে তার অফিসে অপদস্ত করে আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল খালেক, গাংনী উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি সহিদুজ্জামান খোকন, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা, উপজেলা যুবলীগ সভাপতি মোশাররফ হোসেন ও উপজেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব হোসেনসহ ৩০-৪০ জন অফিসে ঢুকেই প্রধান শিক্ষকদের সামনে তাকে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে। এই নিয়োগ নিয়ে ইউএনও জেলা প্রশাসনের নির্দেশনা অনুসারে প্রধান শিক্ষকদের সাথে এ নিয়োগ সংক্রান্ত বৈঠক করছিলেন। এখনও নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়নি অথচ আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ অনিয়মের অভিযোগ তুলে ইউএনও এবং বিএনপির পৌর সভাপতি ও গাংনী উপজেলা চেয়ারম্যান মুরাদ আলীর বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করে ইউএনওর অপসারণ ও উপজেলা চেয়ারম্যানকে তার অফিসে ঢুকতে দেয়া হবে না মর্মে ঘোষণা করে। পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় যুবলীগ নেতা লিটন প-িত হত্যা মামলায় মঠবাড়িয়া পৌর মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি রফিউদ্দিন আহমেদ ফেরদাউস আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে তাকে জেল হাজতে পাঠায়। নীলফামারীর ডোমারে দোহলা বাগানবাড়ি এলাকায় দুই একর জমিতে থাকা দীনবন্ধু রায় ও মৃণাল কান্তি রায়ের ১২০টি শিশু ও ইউক্যালিপ্টাস গাছ কেটে নেয় পাশের দেবীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি নূরুজ্জামান ও তার লোকজন।
৩০ জানুয়ারি রাজশাহী জেলা পরিষদ নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান ও প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা মোহাম্মদ আলী সরকারের পবা উপজেলার কাপাশিয়া এলাকায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের অপর গ্রুপ হামলা চালায়। সেখানে এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ প্রাপ্তদের সংবর্ধনা দেয়ারও কথা ছিল। ঘটনার প্রতিবাদে পরে এক সভা হয় এবং সভায় এমপি আয়েন উদ্দিনের সমর্থকদের ঘটনার জন্য দায়ী করা হয়। কুষ্টিয়ার মিরপুরে জাসদ অফিসে হামলা ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় একষট্টি আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীর নামে মামলা করে জাসদ নেতা সালাহ উদ্দিন। উল্লেখ্য, জাসদের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ নেতা সাবুকে হত্যার অভিযোগে ১২ জানুয়ারি এই হামলা ও অগ্নিসংযোগ করে। ৩১ জানুয়ারি নড়াইলের নড়াগাতীতে দলীয় কোন্দল ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ভদ্রবিলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রভাষ রায়কে কুপিয়ে হত্যা করে দলীয় প্রতিপক্ষ গ্রুপ। ঘটনায় আওয়ামী লীগ নেতা ও ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুর রহমান ও তার ছেলে আশিকসহ পাঁচজনকে আটক করে পুলিশ।
ছাত্রলীগ : ২ জানুয়ারি কক্সবাজারের চকরিয়া বালিকা বিদ্যালয় সড়কে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে সংখ্যালঘু প্রবীণ শিক্ষক হৃদয় রঞ্জন দাস আহত হয়। চকরিয়া কলেজ ছাত্রলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক রাসেল চন্দ্র দাস সুশীল ও ছাত্রলীগ নেতা তারেকের মধ্যে ইয়াবা বিক্রির টাকা ভাগাভাগি নিয়ে এই সংঘর্ষ হয়। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ সহ-সভাপতি মামুনকে আটক করে পুলিশ। গত ৩০ অক্টোবর অপর সহ-সভাপতি তায়েফুল হক তপু ও ২৯ ডিসেম্বর চবি ছাত্রলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক ইমতিয়াজ অভিকে মারধরের মামলা ছিল তার বিরুদ্ধে। ৩ জানুযারি নড়াইল ভিক্টরিয়া কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর সামাদ উল্লাহ্ মজুমদার অন্যায় দাবি অগ্রাহ্য করায় তাকে লাঞ্জিত করে ছাত্রলীগ নেতা পলাশ ও তার দুই সহযোগী। প্রতিবাদে কলেজে দু’দিন কোন ক্লাস ও পরীক্ষা চলেনি। ঘটনা তদন্তে কলেজ উপাধ্যক্ষকে আহ্বায়ক করে পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়। ৪ জানুয়ারি ঠাকুরগাঁওয়ে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী র‌্যালিতে মিজান গ্রুপ ও রনি গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে বিশজন আহত হয়। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে জাতীয় পর্যায়ের বক্সার মুনায়েবুর রহমান খানকে মারপিট করায় ছাত্রলীগ চবি শাখা সহ-সভাপতি নাজমুল করীম নিপুনকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। ৫ জানুয়ারি নেত্রকোনায় ছাত্রলীগের দলীয় কোন্দল ও কমিটি গঠন নিয়ে সংখ্যালঘু পরিবারের সদস্য জেলা নবগঠিত কমিটির সহ-সভাপতি সৈত্যজিৎ দাস সৈকতকে কুপিয়ে জখম করে অপর গ্রুপ। ৯ জানুয়ারি নেত্রকোনায় ছাত্রলীগের দলীয় কোন্দলে জেলা সাধারণ সম্পাদক দেওয়ান জনির চেম্বারে পেট্টল বোমা দিয়ে হামলা ও ভাংচুর করে প্রতিপক্ষ। মৌলভীবাজারে রাজনগর উপজেলা পয়েন্ট এলাকায় ছাত্রলীগ দু’গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। উপজেলা ছাত্রলীগ সাবেক আহ্বায়ক আব্দুল কাদির ফৌজী ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক রুবেল আহমদ সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে লিসান আহমেদ নামে একজন আহত হয়।
১০ জানুয়ারি জামালপুরের সরিষাবাড়িতে পৌর ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক সুজনকে আটক করে পুলিশ। সরিষাবাড়ি অনার্স কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি আরিফুল হককে ৮ জানুয়ারি ধারাল অন্ত্র দিয়ে কোপান মামলায় সুজন আসামী। কুমিল্লার চান্দিনায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা গিয়াস উদ্দিন মারপিট করলেন নবাবপুর আহসানিয়া উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুজাহারুল ইষলামকে। স্থানীয় এমপির আত্মীয় গিয়াস উদ্দিন একটি দোকান ভাড়া নিয়ে মতবিরোধের জেরে এই ঘটনা ঘটায়। ১১ জানুয়ারি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে মাওলানা ভাসানী হলে ছাত্রলীগ কর্মী জহিরুল ইসলামকে রড় দিয়ে পিটিয়ে হাত-পা ভেঙ্গে দেয় মুজিব হল ছাত্রলীগ কর্মী মিজানুর রহমান, তোফায়েল আহমেদ, ইশতিয়াক আহমেদ, ইয়াসিন, শিহাব, নাজমুল, লিটন ও শাওনসহ ২০-২৫ জন। ১২ জানুয়ারি ঢাকার নবাব স্যার সলিমুল্লাহ্ মেডিকেল কলেজে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে ছাত্রলীগ সলিমুল্লাহ্ মেডিকেল কলেজ শাখা কমিটি স্থগিত করে। ১৩ জানুয়ারি ঢাকার ইনষ্টিটিউট অব হেলথ্ টেকনোলজিতে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত বিশজন। আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগ সভাপতি জসিম উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক শিবলীর সমর্থকদের মধ্যে এই সংঘর্ষে পাঁচটি কক্ষও ভাংচুর করা হয়। লক্ষ্মীপুরে কলেজ রোডে বিএনপি অফিসে ছাত্রলীগের হামলা, বিএনপি অফিসের সামনে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ছাত্রলীগকে ছাত্রদল ধাওয়া দেয়, পরে ছাত্রলীগ জেলা সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে বিএনপি অফিসে হামলা করে বারজন নেতা-কর্মীকে আহত করে। ছাত্রদলের আহতরা হলো- মোরশেদ আলম, তারেকুর রহমান হাবিব, মুরাদ, মামুন, দিপু, আব্দুল কাইউম, মোস্তাফিজ, রিমন ও নিজামসহ বারজন।
৬ জানুয়ারি গাজীপুরের টঙ্গীতে আবুল নামে এক লোক তের বছর ধরে দোকান ভাড়া না দিয়ে ছাত্রলীগ নেতাদের সহায়তায় তা-বের মাধ্যমে দোকান থেকে মালামাল নিয়ে সটকে পড়ে। ছাত্রলীগ টঙ্গী থানার সাধারণ মম্পাদক মশিউর রহমান সরকার বাবুর নেতৃত্বে এক দল সন্ত্রাসী চুক্তিতে এই কার্য সম্পাদন করে। সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই ছাত্রলীগ নেতাকে শাহ পরাণ হল থেকে বহিষ্কার করে কর্তৃপক্ষ। বহিষ্কৃতরা হলো- ছাত্রলীগ বিশ্ববিদ্যালয় যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জোবায়ের আহমেদ এবং তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক এমদাদুল হক মিলন।  [চলবে]

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ