বুধবার ০৫ আগস্ট ২০২০
Online Edition

কানাডা ত্রিনিদাদের গ্রুপে আর মালয়েশিয়া খেলবে ঢাকায়

স্পোর্টস রিপোর্টার: নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে কানাডা হকি দল আসতে অপারগতা দেখালে ও গ্রুপ লড়াইয়ে সুবিধা পাওয়ায় মালয়েশিয়া আসছে ঢাকায়। আন্তর্জাতিক হকি ফেডারেশনের কাছে কানাডার দাবি ছিলো অন্য গ্রুপে যেন তাদের খেলতে দেয়া হয়। সেই অনুযায়ী আন্তর্জাতিক হকি ফেডারেশন নিজে উদ্যোগী হয়ে দুই দেশের মাঝে যোগাযোগ করে। ঢাকায় কোন দলকে পাঠানো যায় তা আলোচনায় তুললে আগ্রহী হয় মালয়েশিয়া। অপরদিকে কানাডাকে নিয়ে গেছে ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগোর টাকারিগুয়াতে অনুষ্ঠিতব্য রাউন্ড-২ এর আরেক আসরে। ওয়ার্ল্ড লিগ রাউন্ড-২ এর খেলা আগামী ৪ মার্চ থেকে ঢাকায় শুরু হচ্ছে। কানাডার জায়গায় বাংলাদেশের গ্রুপে খেলবে মালয়েশিয়া। অপেক্ষাকৃত সহজ প্রতিপক্ষ ও চেনা পরিবেশ দেখে মালয়েশিয়াও রাজি হয়েছে ঢাকায় আসতে।
টাকারিগুয়াতে ২৫ মার্চ থেকে শুরু হওয়া আসরে মালয়েশিয়াকে খেলতে হতো যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, সুইজারল্যান্ড, চিলি, জাপান, বার্বাডোজ এবং আয়োজক ত্রিনিদাদ ও টোবাগোর বিপক্ষে। সেই তুলনায় ঢাকায় চীন, ঘানা, ওমান, ফিজি, শ্রীলংকা, মিসর ও আয়োজক বাংলাদেশের বিপক্ষের গ্রুপটা অনেক সহজ। আর বর্তমানে বিশ্বের ১৩ নম্বর র‌্যাংকিংয়ের মালয়েশিয়া ঢাকায় শীর্ষ দল হিসেবেই খেলবে। এদিকে নিজ মাঠে ভালো খেলার জন্য কঠোর অনুশীলন করে যাচ্ছে বাংলাদেশ। বিকেএসিপতে দিনে দুই বেলা, আবার কখনও তিন বেলা অনুশীলন করছেন জিমি চয়নরা। তবে দল কবে চূড়ান্ত হবে? দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের আগে, না পরে সেটাও চূড়ান্ত হয়নি। এদিকে আফ্রিকার ভিসা জটিলতায় হকি দলের দক্ষিণ আফ্রিকা সফর পিছিয়ে গেছে। আগামী ৪ থেকে ১২ মার্চ ঢাকায় অনুষ্ঠিতব্য হকি ওয়ার্ল্ড লিগ রাউন্ড-২ এর প্রস্তুতিতে জাতীয় হকি দলের দক্ষিণ আফ্রিকা সফর এক সপ্তাহ পিছিয়েছে। চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহেই জাতীয় হকি দলের দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের পরিকল্পনা ছিল। বাংলাদেশে দক্ষিণ আফ্রিকার কোনও কনসুলেট না থাকায় দলের জার্মান কোচ অলিভার কার্টজ ভারত গেছেন ভিসা সংগ্রহে। তিনি জাতীয় দলের জন্য ভিসা সংগ্রহ করার পর তবে সফরসূচি চূড়ান্ত করবেন। সে ক্ষেত্রে এ মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহের শেষ ছাড়া জাতীয় দলের সফরের কোনও  সম্ভাবনা দেখছেন না হকি ফেডারেশনের সহ-সভাপতি খাজা রহমতউল্লাহ। উল্লেখ্য ৪ মার্চ থেকে শুরু হওয়া হকি ওয়ার্ল্ড লিগের রাউন্ড-২ এ বাংলাদেশ ছাড়াও রয়েছে চীন, ঘানা, ওমান, ফিজি, শ্রীলংকা ও মিসর।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ