বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

২০২৩ সালের মধ্যে পায়রা বন্দরের  কাজ শেষ হবে -নৌ মন্ত্রী

সংসদ রিপোর্টার : ২০২৩ সালের মধ্যে পায়রা বন্দরের অবকাঠামো নির্মাণ শেষ হবে বলে জানিয়েছেন নৌ-পরিবহনমন্ত্রী শাহজাহান খান। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে জাতীয় সংসদে বেগম জেবুন্নেছা আফরোজের (বরিশাল-৫) এক লিখিত প্রশ্নের জবাবে তিনি এ তথ্য জানান।

শাহজাহান খান বলেন, ‘২০১৮-১৯ সালের মধ্যে ১টি কন্টেইনার টার্মিনাল, ১টি বাল্ক টার্মিনালসহ অন্যান্য মূল অবকাঠামো নির্মাণের পর জাহাজ বার্থিং এর মাধ্যমে পণ্য খালাস শুরু হবে। পূর্ণাঙ্গ পায়রা বন্দরের অবকাঠামো ও আনুষঙ্গিক কাজ ২০২৩ সালের মধ্যে সমাপ্ত হবে।’

তিনি জানান, পায়রা বন্দরের মূল অবকাঠামো নির্মাণের কাজ ১৯টি ভাগে ভাগ করা হয়েছে। যার সাতটি ভাগ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করা হয়েছে এবং বাকি ১২টি বাস্তবায়নের কাজ চলমান।

সাংসদ আলী আজমের (ভোলা-২) এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘দেশের নৌ-যোগাযোগ ব্যবস্থা আধুনিকায়নের পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের। পুরনো ডিজাইনের যাত্রীবাহী নৌযানের নকশা অনুমোদন বন্ধ করে ওয়েদার ডেকবিশিষ্ট বড় আকৃতির নৌযান নির্মাণে মালিকদের উৎসাহিত করা, পর্যায়ক্রমে ছোট ছোট লঞ্চ ক্রাপের আওতায় নিয়ে আসা হচ্ছে।’

চালকদের যোগ্যতা উন্নয়নের জন্য নাবিক প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠানগুলোর ছাত্র সংখ্যা বৃদ্ধি ও প্রশিক্ষণের মান উন্নত করা হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘নৌযান সার্ভে, রেজিস্ট্রেশন এবং পরিদর্শন কার্যক্রম ডিজিটাল পদ্ধতি প্রবর্তনের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।’

মন্ত্রী আরও বলেন, ‘একটি প্রকল্প গ্রহণ করার মাধ্যমে সমুদ্র ও উপকূলীয় অঞ্চলে চলাচলকারী জাহাজের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, দুর্যোগ-আপদকালীন সময়ে তথ্য ও সহায়তা প্রদান, ভেসেল ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা উন্নত করার কাজ বাস্তবায়নাধীন।’

তিনি বলেন, ‘দেশের সকল নৌযানকে একটি সমন্বিত ডাটাবেজের অধীনে এনে স্বচ্ছ রেজিস্ট্রেশন ব্যবস্থা গড়ে তোলার জন্য নৌ-পরিবহন অধিদফতর কর্তৃক নৌ শুমারির জন্য ন্যাশনাল শিপস অ্যান্ড মেকানাইজড বোটস ডাটাবেজ ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড ক্যাপাসিটি বিল্ডিং নামের ডাটাবেজ উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ