ঢাকা, সোমবার 20 September 2021, ৫ আশ্বিন ১৪২৮, ১২ সফর ১৪৪৩ হিজরী
Online Edition

দ্বিতীয় ওয়ানডেতে শ্রীলংকাকে ১২১ রানে বিধ্বস্ত করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা

অনলাইন ডেস্ক : ডারবানে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে সফরকারী শ্রীলংকাকে ১২১ রানে বিধ্বস্ত করে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেছে এবি ডি ভিলিয়ার্সের নেতৃত্বাধীন দক্ষিণ আফ্রিকা।

কিংসমিডের অপেক্ষকৃত শুকনো, ধীর গতির পিচে টস হারা দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংসের শুরুটা ভাল না হলেও ফাফ ডু প্লেসিস ও ডেভিড মিলারের সেঞ্চুরিতে স্বাগতিকরা ৬ উইকেটে ৩০৭ রানের লড়াকু স্কোর গড়ে তুলে। ডু প্লেসিস (১০৫) ও মিলার (১১৭*) মিলে পঞ্চম উইকেটে ১৩৬ বলে ১১৭ রানের ম্যাচ জয়ী ইনিংস খেলেছেন। এর আগে ১০৮ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা বেশ চাপে ছিল। জবাবে শ্রীলংকার জন্য দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংসটা তাড়া করা পুরো ম্যাচে সবসময়ই কঠিন ছিল। ব্যাট হাতে পুরোপুরি ব্যর্থ লংকানদের ইনিংস ৩৭.৫ ওভারে ১৮৬ রানেই গুটিয়ে যায়। 

ম্যাচ শেষে ডি ভিলিয়ার্স বলেছেন, ফাফ ও ডেভিডের অসাধারণ ইনিংস ও পার্টনারশীপেই আমরা মূলত এগিয়ে গিয়েছি। 

দূর্দান্ত ব্যাটিংয়ের পরে বোলিং ও ফিল্ডিংয়েও দক্ষিণ আফ্রিকা ছিল দারুন প্রাণবন্ত। যদিও বড় স্কোর তাড়া করতে নেমে শ্রীলংকার শুরুটা বেশ ভালই হয়েছিল। নিরোশান ডিকওয়েলা (২৫) ও উপল থারাঙ্গা (২৬) মিলে প্রথম উইকেটে ৪৬ বলে ৪৫ রান যোগ করেন। কিন্তু দুই ওপেনারই ডু প্লেসিস ও ডি ভিলিয়ার্সের অসাধারণ ক্যাচে সাজঘরের পথ ধরেন। ডি ভিলিয়ার্স বলেন, তারা প্রথম ১০ ওভারে ভাল খেলেছে। কিন্তু আমাদের দলে বেশ কয়েকজন বিশ্বমানের বোলার রয়েছে। সঠিক সময়ে তারা উইকেট তুলে নিয়ে শ্রীলংকাকে সামনে যেতে দেয়নি। 

শ্রীলংকার ইনিংসে সর্বোচ্চ রান সংগ্রহ করেছেন দিনেশ চান্ডিমাল (৩৬)। লংকান অধিনায়ক থারাঙ্গা ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতাকে অবশ্য খাটো করে দেখেননি, তিনি বলেন, অনেকেই ২০ কিংবা ৩০ রানের মধ্যে ছিল। কিন্তু ইনিংস বড় করতে পারেনি। ডু প্লেসিস ও মিলার যে পার্থক্য গড়ে দিয়েছিল তার থেকেই মূলত আমরা বেরিয়ে আসতে পারিনি। ইনিংসের শুরুতে আমরা দ্রুত চারটি উইকেট তুলে নেই। কিন্তু ফাফ ও মিলার শক্ত পার্টনারশীপ গড়ে তুলে। আমাদের একজন ব্যাটসম্যান যদি বড় একটি ইনিংস খেলতে পারতো তবে ম্যাচের ফলাফল ভিন্ন হতে পারতো। 

ডি ভিলিয়ার্স বরেছেন টি২০ সিরিজে পরাজয়ের পরে দক্ষিণ আফ্রিকার খেলোয়াড়রা নিজেদের সব সুযোগ কাজে লাগানোর জন্য কঠোর পরিশ্রম করেছে, তারই ফল আমরা পাচ্ছি। 

ডু প্লেসিস ১২০ বলে ৭টি বাউন্ডারি ও ১টি ওভার বাউন্ডারির সহায়তায় ১০৫ রান সংগ্রহ করেছেন। অন্যদিকে মিলার কিছুটা আক্রমনাত্মক খেলে ৯৮ বলে ৬টি ওভার বাউন্ডারি ও ৩টি বাউন্ডারির সহায়তায় ১১৭ রানে অপরাজিত ছিলেন। ষষ্ঠ উইকেটে ক্রিস মরিসকে সাথে নিয়ে ৪৩ বলে ৬০ রান যোগ করেছেন মিলার। 

সংক্ষিপ্ত স্কোর : দক্ষিণ আফ্রিকা ৬ উইকেটে ৩০৭ (ডু প্লেসিস ১০৫, মিলার ১১৭*; লাকমাল ২-৫৪)

শ্রীলংকা অল আউট ১৮৬, ৩৭.৫ ওভার (চান্ডিমাল ৩৬, ডিকওয়েলা ২৫, থারাঙ্গা ২৬; তাহির ২-২৬, ডুমিনি ২-৩০)

ফল : দক্ষিণ আফ্রিকা ১২১ রানে জয়ী

ম্যান অব দ্য ম্যাচ : ফাফ ডু প্লেসিস (দক্ষিণ আফ্রিকা)

সিরিজ : পাঁচ ম্যাচের সিরিজে দক্ষিণ আফ্রিকা ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে। সূত্র: বাসস। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ