সোমবার ২৯ নবেম্বর ২০২১
Online Edition

ঘুরে দাঁড়াতে প্রত্যয়ী সিদ্দিকুর-সোহেল-জামালরা

স্পোর্টস রিপোর্টার : বিদেশীদের সঙ্গে সিদ্দিকুর-সোহেলরা দারুণ লড়বেন, বাংলাদেশের গলফপ্রেমীদের এমন প্রত্যাশার ছিটেফোঁটাও প্রথম রাউন্ডে মেলেনি। সিদ্দিকুর, সোহেল, জামালরাও হতাশ চেনা কোর্সে নিজেদের শুরুটা ভালো না হওয়ায়। তবে বসুন্ধরা বাংলাদেশ ওপেনের পরের তিন রাউন্ডে ঘুরে দাঁড়াতে প্রত্যয়ী তারা। কুর্মিটোলা গলফ কোর্সে বুধবার সিদ্দিকুরের শুরুটা ছিল মোটামুটি। তবে তিন হোলে পারের সমান শট খেলার পর চতুর্থ হোলে গিয়ে বাধল বিপত্তি। বল গাছে লেগে বাউন্ডারির বাইরে। ওই হোলেই পারের চেয়ে তিন শট বেশি খেলে পিছিয়ে পড়লেন সিদ্দিকুর। দিনের বাকিটা সময় শুরুর ওই ঘাটতি পূরণের চেষ্টা করেছেন সিদ্দিকুর। সফলও হয়েছেন। পরে তিন বার্ডি করে পারের সমান শট খেলে ১৬ জনের সঙ্গে যৌথভাবে ২৯তম স্থানে আছেন এশিয়ান ট্যুরের দুটি শিরোপা জেতা এই গলফার। চতুর্থ হোলের ওই বিপর্যয় ভুলে পরের রাউন্ডগুলোয় ভালো করতে আশাবাদী সিদ্দিকুর। “পারের চেয়ে সাত শট করে কম খেলে প্রথম রাউন্ড শেষে শীর্ষে থাকা দুই প্রতিযোগীকে ধরা অসম্ভব নয় বলেও মনে করেন তিনি। গত আসরে দেশি গলফারদের মধ্যে সবচেয়ে ভালো করা শাখাওয়াত সোহেল সব মিলিয়ে হয়েছিলেন ষষ্ঠ। এবার প্রথম রাউন্ডেই তিনটি বার্ডি, ছয়টি বোগি ও একটি ডাবল বোগি করেছেন। পারের চেয়ে পাঁচ শট বেশি খেলে ছয় জনের সঙ্গে যৌথভাবে ১০৩তম স্থানে থাকা সোহেলও আশাবাদী ঘুরে দাঁড়াতে। প্রথম দিনে দেশি গলফারদের মধ্যে মোহাম্মদ নাজিম, রবিন মিয়া ও জামালই যা একটু আলো ছড়িয়েছেন। ১০ জনকে সঙ্গে নিয়ে এই তিন গলফার যৌথভাবে রয়েছেন পঞ্চদশ স্থানে। তিন লাখ ডলার প্রাইজমানির এশিয়ান ট্যুরের এই আসরের প্রথম রাউন্ডে সিদ্দিকুর ছাড়াও দেশি গলফারদের মধ্যে পারের সমান শট খেলেছেন মোহাম্মদ মুয়াজ, মোহাম্মদ সিয়াম, বাদল হোসেন ও দুলাল হোসেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ