শুক্রবার ২০ মে ২০২২
Online Edition

চট্টগ্রামের ৯ আইনজীবীকে বার কাউন্সিলের শোকজ

স্টাফ রিপোর্টার : চট্টগ্রামের ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের এজলাসে ভাংচুরের সঙ্গে জড়িত নয় আইনজীবীকে শোকজ করেছে বাংলাদেশ বার কাউন্সিল। গতকাল বুধবার বার কাউন্সিলের কর্মকর্তা আফজালুর রহমান খান স্বাক্ষরিত নোটিশে ৯ আইনজীবীকে আগামী ৭ দিনের মধ্যে কারণ দর্শাতে বলা হয়েছে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে যথাযথ কারণ দর্শানো না হলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে এতে উল্লেখ রয়েছে।
নোটিশ পাওয়া আইনজীবিরা হচ্ছেন-জান্নাতুল ফেরদৌস মুক্তা, চন্দন বিশ্বাস, শাকিল আহমেদ, আবদুল আওয়াল, এআই খান, প্রদীপ দাস, শিবলী, মাসুদ পারভেজ ও মুক্তাদির হোসেন।
এরআগে গত ২৩ জানুয়ারি এজলাস কক্ষ ভাংচুরের ঘটনায় দায়ী আইনজীবীদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিতে বাংলাদেশ বার কাউন্সিলকে চিঠি দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল বাসেত মজুমদার বরাবর চিঠিটি পাঠান সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের রেজিস্ট্রার আবু সৈয়দ দিলজার হোসেন। দায়ীদের বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে, তা সুপ্রিম কোর্টকে জানাতে বলা হয় চিঠিতে।
গত ১৮ জানুয়ারি মানবপাচার আইনের এক মামলায় গ্রেফতার আইনজীবী ফজলুল কাদের ও তার স্ত্রী ইয়াছমিন আক্তারের জামিন না দেয়ায় চট্টগ্রামের ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের এজলাস কক্ষ ভাঙচুর করেন বেশ কয়েকজন আইনজীবী। এতে বাধা দিলে পুলিশের সঙ্গেও হাতাহাতি-মারামারি হয়। ফলে বিচারক বাধ্য হয়ে ওই আসামির জামিন দেন। এরপর বিষয়টি নিয়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। বিষয়টিকে আমলে নিয়ে এ ঘটনার কারণ জানতে এই শোকজ নোটিশ পাঠায় বাংলাদেশ বার কাউন্সিল।
এ ঘটনার পরদিন চট্টগ্রামে নবনির্মত আদালত ভবন উদ্বোধন করার সময় প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা প্রধান অতিথির বক্তব্যে হতাশা প্রকাশ করে বলেন, আদালত ভাঙচুরের ঘটনায় আমার হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হচ্ছে। অপরাধী যে হোক তার জন্য আইনজীবীদের এমন আচরণ হতাশাজনক। এ সময় ভাঙচুরের ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বার কাউন্সিলের প্রতি নির্দেশ দেন তিনি। ঘটনার পরপরই তদন্ত করতে সুপ্রিম কোর্ট তদন্ত কমিটিও গঠন করে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ