শুক্রবার ২০ মে ২০২২
Online Edition

ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস ঢাকায়

স্টাফ রিপোর্টার : ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস তিনদিনের সরকারি সফরে ঢাকা পৌঁছছেন। গতকাল বুধবার বিকেলে ঢাকা পৌঁছলে তাঁকে লালগালিচা সংবর্ধনা দেয়া হয়। একটি বিশেষ ফ্লাইটে মাহমুদ আব্বাস বিকেল ৫টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছলে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ তাঁকে স্বাগত জানান। এ সময় একুশবার তোপধ্বনি দেয়া হয়।
বাসস জানায়, বিমানবন্দরে রাষ্ট্রপতির নাতি-নাতনী জিম ও নামিরা ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্টকে ফুলের তোড়া উপহার দেয়। বাংলাদেশ সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনীর একটি চৌকস দল মাহমুদ আব্বাস ও তাঁর সফরসঙ্গীদের গার্ড অব অনার প্রদান করে।
এ সময় বিমানবন্দরে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন অর্থমন্ত্রী এ এম এ মুহিত, শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী এবং মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী এ কে এম মোজাম্মেল হক।
ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্টের সফরসঙ্গীদের মধ্যে রয়েছেনÑ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. রিয়াদ এন এ মালিকী, প্রধান বিচারপতি মাহমুদ এস এ আলহাব্বাশ, প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র নাবিল আবু রুদাইনাহ, কূটনৈতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. মাজদি এ এম খালিদি, প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা মেজর জেনারেল শেহাদা ইসমাইল, চিফ অব প্রটোকল রাষ্ট্রদূত হুসেইন হুসেইন, চিকিৎসক ডা. নাইম সাদকী হুসেইন এবং কয়েকজন বেসামরিক ও সামরিক কর্মকর্তা।
ফিলিস্তিন প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের এটি প্রথম বাংলাদেশ সফর। এর আগে গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে জর্ডান থেকে জাপান যাওয়ার পথে ঢাকায় সংক্ষিপ্ত যাত্রা বিরতি করেন তিনি। তার সফরকে স্বাগত জানিয়ে রাজধানী বিভিন্ন এলাকায় বাংলাদেশে ও ফিলিস্তিনের পতাকা ও দুদেশের প্রেসিডেন্টের ছবি টাঙ্গানো হয়েছে।
বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের আমন্ত্রণে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস এ সফরে এসেছেন। তাঁর সফরকালে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পর্যায়ে যৌথ কমিশন গঠনে দু’দেশের মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হতে পারে।
বিমানবন্দরের আনুষ্ঠানিকতা শেষে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্টকে হোটেল লা মেরেডিয়ানে নিয়ে যাওয়া হয়। সফরকালে তিনি সেখানে অবস্থান করবেন।
আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধ পরিদর্শন এবং ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা যুদ্ধের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে সেখানে পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন। তিনি বঙ্গবন্ধু জাদুঘরও পরিদর্শন করবেন। বিকেলে তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে বৈঠকে মিলিত হবেন।  সন্ধ্যায় মাহমুদ আব্বাস বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হবেন। বৈঠক শেষে বঙ্গভবনের দরবার হলে ভোজসভায় অংশ নেবেন এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করবেন।
তিনদিনের সফর শেষে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট শুক্রবার ঢাকা ত্যাগ করবেন।
বাংলাদেশে নিযুক্ত ফিলিস্তিনি রাষ্ট্রদূত ইউসেফ এস ওয়াই রামাদান সম্প্রতি বিবিসি বাংলাকে বলেছে, বাংলাদেশ ফিলিস্তিন রাষ্ট্রকে যে ধরনের সমর্থন ও সহায়তা দিয়েছে তাতে তারা কৃতজ্ঞ। তিনি জানান,  বাংলাদেশ ও ফিলিস্তিনি রাষ্ট্রের মধ্যে সম্পর্ককে আরো কি ভাবে বিস্তৃত করা যায় সেটিই হবে প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের সফরের মূল উদ্দেশ্য।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ