রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

রাজধানীতে ট্রেনে কাটা পড়ে ও বাসচাপায় নিহত ৩

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর বনানী ও খিলক্ষেত রেল স্টেশন এলাকায় ট্রেনে কাটা পড়ে এক নারীসহ দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। নিহত একজনের নাম মিরনা আক্তার (৩০)। তিনি দিনমজুরের কাজ করতেন বলে জানিয়েছে পুলিশ। অন্যজনের নাম-পরিচয় জানা যায়নি। অন্যদিকে গণভবনের গেটের সামনে যাত্রীবাহী বাসের চাপায় হাজী আব্দুল সাত্তার (৬০) নামে এক ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়েছে। 

বিমানবন্দর রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আলী আকবর বলেন, গতকাল রোববার সকাল ৯টার দিকে খিলক্ষেত রেলক্রসিংয় এলাকায় নেত্রকোণাগামী মহুয়া এক্সপ্রেসের ধাক্কায় মিরনা আহত হন। স্থানীয়রা কুর্মিটোলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মিরনার স্বামীর নাম খায়রুল মিয়া, দেশের বাড়ি নেত্রকোণায়। পরিবারের সদস্যরা এসে তার লাশ নিয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন আকবর। 

এদিকে সকাল ৮টার দিকে বনানীতে ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাতপরিচয় এক যুবকের মৃত্যু হয় বলে আকবর জানান। তিনি বলেন, চট্টগ্রামগামী মহানগর প্রভাতীতে কাটা পড়ে ওই যুবকের মৃত্যু হয়। তার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এছাড়া রাজধানীর শেরেবাংলা নগর থানাধীন গণভবনের ২নং গেটের সামনে যাত্রীবাহী বাসের চাপায় হাজী আব্দুল সাত্তার নামে এক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। শনিবার রাতে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত সাত্তার কুমিল্লা চাঁদপুর জেলার মতলব উপজেলার বাসিন্দা। নিহতের মেয়ে জামাই আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, বর্তমানে তিনি টিকাটুলির কে এম দাস লেনের একটি বাসায় পরিবার নিয়ে ভাড়া থাকতেন। নবাবপুর এলাকায় মেশিনারিজ এর ব্যবসা করতেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রাতে ব্যবসায়িক কাজে মানিকগঞ্জ যান আব্দুল সাত্তার। সেখান থেকে মোটরসাইকেল যোগে বাড়ি ফেরার সময় গণভবনের সামনে এলে যাত্রীবাহী ৭নং বাস তাকে চাপা দেয়। এ সময় গুরুতর আহত হন তিনি। আহতাবস্থায় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। শেরেবাংলা নগর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) অনন্ত কুমার রায় জানান, বাসটি আটক করা সম্ভব হলেও চালক পালিয়ে যায়। লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ