বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

শরণার্থী প্রবেশ নিষিদ্ধে ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশ!

২৫ জানুয়ারি, রয়টার্স/ দ্য হিল/ডেইলি স্টার ইউজে : মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দেশটিতে শরণার্থী প্রবেশ নিষিদ্ধে নির্বাহী আদেশ জারি করতে যাচ্ছেন। এক টুইট বার্তায় ট্রাম্প সেই ইঙ্গিত দিয়েছেন। সূত্রের বরাত দিয়ে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, গতকাল বুধবার যুক্তরাষ্ট্রে শরণার্থী প্রবেশ সাময়িকভাবে নিষিদ্ধ করা এবং গৃহযুদ্ধে বিপর্যস্ত সিরিয়াসহ মধ্যপ্রাচ্য ও আফ্রিকার সাতটি দেশের নাগরিকদের মার্কিন ভিসা না দেওয়ার নির্বাহী আদেশ জারি করার কথা সেই সঙ্গে মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণেও একটি পৃথক নির্বাহী আদেশ জারি করতে  পারেন ট্রাম্প। 
গত মঙ্গলবার এক টুইটার বার্তায় ট্রাম্প জানান, গতকাল বুধবারই তিনি ‘জাতীয় নিরাপত্তা’ জোরদার করতে ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছেন। টুইটারে তিনি বলেন, বুধবার জাতীয় নিরাপত্তা পরিকল্পনার জন্য এক বিশেষ দিন। আরও অনেক কাজের মধ্য দিয়ে আমরা সেই দেওয়াল নির্মাণ করব!’ 
ধারণা করা হচ্ছে, ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশে আগামী কয়েক মাসের জন্য ধর্মীয় সংখ্যালঘু নিপীড়নের ঘটনা ছাড়া শরণার্থী প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হবে। সেই সঙ্গে সিরিয়া, ইরান, লিবিয়া, সোমালিয়া, সুদান এবং ইয়েমেনের নাগরিকদের ভিসা প্রদানও বন্ধ করা হবে।
ট্রাম্প শিবিরের ঘনিষ্ঠদের বরাত দিয়ে রয়টার্স জানিয়েছে, মেক্সিকো থেকে ‘অবৈধ অনুপ্রবেশকারীদের’ যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ নিয়ন্ত্রণে দেয়াল নির্মাণে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য একটি পৃথক নির্বাহী আদেশ জারি হতে পারে। ‘সীমান্ত নিরাপত্তা’ জোরদার করার পদক্ষেপ হিসেবে ওই নির্বাহী আদেশ জারি করা হবে বলে ওই সূত্র রয়টার্সকে জানিয়েছে। উল্লেখ্য, নির্বাচনী প্রতিশ্রুতির অংশ হিসেবেই ট্রাম্প ওই নির্বাহী আদেশ জারি করতে যাচ্ছেন। নির্বাচনি প্রতিশ্রুতিতে ট্রাম্প মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণ করা এবং মুসলিম ও শরণার্থীদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশাধিকার সাময়িক সময়ের জন্য নিষিদ্ধ করার কথা বলেছিলেন। আর এই বিষয়টি ছিল ট্রাম্পের নির্বাচন জয়ের অন্যতম ক্ষেত্র। তবে ট্রাম্পের এই পদক্ষেপকে সবাই ভালোভাবে নেননি। ওয়াশিংটন ইউনিভার্সিটি স্কুল অব ল’-এর প্রফেসর স্টেফেন লিগোমস্কি বলেন, ‘আইনত প্রেসিডেন্ট হিসেবে ট্রাম্পের শরণার্থী প্রবেশ নিয়ন্ত্রণ এবং ভিসা বন্ধের অধিকার রয়েছে। তবে এটি শরণার্থীদের মানবাধিকার রক্ষার ক্ষেত্রে এক ভয়াবহ ধারণা।’ লিগোমস্কি ওবামা প্রশাসনের সিটিজেনশিপ ও ইমিগ্রেশন সার্ভিসেস-এর প্রধান উপদেষ্টা ছিলেন।
এই ঘোষণা নতুন নয়। নির্বাচনী প্রচারণার সময় ট্রাম্প এই ঘোষণা দিয়েছিলেন। ওয়াশিংটন ডিসির হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ডিপার্টমেন্ট থেকে মুসলিম অভিবাসী প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা সংক্রান্ত নির্বাহী আদেশটি দেবেন ট্রাম্প।
আগস্টের নির্বাচনী প্রচারণায় ট্রাম্প চরমপন্থি’ মসুলিমদের প্রবেশে নিষেধাহজ্ঞা জারির ঘোষণা দেন। সেই প্রতিশ্রুতিরই বাস্তবায়ন করতে যাচ্ছেন ট্রাম্প।
ট্রাম্পের এই সিদ্ধান্তকে আমেরিকার মূল্যবোধ বিরোধী বলে মন্তব্য করেছেন অনেকে। একই দেশে সমকামীদের সমর্থন করা আর মুমলিমদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া কোনো নিয়মের মধ্যে পরে না বলে ট্রাম্পের অভিবাসীদের নিয়ে  নিতে যাওয়া নির্বাহী আদেশের সমালোচনা উঠে বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ