শুক্রবার ২১ জানুয়ারি ২০২২
Online Edition

ব্যর্থতার জন্য দেশবাসীর কাছে আমি ক্ষমা প্রার্থী -তামিম

স্পোর্টস রিপোর্টার : নিউজিল্যান্ড সফরে একের পর এক সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। ওয়ানডে আর টি-টোয়েন্টি সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার পর এবার একই পরিণতি হয়েছে টেস্ট সিরিজেও। তাই টেস্ট সিরিজে ব্যর্থতার পর দেশবাসীর কাছে ব্যর্থতার জন্য ক্ষমা চেয়েছেন বাংলাদেশ দলের ভারপ্রাপ্ত টেস্ট অধিনায়ক তামিম ইকবাল। গতকাল ম্যাচ শেষে তামিম বলেন, ‘একজন ক্যাপ্টেন হিসাবে দলকে যেভাবে নেতৃত্ব দেয়ার দরকার ছিল, আমি তা পারিনি। দ্বিতীয় ইনিংসে আমি যেভাবে আউট হয়েছি এটা মোটেই ক্যাপ্টেন সুলভ ছিল না। এরমাধ্যমেই দল পরাজয়ের বার্তা পেয়ে যায়। তাই পরাজয়ের পুরো দায়ভার আমার। এরজন্যে আমি ক্ষমা প্রার্থী।’ শেষ টেস্টে এমন পরাজয়ের পর কোন অজুহাত দাঁড় করাননি তামি ইকবাল। তামিম বলেন, ‘এটা খারাপ দিন মোটেই না। গোটা সফরে আমরা যা করেছি এটিও তার আরেকটা পুনরাবৃত্তি। আমাদের আবার একটি সুন্দর মুহূর্ত ছিল যেটার শেষটা আমরা ভালো করতে পারিনি। সব সময় আমরা একটি ভালো পরিস্থিতিতে আসি। সেখান থেকে হেরে যাই। আমি ক্যাপ্টেন।
আমার ব্যাটিং দিয়ে টিমকে আরও ভালোভাবে নেতৃত্ব দিতে পারতাম। দ্বিতীয় ইনিংসে আমি যেভাবে আউট হয়েছি এর মাধ্যমে নেতা হিসাবে দলকে আমি কোনও ভালো বার্তা দিতে পারিনি। আরও কিছু আউট ছিল যেগুলো আমরা আরও ভালোভাবে সামাল দিতে পারতাম। সিনিয়র ক্রিকেটাররা আরও ভালো করতে পারতেন। সব মিলিয়ে আমরা আরেকটি ভালো সুযোগ নষ্ট করেছি।’ সিনিয়র ক্রিকেটারদের ব্যর্থতা নিয়ে তামিম বলেন, ‘একটা ফলাফলে সিনিয়র ক্রিকেটারদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা অবশ্যই থাকে। আমার কথা আমি বলি। নেতা হিসাবে আমি যদি কোনও অপরাধ করি তা একটি ভালো বার্তা দেয়। এরসঙ্গে আমি এটাও বিশ্বাস করি আমরা ক্রিকেট এগারজনে খেলি। সিনিয়র ক্রিকেটারদের যত দায়িত্ব জুনিয়রদেরও সমান দায়িত্ব। সিনিয়র হিসেবে আমাদের কাছে সবাই বেশি আশা করে। আমরা সিনিয়ররা যদি ভালো দায়িত্ব পালন করতাম, জুনিয়ররা তা দেখে আরও সাহস পেতো। আমরা আমাদের কাজগুলো ঠিকমতো করতে পারিনি। আমার শট বা অন্যরা যেভাবে আউট হয়েছেন, আসলে আমরা নিজেরাই নিজেদের দোষে আউট হয়েছি। এই ফলাফল আমরা এগারজন মিলেই পরিবর্তন করতে পারতাম। কিন্তু পারিনি। যদি ভুল কম করতাম তাহলে অন্য ফল হতো।’ প্রতি ম্যাচেই ক্যাচ মিস করেছে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। এসব ক্যাচ মিসকে কেন্দ্র করে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ বাংলাদেশের হাত থেকে ফসকে গেছে। বিষয়টি তামিম সমস্যাটি স্বীকার করে বলেন, ‘ক্যাচ মিস আমাদের বড় এক রোগের নাম। টিম ম্যানেজমেন্ট আশা করি এ ব্যাপারে একজন স্পেশালিস্ট খুঁজে বের করে আমাদের এই ক্যাচ মিসের রোগটা সারানোর ব্যবস্থা করবেন।’ দেশের বাইরে খারাপ পারফরমেন্স করা নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তামিম বলেন, ‘আমরা যখন দেশে খেলি এ বিষয়গুলোকে আমরা নিজের মতো সামাল দিতে পারি। কিন্তু যখন নিউজিল্যান্ডের মতো দেশে খেলতে আসি ওরা হয়তো পাঁচটা ক্যাচ মিস করতে পারে কিন্তু আমরা তা মিস করতে পারি না। কারণ আমাদের একজন বোলারকে এমন একটি সুযোগ সৃষ্টি করতে অনেক কষ্ট করতে হয়।’ তবে পেসারদের প্রশংসা করে তামিম বলেন, ‘আমাদের পেস বোলাররা গোটা সিরিজে অসাধারণ বল করেছেন। ভালো বল করে তারা এসব ক্যাচের সুযোগ সৃষ্টি করেছেন। ভালো ব্যাটিং একটি দলের অবশ্যই বিজয়ের একটি স্তম্ভ। কিন্তু ফিল্ডিং বিশেষ করে যে আঠারোটার মতো ক্যাচ আমরা মিস করেছি এর সত্তুরভাগও যদি আমরা ধরতে পারতাম তাহলে গল্পটা অন্য রকম হতো। আমি অন্তত মনে করি কেউ ইচ্ছা করে ক্যাচ মিস করে না। আরেকটা বিষয় হলো স্লিপে ক্যাচ মিস করাটা নিয়ে আমরা ভবিষ্যতে কাজ করতে পারি।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ