মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২
Online Edition

সাভারে নৈশ কোচে দুর্ধর্ষ ডাকাতি ৩ লক্ষ টাকার মালামাল লুট নারীসহ আহত ১৫

সাভার সংবাদদাতা : সাভারে একটি নৈশ কোচে দুর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। ডাকাতদের হামলায় এ সময় ওই নৈশ কোচের দুই নারীসহ অন্তত ১৫ জন যাত্রী গুরুতর আহত হয়েছে। গতকাল বুধবার ভোর রাতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের সাভারের শিমুলতলা ডগরমোড়া এলাকায় সায়েম স্পেশাল রজনীগন্ধা নামের ওই নৈশ কোচে এ ডাকাতির ঘটনা ঘটে।
ডাকাতি হওয়া ওই নৈশ কোচের চালক নবিরুল জানান, মঙ্গলবার রাতে তারা সায়েম স্পেশাল রজনীগন্ধা  (রাজ মেট্রো ১১.০১.০২ ) নামের ওই নৈশ কোচে রাজশাহী চাঁপাই থেকে যাত্রী নিয়ে ঢাকার গাবতলী এলাকায় আসেন। পরে বাস যাত্রীদের বিভিন্ন স্থানে নামিয়ে দিয়ে তারা নৈশ কোচটি ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের সাভারের হেমায়েতপুর এলাকায় একটি সিএনজি পাম্পে রাখে। পরে রাত ১১টার দিকে ১৫ সদস্যের একদল ডাকাত ওই বাসে উঠে চালক নবিরুল (৪৮), সুপারভাইজার কামাল ও সহকারী ফরিদকে বাসের সিটের সঙ্গে হাত-পা ও মুখ বেধে রাখে। পরে ডাকাতরা ওই নৈশ কোচটি চালিয়ে গাবতলী দিয়ে বিভিন্ন বাসস্ট্যান্ডে যাত্রী নিয়ে বিমানবন্দর আশুলিয়া হয়ে আসার পথে বাসের অন্তত দুই নারীসহ ১৫ জনকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে হাত-পা ও মুখ বেধে নগদ টাকা মোবাইল ফোন ও স্বর্ণালঙ্কার লুটপাট করে। গতকাল বুধবার ভোর রাতে যে কোন সময় ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের শিমুলতলা ডগরমোড়া সাভার সেন্ট্রাল চক্ষু হাসপাতালের সামনে বাসটি রেখে পালিয়ে যায়। পরে বাসের যাত্রীদের গোঙ্গানী শুনে স্থানীয়রা প্রায় ১৫ জন বাসযাত্রীদের হাত-পা ও মুখ বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করে সাভারের সুপার ক্লিনিকে ভর্তি করে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়। বাসে ডাকাতি হওয়ার খবর পেয়ে সাভার মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। স্থানীয়দের দাবি ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে প্রায় বিভিন্ন বাসে ডাকাতি হলে পুলিশ কোনো ব্যবস্থা নেয় না ডাকাতদের বিরুদ্ধে। তাই প্রতিনিয়ত বাসে ডাকাতি হচ্ছে।
এ বিষয়ে সাভার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম কামরুজ্জামান সাংবাদিকদের সাথে কথা বলতে রাজি হয়নি।
এ ঘটনায় সাভার মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ