মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২
Online Edition

শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান বাংলাদেশের ১৬ কোটি মানুষের হৃদয়ে চিরজাগ্রত থাকবে -ডা. শাহাদাত হোসেন

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ও কেন্দ্রীয় বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান (বীর উত্তম) শুধু স্বাধীনতার ঘোষকই ছিলেন না তিনি ১নং ও ১১নং সেক্টর গঠন করে মুক্তিযোদ্ধাদের সু-সংগঠিত করে রণাঙ্গণে যুদ্ধে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। শহীদ জিয়া বাংলাদেশের মানুষের অকৃত্রিম বন্ধু ছিলেন। শহীদ জিয়া দেশ ও জাতির অর্থনৈতিক উন্নয়নে দেশের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে ছুটে গিয়েছিলেন। শহীদ জিয়া দেশের অর্থনৈতিক মুক্তির জন্য খালকাটা কর্মসূচিসহ বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়নের মাধ্যমে দেশকে সমৃদ্ধিশালী বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন দেখছিলেন। শুধু তাই নয় শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান সার্ক প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বন্ধু প্রতিম ও অর্থনৈতিকভাবে শক্তিশালী করার উদ্যোগও নিয়েছিলেন।
ডা. শাহাদাত আরও বলেন, শহীদ জিয়াউর প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান এদেশে বহুদলীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন। সংবাদ পত্রের স্বাধীনতা ও বাংলাদেশের রাজনৈতিক দলগুলোকে রাজনীতি করার অধিকার দিয়ে বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা হিসেবে প্রতিষ্ঠিতা পেয়েছিলেন শহীদ জিয়া। শহীদ জিয়ার স্মৃতি বিজড়িত “জিয়া যাদুঘর” সংস্কার না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করে ডা. শাহাদাত আরও বলেন, শহীদ জিয়া প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান একজন স্বাধীনতার ঘোষক, বীর উত্তম খেতাবে ভূষিত, সার্কের প্রতিষ্ঠাতা শহীদ জিয়ার সেই স্মৃতি বিজড়িত “জিয়া যাদুঘর” আজ অযত্নে ও অবহেলায়। তিনি অবিলম্বে সরকারের প্রতি জিয়া যাদুঘর সংস্কারের জোর দাবি জানান।
তিনি অদ্য ১৮ জানুয়ারি, বিকালে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের উদ্যোগে জিয়া জাদুঘর পরিদর্শন শেষে উপরোক্ত বক্তব্য রাখেন। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ইসলাম, নগর ছাত্রদলের সভাপতি গাজী মোঃ সিরাজ উল্লাহ, নগর ছাত্রদলের সহ-সভাপতি জসিম উদ্দিন চৌধুরী, জিয়াউর রহমান, জিয়া, বাকলিয়া থানা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাকিম মাহমুদ, আকবর শাহ্ থানা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক নিবলু, চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রদল নেতা সালাহ উদ্দিন শাহেদ, ছাত্রদল নেতা মাহমুদুর রহমান মোহন, মোছাদ্দেক অভি, নজরুল ইসলাম, জি এম সালাহ উদ্দিন আসাদ, সাব্বির মাহমুদ, মোঃ সাকিল, তারেকুল ইসলাম, সারদুল কাদের, মোহাম্মদ ইরফান রিদুওয়ান প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ