মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২
Online Edition

লক্ষ্মীপুরে ছাত্রলীগের সভাপতি সম্পাদকসহ ১০ নেতার কারাদণ্ড

রায়পুর (লক্ষ্মীপুর) সংবাদদাতা : হামলা ও পিটিয়ে আহত করার মামলায় আদালত লক্ষ্মীপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি চৌধুরী মাহামুদুন নবী সোহেল ও সাধারণ সম্পাদক রাকিব হোসেন লোটাসসহ ১০ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দিয়েছেন। গতকাল বুধবার দুপুরে লক্ষ্মীপুর চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মোহাম্মদ হালিম উল্যা চৌধুরী এই রায় প্রদান করেন।
দীর্ঘ পর্যালোচনা শেষে গতকাল বুধবার আদালত ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি চৌধুরী মাহামুদুন নবী সোহেল, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা তাফাজ্জল হোসেন মানিক, মো: রুপম ও রকি কে ১ মাস, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাকিব হোসেন লোটাস, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা এতেহশাম হায়দার বাপ্পি, পালসার বাপ্পি কে ৫ বছর সশ্রম কারাদণ্ড ও প্রত্যেককে ৫ হাজার টাক জরিমানা  ও মো: সজিব, মো: জুয়েল, মিরাজ কে ১ বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করে। 
পরে একই আদালত আপিল করবে শর্তে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মাহামুদুন নবী সোহেল, মানিক, রুপম, রকির জামিন মঞ্জুর করে। এ ছাড়া অপরাধ প্রমাণীত না হওয়ায় ইমন ও মাসুদ কে খালাস প্রদান করে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রায় কে কেন্দ্র করে সকাল থেকেই আদালত এলাকায় বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়ন করা হয়। সকাল থেকেই ছাত্রলীগ কর্মীরা আদালত এলাকায় ভিড় জমাতে শুরু করে। পরে ছাত্রলীগের সভাপতির নেতৃত্বে ছাত্রলীগ কর্মীরা আদালত এলাকায় একটি মিছিল বের করে।
এ ব্যাপারে লক্ষ্মীপুর জর্জ কোর্টের পিপি এ্যাড; জসিম উদ্দিন সাংবাদিকদের বলেন, হামলা ও মারধরের ঘটনায় জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি/সাধারণ সম্পাদকসহ ১০ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড প্রদান করে। একই আদালত সভাপতিসহ ৪ জনের জামিন মঞ্জুর করে ৬ জনকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়।
পলাতক ৭ আসামী গ্রেফতার
লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে নারী ও শিশু নির্যাতন মামলায় দুই বছরের প্রাপ্তসহ বিভিন্ন মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত সাত পলাতক আসামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন স্থান থেকে গ্রেফতার করে তাদেরকে বুধবার দুপুরে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
গ্রেফতারকৃত আসামীরা হলেন সাজাপ্রাপ্ত আসামী কেরোয়া গ্রামের আব্দুর রবের ছেলে আমির হোসেন, চর আবাবিল গ্রামের মৃত নূর মিয়া বেপারীর ছেলে মোঃ শাহাজাহান, চরগাছিয়া গ্রামের আলী আশ্রাফ সিপাহীর ছেলে সফি সিপাহী, চর ইন্দিুরিয়া গ্রামের ওসমান ফকিরের ছেলে মোঃ হাছান, সিরাজুল চৈয়ালের ছেলে দিদার, চরবংশী গ্রামের মোতালেবের ছেলে সৌরভ খান ও সদর উপজেলার চর রমনীমোহন গ্রামের হারুন বেপারীর ছেলে সাইদুল ইসলাম।
রায়পুর থানার ওসি লোকমান হোসেন বলেন, গ্রেফতাকৃতদেরকে বুধবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এই মামলার অন্য আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ