বৃহস্পতিবার ০২ ডিসেম্বর ২০২১
Online Edition

পঞ্চগড়ে আদালতের আদেশ অমান্য করে জমি দখলের চেষ্টা

আটোয়ারী, (পঞ্চগড়) সংবাদাতা : পঞ্চগড়ের আটোয়ারিতে আদালতের আদেশ অমান্য করে জমি দখলের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। জানা গেছে, বলরামপুর মৌজার এস.এ ০৪ খতিয়ানের ১৮০২ দাগে ইদ্রিস আলী ৩০ জুন ১৯৮৮ ইং ৪৩৩১ নম্বর দলিল মূলে ১.০০ একর জমির ক্রয়সূত্রে মালিক হয়ে শান্তিপূর্ণভাবে ভোগ দখল করে আসছিল। সেটেলমেন্ট কর্মকর্তা ১৪/০৩/২০১০ ইং তারিখের স্বাক্ষরিত কপিতে দেখা যায় ইদ্রিস আলী নামেই মাটপর্চা আছে। যার আর,এস খতিয়ান ৩৯৯ ও ভিপি ২৬২। ইদ্রিস আলীর মৃত্যুর পরে তার ছেলে মো. সালাউদ্দীন গং সংশ্লিষ্ট ১৮০২ দাগের খারিজ করে নেয়। সহকারী কমিশনার ভূমি, আটোয়ারী, পঞ্চগড় এ ২৪/১২/২০১৬ ইং তারিখে উক্ত জমি খারিজ করে দেন। খাজনা-দাখিলা এবং দখল সবই সালাউদ্দীন গং এর নামে বলবৎ আছে। এর পরেও বিবাদী নুর ইসলাম গংদের জব্বর দখলের মানসিকতা লক্ষ্য করলে সালাউদ্দীন বাদী হয়ে বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ২২/১২/২০১৬ ইং তারিখে ১৪৪/১৪৫ ধারা মতে মামলা করেন। আদালত স্থিতিশীলতা বজায় রাখার নির্দেশ দেন। আদালতের আদেশ অমান্য করে নুর ইসলাম গং ঘরবাড়ি তুলে জমি দখলের চেষ্টা করছে বলে মামলার বাদী মো. সালাউদ্দীন জানান। বিবাদী নুর ইসলাম বলেন, জমি দীঘদিন আগে ক্রয় করে নিয়েছি আট দশ দিন আগে দখল করলাম।
সরকারি গাছ হরিলুট
ঠাকুরাগাঁয়ের দেবীপুরে মেম্বার- তহসিলদার মিলে সহকারী গাছ হরিলুট করার অভিযোগ উঠেছে। জানা গেছে, দেবীপুর ইউনিয়নের ভেলাপুকুর ঈদগাহ ময়দানের সোজা দক্ষিণে সরকারি খাস জমির ২৫টি ইউগাছ কাটার সময় দেবীপুর তহসিলদারকে আটক করে স্থানীয় ইউ.পি সদস্য হাসিবুল ওরফে সাঙ্গু মেম্বারের জিম্মায় রাখেন। ঐ ২৫টি ইউগাছ আনারুলের কেনা হয়েছিল বলে গাছ ব্যবসায়ী জাফর আলী জানান। ১ জানুয়ারি আটক গাছগুলো জিম্মায় সাঙ্গু মেম্বার ও তহসিলদার যোগ সাজসে বিক্রি করে দেন। এছাড়াও সরকারি খাস জমি অনেক গাছ হরিলুট হচ্ছে বলে এলাকবাসী জানান তহসিলদার এর পক্ষে সনামিয়া মোবাইলে বলেন আটক গাছগুলি মেম্বারের জিম্মায় ছিল অপরদিকে হাসিবুল ওরফে সাঙ্গু মেম্বার মোবাইলে কোন মতামত দিতে রাজি হয়নি। এলাকাবাসী ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসন ও বন বিভাগকে রাষ্ট্রীয় সম্পদ গাছ রক্ষা করে রাজস্ব বানানোর আহব্বান জানিয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ