সোমবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

তৃতীয় দিনশেষে বাংলাদেশ ৩০৩ রানে এগিয়ে

স্পোর্টস রিপোর্টার : ওয়েলিংটন টেস্টে তৃতীয় দিন শেষে বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসে ৩০৩ রানে এগিয়ে আছে। গতকাল নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশ ৮ উইকেটে ৫৯৫ রানে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে। আর দিন শেষে নিউজিল্যান্ড করেছে ৩ উইকেটে ২৯২ রান। ফলে তৃতীয় দিন শেষে এখনও বাংলাদেশ এগিয়ে আছে ৩০৩ রানে। তবে নিউজিল্যান্ডের পক্ষে ওপেনার লাথাম সেঞ্চুরিসহ ১১৯ রানে ব্যাটিংয়ে থাকায় বড় স্কোর গড়ার স্বপ্ন নিউজিল্যান্ডেরও। গতকাল বাংলাদেশ ৭ উইকেটে ৫৪২ রান নিয়ে তৃতীয় দিনের খেলা শুরু করে। আগের দিনের ১০ রানে অপরাজিত সাব্বির রহমানর সাথে গতকাল ব্যাট করতে নামেন অভিষেক হওয়া তাসকিন আহমেদ। তবে অভিষেক টেস্টে মাত্র ৩ রান করে আউট হন। তাসকিন ২০টি বল খেলে নেইল ওয়াগনারের চতুর্থ শিকার হন। এরপর কামরুল ইসলাম রাব্বিকে নিয়ে নবম উইকেটে ২৯ রানের অপরাজিত জুটি গড়ার পথে সাব্বির পান ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় হাফসেঞ্চুরি। নিজের তৃতীয় টেস্ট ম্যাচে ৮৫ বলে ফিফটি করেন সাব্বির। আর সাব্বিরের ৫৪ রানে ও দলীয় ৫৯৫ রানে ৮ উইকেটে ইনিংস ঘোষণা করে বাংলাদেশ। সাব্বির ৮৬ বলে সাজানো তার অপরাজিত ৫৪ রানের ইনিংসটি। ওয়াগনার নিউজিল্যান্ডের পক্ষে সর্বোচ্চ চার উইকেট নেন। দুটি করে পান ট্রেন্ট বোল্ট ও টিম সাউদি। বাংলাদেশের করা ৫৯৫ রানের জবাবে নিউজিল্যান্ড বড় স্কোর গড়ার জন্যই মাঠে নেমেছিল। যদিও শুরুটা তাদের তেমন ভালো হয়নি। তবে দিন শেষে নিউজিল্যান্ড ৩ উইকেটে ২৯২ রান করে বাংলাদেশের বোলারদের বেশ ভালোভাবে সামাল দেয়ার ইঙ্গিত দিয়েছে। গতকাল দলীয় ২০৫ রানের ব্যবধানে নিউজিল্যান্ডের তিনটি উইকেট পায় বাংলাদেশ। কিন্তু তৃতীয় সেশনটা নিজেদের করে নেয় নিউজিল্যান্ড। তাদের বাঁহাতি ব্যাটসম্যান টম ল্যাথাম শক্ত প্রতিরোধ গড়েন হেনরি নিকলসকে নিয়ে। এই জুটিই ব্যাটিংয়ে থেকে দিন শেষ করেছেন ২৯২ রানে। গতকাল অভিষেক টেস্টের প্রথম ওভারেই উইকেট পেতে পারতেন তাসকিন। কিন্তু সেটা হয়নি সাব্বিরের কারনে। নিউজিল্যান্ডের দলীয় ৩৫ রান তখন তৃতীয় স্লিপে থাকা সাব্বির জীবন দেন জিত রাভালকে। তবে ২৪ রানে জীবন পাওয়া রাভাল ইনিংসটাকে লম্বা করতে পারেননি। রাব্বির প্রথম ওভারে তিনি ইমরুল কায়েসের তালুবন্দী হয়ে মাঠ ছাড়েন ২৭ রান করে। ফলে দলীয় ৫৪ রানে প্রথম উইকেটটি পায় বাংলাদেশ। উদ্বোধনী জুটিটি ল্যাথাম বড় করতে না পারলেও অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনকে নিয়ে ৭৭ রানের শক্ত জুটি গড়েন। এই জুটি ভাংগার আগেই নিউজিল্যান্ড পৌঁছে যায় ১৩১ রানে। এ জুটি ভেঙে তাসকিন পান তার টেস্ট ক্যারিয়ারের প্রথম উইকেট। ৫৩ রানে উইলিয়ামসনকে সাজঘরে পাঠান তিনি। পরে রস টেলরকে নিয়ে ৭৪ রানের জুটি গড়েন ল্যাথাম। চা বিরতির পর নতুন স্পেলে এসে রাব্বির দ্বিতীয় শিকার হন টেলর। ৪০ রানে এ ব্যাটসম্যানকে সাজঘরে পাঠিয়ে ভালো কিছুর ইঙ্গিত দিয়েছিল সফরকারীরা। কিন্তু ল্যাথাম ও নিকলস দাঁড়িয়ে যান শক্তহাতে। ক্যারিয়ারের ষষ্ঠ টেস্ট সেঞ্চুরি করেন ল্যাথাম। নিকলসকে নিয়ে অপরাজিত ৮৭ রানের জুটি গড়েছেন তিনি। ১৬৭ বলে ১২টি চারে সেঞ্চুরি করেন ল্যাথাম। ১১৯ রানে অপরাজিত আছেন তিনি। অপর প্রান্তে ৩৫ রানে খেলছেন হেনরি নিকলস। বাংলাদেশের পক্ষে তিন উইকেটের দুটি রাব্বির, অন্যটি  নেন তাসকিন।
সংক্ষিপ্ত স্কোর :
বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস--৫৯৫/৮ (১৫২ ওভার) ইনিংস ঘোষণা
নিউজিল্যান্ড প্রথম ইনিংস--২৯২/৩ (৭৭ ওভার)

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ