ঢাকা, সোমবার 20 September 2021, ৫ আশ্বিন ১৪২৮, ১২ সফর ১৪৪৩ হিজরী
Online Edition

৩০৩ রানে পিছনে কিউইরা

অনলাইন ডেস্ক: সাকিব আল হাসানের ২১৭, অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমের ১৫৯, মোমিনুল হকের ৬৪, তামিম ইকবালের ৫৬ ও সাব্বির রহমানের অপরাজিত ৫৪ রানের কল্যাণে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়েলিংটন টেস্টে ৮ উইকেটে ৫৯৫ রান তুলে প্রথম ইনিংস ঘোষনা করেছে সফরকারী বাংলাদেশ। জবাবে ওপেনার টম লাথামের অপরাজিত সেঞ্চুরিতে ৩ উইকেটে ২৯২ রান তুলে তৃতীয় দিন শেষ করেছে নিউজিল্যান্ড। ৭ উইকেট হাতে নিয়ে এখনো ৩০৩ রানে পিছিয়ে রয়েছে কিউইরা। ১১৯ রানে অপরাজিত আছেন লাথাম। 

সাকিব-মুশফিকের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে ৭ উইকেটে ৫৪২ রান তুলে দ্বিতীয় দিন শেষ করেছিলো বাংলাদেশ। ৩১ বলে ১০ রান নিয়ে অপরাজিত ছিলেন সাত নম্বরে নামা সাব্বির রহমান। স্বীকৃত ব্যাটসম্যানদের মধ্যে একমাত্র ছিলেন সাব্বিরই। তাই তার হাত ধরে বাংলাদেশের স্কোর কোথায় গিয়ে ঠেকে সেটাই দেখার ছিলো। 

নিজের দায়িত্বটা বেশ ভালোভাবেই পালন করেছেন সাব্বির। দিনের শুরু থেকে কিছুটা মারমুখী ছিলেন তিনি। ফলে তৃতীয় দিন ৫৫ বল খেলে আর ৪৪ রান যোগ করেন সাব্বির। এতে টেস্ট ক্যারিয়ারের পঞ্চম ইনিংসে দ্বিতীয় হাফ-সেঞ্চুরির স্বাদ নেন তিনি। সাব্বিরের হাফ-সেঞ্চুরির পরই ইনিংস ঘোষনা করে বাংলাদেশ। ৮ উইকেটে ৫৯৫ রানে। নিজেদের টেস্ট ক্রিকেটে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ বাংলাদেশের। ৭টি বাউন্ডারিতে ৮৬ বলে ৫৪ রানে অপরাজিত থাকেন সাব্বির। আর তাসকিন আহমেদ ৩ রানে ফিরলেও, ৬ রানে অপরাজিত থাকেন কামরুল ইসলাম রাব্বি। নিউজিল্যান্ডের পক্ষে নিল ওয়াগনার ৪টি, ট্রেন্ট বোল্ট ও টিম সাউদি ২টি করে উইকেট নেন। 

তৃতীয় দিনের শুরুতে বাংলাদেশ প্রথম এক ঘন্টা ব্যাটিং করায় দ্বিতীয় ঘন্টায় ব্যাটিংয়ে নামে নিউজিল্যান্ড। শুরুটা দেখেশুনেই করেছিলেন ব্ল্যাক ক্যাপসদের দুই ওপেনার জিত রাভাল ও টম লাথাম। ফলে ১৬ ওভার শেষে স্কোরবোর্ডে ৫৪ রান যোগ করেন কিউই এই দুই ওপেনার। এসময় তিন বোলার ব্যবহার করেও নিউজিল্যান্ডের উদ্বোধনী জুটি ভাঙ্গতে পারেনি বাংলাদেশ। 

ফলে চতুর্থ বোলার হিসেবে প্রথমবারের মত আক্রমনে আসেন অভিষেক ম্যাচ খেলতে নামা পেসার রাব্বি। ইনিংসের ১৭তম ওভারের প্রথম বল ও টেস্ট ক্যারিয়ারের প্রথম ডেলিভারিতেই নিউজিল্যান্ড ওপেনার রাভালকে শিকার করেন রাব্বি। ২৭ রান করেন রাভাল।

এরপর লাথামের সাথে দলের হাল ধরেন নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। তাদের দু’জনের রান তোলার গতিটা বেশ ভালোই ছিলো। ফলে জবাবটা ভালোই দিচ্ছিলো নিউজিল্যান্ড। তবে দলীয় ১৩১ রানে লাথাম উইলিয়ামসন জুটিতে ভাঙ্গন ধরান বাংলাদেশের আরেক পেসার তাসকিন আহমেদ। ৫৩ রান করা উইলিয়ামসনকে ফিরিয়ে দেন অভিষেক টেস্ট খেলতে নামা তাসকিন। 

উইলিয়ামসনের সাথে দ্বিতীয় উইকেটে ৭৭ রানের জুটির পর রস টেইলরকে নিয়ে ইনিংস মেরামতে মনোযোগী হন লাথাম। ভালোই এগোচ্ছিলেন দু’জনে। কিন্তু জুটিতে ৭৪ রানের বেশি যোগ করতে পারেননি তারা। লাথাম টেইলরের জুটিতে ভাঙ্গন ধরান প্রথম উইকেট শিকারী রাব্বি। ৪০ রান করা টেইলরকে তুলে নেন রাব্বি।

এরপর হেনরি নিকোলসকে নিয়ে দিনের বাকী অংশ বিপদ ছাড়াই কাটিয়ে দেন লাথাম। পাশাপাশি লাথামও পেয়ে যান টেস্ট ক্যারিয়ারের ষষ্ঠ সেঞ্চুরি। বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথমবারের মত তিন অংকে পা দেয়া ইনিংসে ১১৯ রানে অপরাজিত আছেন লাথাম। তার ২২২ বলের ইনিংসে ১৩টি চার ছিলো। তার সঙ্গী নিকোলস অপরাজিত আছেন ৩৫ রানে। অবশ্য দিনের শেষভাগে নিকোলসকে তুলে নেয়ার সুযোগ পেয়েছিলো বাংলাদেশ। কিছুটা কঠিন ক্যাচকে তালুবন্দি করতে পারেননি মিরাজ ও সাব্বির। ফলে দিনের শেষটা স্মরনীয় হলো না বাংলাদেশের। তাই রাব্বির ২ ও তাসকিনের ১ উইকেটই অর্জনেই শেষ হলো তৃতীয় দিনটি। 

স্কোর কার্ড (তৃতীয় দিন শেষে) :

বাংলাদেশ 

তামিম ইকবাল এলবিডব্লিউ ব বোল্ট ৫৪

ইমরুল কায়েস ক বোল্ট ব সাউদি ১

মোমিনুল হক ক ওয়াটলিং ব সাউদি ৬৪ 

মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ক ওয়াটলিং ব ওয়াগনার ২৬ 

সাকিব আল হাসান বোল্ড ব ওয়াগনার ২১৭ 

মুশফিকুর রহিম ক ওয়াটলিং ব বোল্ট ১৫৯

সাব্বির রহমান অপরাজিত ৫৪

মেহেদি হাসান মিরাজ ক সাউদি ব ওয়াগনার ০

তাসকিন আহমেদ ক সাউদি ব ওয়াগনার ৩

কামরুল ইসলাম রাব্বি অপরাজিত ৬

অতিরিক্ত (বা-২, লে বা-৬, নো-১) ৯

মোট (৮ উইকেট ডি. ১৫২ ওভার) ৫৯৫

উইকেট পতন : ১/১৬ (ইমরুল), ২/৬০ (তামিম), ৩/১৪৫ (মাহমুদুল্লাহ), ৪/১৬০ (মোমিনুল), ৫/৫১৯ (মুশফিকুর), ৬/৫৩৬ (সাকিব), ৭/৫৪২ (মিরাজ), ৮/৫৬৬ (তাসকিন)। 

বোলিং : বোল্ট : ৩৪-৫-১৩১-২, সাউদি : ৩৪-৫-১৫৮-২, গ্র্যান্ডহোম : ২০-২-৬৫-০, ওয়াগনার : ৪৪-৮-১৫১-৪ (নো-১), স্যান্টনার : ১৭-২-৬২-০, উইলিয়ামসন : ৩-০-২০-০। 

নিউজিল্যান্ড 

জিত রাভাল ক ইমরুল ব রাব্বি ২৭

টম লাথাম অপরাজিত ১১৯

কেন উইলিয়ামসন ক ইমরুল ব তাসকিন ৫৩ 

রস টেইলর ক মাহমুদুল্লাহ ব রাব্বি ৪০

হেনরি নিকোলস অপরাজিত ৩৫

অতিরিক্ত (বা-১, লে বা-১, ও-১৫, নো-১) ১৮

মোট (৩ উইকেট, ৭৭ ওভার) ২৯২

উইকেট পতন : ১/৫৪ (রাভাল), ২/১৩১ (উইলিয়ামসন), ৩/২০৫ (টেইলর)।

বোলিং : মিরাজ : ২৬-৪-৮২-০, শুভাশিষ : ১৬-৪-৪৬-০ (নো-১), তাসকিন : ১৫-২-৭৯-১ (ও-২), রাব্বি : ১৩-২-৫৩-২ (ও-১), সাকিব : ৭-০-৩০-০।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ