সোমবার ১০ আগস্ট ২০২০
Online Edition

বাফুফের কাছে আপিল করবে ফেনী সকার ক্লাব ও উত্তর বারিধারা

স্পোর্টস রিপোর্টার : বাংলাদেশ প্রিমিয়ার ফুটবল লিগের প্লে-অফ ম্যাচ না খেলার অপরাধে শাস্তির খড়গে পড়া ফেনী সকার ক্লাব ও উত্তর বারিধারা আপীল করবে। চিঠি দিয়ে খেলতে অস্বীকৃতি জানানোর পর কোন প্রকার উত্তর না পেয়ে উল্টো শাস্তি পাওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন দু’দলের কর্মকর্তারা। তাই বুধবার আপীল করার সিদ্ধান্ত জানান ক্লাব দু’টির কর্মকর্তা।প্লে অফ ম্যাচে দু দফা মাঠে না আসায় বাফুফের ডিসিপ্লিনারী কমিটি দল দুটিকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নামিয়ে দিয়েছে। একই সাথে বাইলজকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখানোর অপরাধে দুই ক্লাবকে ৫ লাখ টাকা করে জরিমানাও করেছে বাফুফের ডিসিপ্লিনারী কমিটি। গতকাল বুধবার সকার ক্লাব ফেনীর ফুটবল দলের ম্যানেজার শাখাওয়াত হোসেন শাহিন এবং উত্তর বারিধারা ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম ডিসিপ্লিনারী কমিটির দেয়া সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করবেন বলে জানিয়েছেন।
সকার ক্লাব ফেনীর ফুটবল ম্যানেজার শাখাওয়াত হোসেন শাহিন বলেছেন, ‘বাইলজ অনুযায়ী বাফুফে আমাদের খেলানোর জন্য বাধ্য করতে চেয়েছিল। কিন্তু আমাদের দাবিটা তারা শুনেনি। এমনকি আমরা যে বাফুফে সভাপতির কাছে একটি আবেদন করেছিলাম তার কোনো মূল্যায়নই করেনি। তারা আমাদের সঙ্গে কোনো আলোচনা না করেই মাঠে রেফারি পাঠিয়ে দেয়। ডিসিপ্লিনারী কমিটি সিদ্ধান্ত দিয়েছে, তা আমরা শুনেছি। মিডিয়ায় দেখেছি। এখন বাফুফে থেকে আনুষ্ঠানিক চিঠি পেলে আমরা আপিল করবো।’উত্তর বারিধারা ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম বলেছেন, ‘বাফুফের সিদ্ধান্ত জানার পর ক্লাব কর্মকর্তারা বসে এব্যাপারে করনীয় ঠিক করবো।তবে যেহেতু আপিলের সুযোগ আছে, তাই আপিল করবো। বাফুফেতো আগেরবার ফরাশগঞ্জকে অবনমন করিয়ে দিয়েও তাদের আবার প্রিমিয়ারে খেলার সুযোগ করে দিচ্ছে। ওই ক্লাব তো মাঠ থেকে উঠে গিয়েছিল। আর আমরা তো বাফুফেকে জানিয়েই মাঠে যাইনি। বাফুফে নিয়মের কথা বলে, কিন্তু তারা কি নিয়ম জানে? ৪ জানুয়ারি প্রথম প্লে-অফ ম্যাচ না খেলার পর দুই দলতো এমনিতেই বহিষ্কার হয়। তারপর তারা আবার কীভাবে ৭ জানুয়ারি মাঠে রেফারি পাঠায়?’ আর্থিক জরিমানা প্রসঙ্গে সকার ক্লাবের ম্যানেজার বলেন, ‘আমরা তো বাফুফের কাছে ২০১২ সালের ৮ লাখ ১২ হাজার, ২০১৩ সালের ১৫ লাখ, ২০১৪ সালের ১ লাখ এবং এবারের লিগের ১৮ লাখ টাকা পাই। আমরা এখন সব টাকা চেয়ে বাফুফেকে চিঠি দেবো।’ অপরদিকে উত্তর বারিধারা ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম বলেছেন, ‘এবারের লিগের জন্য আমাদের দেয়ার কথা ছিল ৪০ লাখ টাকা। দিয়েছে ২২ লাখ। বাকি ১৮ লাখ টাকা এখনো পাবো বাফুফের কাছে।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ