মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

লিটন হত্যা সরকারের বিপক্ষে পুরোনো ষড়যন্ত্রেরই আরেক রূপ -ওবায়দুল কাদের

স্টাফ রিপোর্টার : গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন হত্যাকাণ্ডকে বছরের প্রথম সাম্প্রদায়িক হামলা বলে অভিহিত করেছেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, লিটনকে কারা হত্যা করেছে তা সারা দেশের মানুষের জানা হয়ে গেছে। এই হত্যা জনগণের ভোটে নির্বাচিত আওয়ামী লীগ সরকারের বিপক্ষে পুরোনো ষড়যন্ত্রেরই আরেক রূপ।

গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ হানিফ মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উদযাপনের প্রস্ততিসভায় এসব কথা বলেন ওবায়দুল কাদের। এ সময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব-উল-আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, এ কে এম এনামুক হক শামীম ও মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এবং দফতর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালন করেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, শেখ হাসিনার কিছু হলে সারা বাংলায় আগুন জ্বলবে। তাই ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে সবাই ঐক্যবদ্ধ থাকুন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরো বলেন, আওয়ামী লীগের বিশতম সম্মেলনের পর দলটি নবচেতনায় উদ্বেলিত হয়ে যাত্রা শুরু করেছে। এখন আওয়ামী লীগের যেকোনো সমাবেশেই জনপ্রতিনিধি ও তাদের ভোটারদের অংশগ্রহণে জনসমুদ্রে পরিণত হয়। সুতরাং এই দলের বিরুদ্ধে কোনো ষড়যন্ত্র করে পার পাওয়া যাবে না।

ওবায়দুল কাদের বলেন, কাউকে খুন করে পার পাওয়া যাবে না। ’৭৫ আর ২০১৭ সাল এক নয়। পরিষ্কারভাবে জানাতে চাই ’৭৫ এর বঙ্গবন্ধু, যে বুলেট তাকে খুন করেছে, ২০১৭ সালে সেই বঙ্গবন্ধু হাজার গুণ বেশি শক্তিশালী। তিনি বলেন, গাইবান্ধায় লিটনকে কারা হত্যা করেছে, বাংলাদেশের মানুষ তা বুঝতে পেরেছে। ষড়যন্ত্রকারীরা লিটনকে মেরে টেস্ট কেস করছে। স্পষ্টভাবে বলতে চাই ষড়যন্ত্র চলছে, জনগণের ভোটে আওয়ামী লীগকে পরাজিত করা যাবে না। ষড়যন্ত্রকারীরা এখন চোরাগলিতে হাঁটছে।

কাউন্সিলরদের উদ্দেশ্যে ওবায়দুল বলেন, আগামী ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন উপলক্ষে ঢাকায় সর্ব কালের সর্ব বৃহৎ জনসভার আয়োজন করা হবে। পাড়া, মহল¬ায় মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী লোকদের সেখানে আনতে হবে। এজন্য তিনি ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের সহযোগিতা কামনা করেন।

ডি ডব্লিউ ডিগ্রি কলেজে শোক সভা

গাইবান্ধা (সুন্দরগঞ্জ) সংবাদদাতা : গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনের এমপি মো. মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন হত্যার ঘটনায় ৩ দিনের শোক ঘোষণা করেছে স্থানীয় আওয়ামী লীগ। শোক পালনে কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে- দলীয় পতাকা অর্ধনির্মিত রাখা, কালো পতাকা উত্তোলন, কালো ব্যাজ ধারণ ও দোয়া-মাহফিল। এ ছাড়া গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে বিক্ষোভ শেষে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা শহরের বঙ্গবন্ধু চত্বরে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। 

তিন দিনের শোক কর্মসূচির বিষয়টি নিশ্চিত করে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা আ লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা বলেন, এমপি লিটন হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে উপজেলা আ’লীগ সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় ৩ দিনের শোক পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তিনি আরো জানান, মঙ্গলবার সকাল থেকে গোটা সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় শোক কর্মসূচি পালন শুরু হয়েছে। এ ছাড়া লিটনের হত্যাকারীদের দ্রুত চিহ্নিত করে গ্রেফতার ও তাদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে দুপুরে দলীয় কার্যালয় থেকে বিক্ষোভ মিছিল করবে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা। বিক্ষোভ শেষে বঙ্গবন্ধু চত্বরে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে।

ডি ডব্লিউ ডিগ্রি কলেজে শোক সভা : সুন্দরগঞ্জের এমপি ও ডি ডব্লিউ ডিগ্রি কলেজের সভাপতি মঞ্জরুল ইসলাম লিটনের মৃত্যুতে কলেজে শোক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার কলেজের হলরুমে অধ্যক্ষ একেএমএ হাবিব সরকারের সভাপতিত্বে শোক সভায় বক্তব্য রাখেন কলেজের উপাধ্যক্ষ আব্দুল হান্নান, মহিলা কলেজের উপাধ্যক্ষ ও গভর্নিং বডির সদস্য নাসরিন সুলতানা, উপজেলা আ’লীগ সিনিয়র সহ-সভাপতি ও কলেজের সদস্য জাহাঙ্গীর আলম মনজু, আ’লীগ নেতা ও কলেজের সদস্য সুলতান আহম্মেদ, সাইফুল ইসলাম লুৎফুল হক, অধ্যাপক মশিউর রহমান, আব্দুল জলিল সরদার, বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম, সাংবাদিক এ মান্নান আকন্দ প্রমুখ। বক্তাগণ এমপি মঞ্জুরুল ইসলামের স্মৃতিচারণসহ তার বিদায়ী আত্মার মাগফিরাত কামনা এবং শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। পরে দোয়া ও মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। 

প্রতিবাদ সভা : সুন্দরগঞ্জের এমপি মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন হত্যার প্রতিবাদে বঙ্গবন্ধু মুর‌্যাল চত্বরে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উপজেলা আ’লীগ সিনিয়র সহ-সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম মনজুর সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন, গাইবান্ধা জেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি ফরাদ আব্দুল্লাহ্ হারুন বাবলু, সৈয়দা মাসুদা খাজা, সুন্দরগঞ্জ উপজেলা আ’লীগ সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা আহম্মেদ, সাবেক সভাপতি- টিআইএম মকবুল হোসেন প্রামাণিক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা বাবুল, পূজা উদাযাপন কমিটির সভাপতি দীপক কুমার বাবলু, পৌর আ’লীগ সভাপতি আহসানুল করিম চাঁদ, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি গোলাম কবির মুকুল, জেলা আ’লীগ উপদেষ্টা সাজেদুল ইসলাম, পৌর মেয়র আব্দুল্লাহ্ আল মামুন, যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক রেজাউল আলম রেজা, ছাত্রলীগ আহবায়ক ছামিউল ইসলাম ছামু প্রমুখ। বক্তাগণ অবিলম্বে এমপি লিটন হত্যার খুনিদের গ্রেফতারের দাবি জানান। পাশাপাশি প্রশাসনকে আসামী গ্রেফতারের জন্য জোর তাগিদ প্রদান করেন। এর আগে একটি বিক্ষোভ মিছিল শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। 

এমপি লিটনের বাড়িতে বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকি : সুন্দরগঞ্জে এমপি মঞ্জুরুল ইসলামের লিটনের শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন কৃষক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিক। মঙ্গলবার দুপুরে বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকি এমপি লিটনের সাহাবাজ মাস্টারপাড়াস্থ বাড়িতে আসেন। পরে তিনি তার কবর জিয়ারত এবং শোকাহত পরিবারের সদস্যদের সাথে কুশল বিনিময় করেন। এ সময় জেলা ও উপজেলা নেতাকর্মীগণ উপস্থিত ছিলেন। 

আরো ৩ জন আটক : সুন্দরগঞ্জে এমপি মঞ্জুরুল লিটন হত্যা জড়িত সন্দেহে আরো ৩ জনকে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার দিবাগত রাত হতে মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে ৩ জন জামায়াত-শিবির কর্মীকে আটক করে। তাদেরকে জিজ্ঞাবাদ করা হচ্ছে। মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক তদন্ত আশরাফুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি আরো বলেন, তদন্ত অব্যাহত রয়েছে। যে কোন মুহূর্তে প্রকৃত খুনিদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় নেয়া হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ