বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

ছাগলনাইয়া আজিজিয়া মাদ্রাসায় দু’গ্রুপের দ্বন্দ্ব চরমে

ছাগলনাইয়া (ফেনী) সংবাদদাতা: ছাগলনাইয়া আজিজিয়া ইসলামিয়া কাসেমুল উলুম মাদ্রাসার মোহতামেম মাওলানা রুহুল আমিন ও শিক্ষক হাফেজ মাওলানা সাঈদুল হক কপিলের সমর্থকদের মধ্যে দ্বন্দ্ব চরম রূপ ধারণ করেছে। মাদ্রাসার মোতওয়াল্লী নিয়োগ ও শিক্ষক বহিষ্কারের ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুগ্রুপের দ্বন্দ্ব সংঘাত ও সংঘর্ষে রূপ নিচ্ছে।
দারুনভাবে শিক্ষা কার্যক্রম  ব্যাহত হচ্ছে। এলাকার দ্বীনি শিক্ষার সর্ব বৃহৎ সূতিকাগার নামে খ্যাত ছাগলনাইয়া আজিজিয়া ইসলামীয়া কাসেমুল উলুম মাদ্রাসার উক্ত দ্বন্দ্ব হামলা ও মামলায় রূপ নেয়ায় এবং দু’গ্রুপের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করায় যেকোন মুহূর্তে বড় ধরনের সংঘর্ষের আশংকা করছে এলাকাবাসী। মামলার বিবরণ ও এলাকাবাসীসূত্রে জানাযায়, বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ এনে মাদ্রাসার মজলিশে সূরা (পরিচালক কমিটি) গত ১৭ ডিসেম্বর শিক্ষক হাফেজ মাওলানা সাঈদুল হক কপিল ও মাওলানা আবদুল হালিমকে অব্যাহতি দেয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মাওলানা কপিলের সমর্থকরা গত ২৩ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় আজিজিয়া মাদ্রাসার মসজিদে এক বৈঠকে মিলিত হয়। এসময় মোহতামেম গ্রুপের সমর্থক মাদ্রাসার সহকারী হিসাব রক্ষক মাওলানা মুহাম্মদ লোকমান ,গোপনে বৈঠকের কার্যক্রম মোবাইলে ভিডিও ধারণ করার অভিযোগ তুলে তাকে বেদম মারধর করে গুরুতর আহত করে। আহত অবস্থায় ,ছাগলনাইয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় মাওলানা মুহাম্মদ লোকমান বাদী হয়ে ২৫ ডিসেম্বর চাকুরিচ্যুত ২জন শিক্ষকসহ ৬জনের বিরুদ্ধে ছাগলনাইয়া থানায় একটি মামলা (নং ২১) দায়ের করেন। এদিকে মোতওয়াল্লী পদ থেকে মাওলানা কপিলকে অব্যাহতি দেয়ার জন্য বাংলাদেশ ওয়াক্ফ প্রশাসক বরাবর আবেদন পাঠায় মাদ্রাসার সূরা কমিটি।
অপরদিকে মাদ্রাসার মোহতামেম মাওলানা রুহুল আমিনের অনিয়ম ও দুর্নীতি অভিযোগ এনে শিক্ষক হাফেজ মাওলানা সাইদুল হক কপিল, মাওলানা নাজাত উল্যাহ খান ও মাওলানা আজিজুল হক বাদী হয়ে গত ৯ আগষ্ট ছাগলনাইয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ দেন এবং মোহতামেমকে উকিল নোটিশ প্রদান করেন। মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা মরহুম মাওলানা আবু মূসার  নাতি, সাবেক মোহতামেম মরহুম হাফেজ মাওলানা নিজাম উদ্দিনের পুত্র মাওলানা কপিল ওয়াকফ প্রশাসকের কাছে আইনানুগ সহায়তার জন্য একটি লিখিত আবেদন করেছেন। আবেদনে তিনি উল্লেখ করেন, গত ৩০জুন আল জামেয়াতুল ইসলামিয়া আজিজিয়া কাসেমুল উলুম ও এতিমখানা ওয়াক্ফ এষ্টেট এর মোতওয়াল্লী হিসেবে তাকে নিয়োগ দিয়ে এষ্টেটটি তালিকাভুক্ত করেন। এষ্টেটস্থ মাদ্রাসার মোহতামেম মাওলানা রুহুল আমিন গংরা এষ্টেটটির তালিকাভুক্তির বিরোধীতাসহ মোতওয়াল্লীর কার্যক্রম পরিচালনায় বিভিন্ন বাঁধা সৃষ্টি করে হুমকি ধামকি দিচ্ছে। মাওলানা রুহুল আমিন মাদ্রাসার মোহতামেম হওয়ার সুবাদে ক্ষমতার অপব্যবহার করে তাকে চাকুরিচ্যুত করার ষড়যন্ত্র করছে। মাদ্রাসার মোহতামেম মাওলানা রুহুল আমিন দৈনিক ভোরের ডাককে  জানান, মাদ্রাসা সংলগ্ন মসজিদকে বড় পরিসরে পুনঃনির্মাণ কাজ শুরু করলে শিক্ষক মাওলানা সাঈদুল হক কপিল মাদ্রাসার মোতওয়াল্লী হওয়ার জন্য মসজিদের উন্নয়ন কাজের বাধা সৃষ্টি করে আদালতে মামলা, উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে অভিযোগ ও ওয়াক্ফ প্রশাসকের কাছে দরখাস্ত করে তাকে মোতওয়াল্লী বানানোর জন্য।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ