শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

সিরিয়া সঙ্কট ‘গ্লোবাল ক্যান্সার’

২৯ ডিসেম্বর, প্রেসটিভি : জাতিসংঘের ভাবী মহাসচিব আন্তোনিও গোট্রেস বলেছেন, সিরিয়া সঙ্কট বিশ্বক্যান্সারে পরিণত হয়েছে। পর্তুগালের এসআইসি টেলিভিশনকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে তিনি বলেন, সিরিয়া সঙ্কট নিরসনে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া নিজেদের মধ্যে পার্থক্য কমিয়ে আনতে না পারলে এ দ্বন্দ্বের অবসান হবে না। সিরিয়ায় বাশার আল-আসাদ সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করতে পশ্চিমা ও আরব দেশগুলোর সঙ্গে সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র এবং রাশিয়া ও ইরান সিরিয়ার বর্তমান সরকারকে সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে।

পর্তুগিজের সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী আন্তোনিও গোট্রেস সিরিয়া নিয়ে যে দ্বন্দ্ব চলছে তা দেশটির জনগণের জন্যে শুধু যে দুর্ভোগ বয়ে আনছে তাই নয়, তা একই সঙ্গে সহিংস প্রতিক্রিয়া দেখাতে বা সন্ত্রাসী হয়ে উঠতে প্রভাব ফেলছে। সিরিয়া যুদ্ধকে জাতিসংঘের আগামী মহাসচিব বিশ্ব হুমকি হিসেবে অভিহিত করেন। তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় কোনো সুরাহা করতে না পারলে সিরিয়া যুদ্ধ শেষ হবে না।

এর আগে রাশিয়া ও তুরস্ক সিরিয়ায় অস্ত্রবিরতিতে রাজি হয়েছে। গত বুধবার মধ্যরাত থেকে এ অস্ত্র বিরতি শুরু হয়েছে। অস্ত্রবিরতি ছাড়াও সিরিয়া সঙ্কট নিরসনে রাজনৈতিক সমাধান জরুরি বলে মনে করছে তুরস্ক। সিরিয়া যুদ্ধে এপর্যন্ত ৪ লাখ মানুষ নিহত হয়েছে।

ট্রাম্পের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে চান

জাতিসঙ্ঘে দায়িত্ব নিতে যাওয়া নতুন মহাসচিব অ্যান্টোনিও গুতেরেস বলেন, তিনি শিগগিরই যুক্তরাষ্ট্রের নব নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে দেখা করতে চান। তিনি ‘যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রশাসনের সাথে গঠনমূলক সংলাপ করতে বদ্ধপরিকর।’

গুতেরেস বলেন, তিনি গত মাসের শেষের দিকে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনের সঙ্গে সাক্ষাত করেছেন। একইভাবে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে সাক্ষাতের ব্যাপারে তিনি আশাবাদী। 

উল্লেখ্য, পর্তুগালের এ সাবেক প্রধানমন্ত্রী আগামী ১ জানুয়ারি জাতিসংঘের বর্তমান মহাসচিব বান কি-মুনের কাছ থেকে সংস্থার দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন। সিরিয়ায় চলমান রক্তক্ষয়ী সংঘাত এবং ট্রাম্পের শাসনামলে বিশ্বে যুক্তরাষ্ট্রের ভূমিকা নিয়ে নানা প্রশ্নের মধ্যে তিনি এ দায়িত্ব নিচ্ছেন।

বুধবার পর্তুগালের টেলিভিশন চ্যানেল এসআইসিকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে তিনি বলেন, ‘পুতিনের সঙ্গে আমি চমৎকার আলোচনা করেছি। আমি আশা করছি ডোনাল্ড টাম্পের সঙ্গেও আমার আলোচনা চমৎকার হবে।’ গুতেরেস বলেন, ‘আমি যতদ্রুত সম্ভব ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে সাক্ষাত করতে চাই।’ এক্ষেত্রে তিনি বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র জাতিসঙ্ঘে একমাত্র প্রধান দাতা না হলেও জাতিসঙ্ঘের বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণের ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্রের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ।’ উল্লেখ্য, গত শুক্রবার ট্রাম্প বলেন, তিনি দায়িত্ব গ্রহণের পর জাতিসংঘের ব্যাপারে ওয়াশিংটনের ভূমিকা ভিন্ন হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ