মঙ্গলবার ১৪ জুলাই ২০২০
Online Edition

মাধবদীতে ২১ লাখ টাকা নিয়ে সেলসম্যান উধাও

মাধবদী (নরসিংদী) সংবাদদাতা : মাধবদী বাজারের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান মডার্ণ ইয়াং ট্রেডিংয়ের সেলস্ম্যান কমল রায় ২১লাখ টাকা নিয়ে উধাও হয়ে গেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। নরসিংদীর বীরপুরের হরেকৃষ্ণ সাহার ছেলে সংকর কুমার সাহার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান মডার্ণ ইয়াং ট্রেডিং ব্যাংক পট্টিতে এ ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে গত ২২ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার মাধবদী থানার মামলা নং-১৭/ ৪০৮ দঃবিঃ দায়ের করেন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানটির ম্যানেজার উজ্জল কুমার সাহা। মামলার  বিবরণ থেকে জানাযায় মাধবদী বাজার ব্যাংক পট্টির মডার্ণ ইয়াং ট্রেডিং এর মালিক সংকর সাহা ভারতের বেঙ্গালোরে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় গত ২১ডিসেম্বর বুধবার দুপুর ২টায়  ম্যানেজার উজ্জল কুমার সাহা মালিকের বিশ্বস্ত কর্মচারী সেলস্ম্যান কমল রায়কে তিনটি চেক নং ঈ৫৫৮২৮০৪, ঈ৫৫৮২৮০৫, ঈ৫৫৮২৮০৬ দিয়ে ২০ লাখ টাকা উত্তোলনের জন্য ঘটনার দিন ২১ ডিসেম্বর দুপুর ২টায় ঘঈঈ ব্যাংক মাধবদী শাখায় পাঠায়। বিকেল ৩টা পর্যন্ত কমল রায় সংকর সাহার সুতার গদীতে না এলে ম্যানেজার উজ্জল সাহা কমলের মুঠোফোন ০১৯১৩০৩৮১৫ তে ফোন করে তার মোবাইল বন্ধ পায়ে পরে সে নিজে এবং বিভিন্ন লোকজন নিয়ে মাধবদীর বিভিন্ন স্থানে রাত পর্যন্ত খোঁজ করে কমল রায়কে না পেয়ে পরদিন ২২ডিসেম্বর মালিকের অনুমতি নিয়ে ম্যানেজার উজ্জল বাদী হয়ে উপরোক্ত মামলা দায়ের করেন।
জানা যায় কমল রায় উক্ত প্রতিষ্ঠানের সেলসম্যান হিসেবে দীর্ঘদিন যাবৎ বিশ্বস্ততার সহিত কর্মরত ছিল এবং মালিকের খুবই আস্থাভাজন ছিল বিধায় বিগত সময়ে উক্ত ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের টাকা পয়সা ব্যাংকে জমা ও উত্তোলন করতো সে। এ ২০লাখ টাকা ছাড়াও মালিকের আরো ১লাখ টাকা কমলের কাছে জমা ছিল এ সুযোগে সে পালানোর সময় মোট ২১লাখ টাকা নিয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন উজ্জল সাহা। কমল রায় নরসিংদী জেলার বেলাবো থানার নারায়নপুর ইউনিয়নের জালালাবাদে গ্রামের সুকুমার রায়ের পুত্র। তার গ্রামের বাড়িতে খোঁজ নিলে বাড়ির লোকজন তার কোন খবর জানেন না বলে জানিয়েছেন। তার পাসর্পোট নং অঊ ৪৮৮৬৫১৬ সে এখন বিদেশে চলে যাওয়ার চেষ্টা করছে বলে ধারনা করছেন মর্ডাণ ইয়াং ট্রেডিং কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তারা। তারা জানিয়েছেন উক্ত টাকা তুলে বিবাদী মাধবদী বাজারস্থ টঈই ব্যাংক শাখায় তার নিজ একাউন্ট মিরা ফেব্রিক্স এর নামে ১০লাখ টাকা এবং ডাচবাংলা ব্যাংক আড়াইহাজার শাখায় ৬লাখ টাকা জমা করেছে বলে তারা নিশ্চিত হয়েছেন। এরকম ঘটনা মাধবদী বাজারে প্রায়ই ঘটে চলেছে। বিভিন্ন সুতার ও কাপড়ের গদির কর্মচারী কয়েক কোটি টাকা নিয়ে উধাও হওয়ার ঘটনাও ঘটেছে। সম্প্রতি সময়ে দেখা যায় মাধবদী বাজারে একটি প্রতারক চক্র তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে সুন্দর ও আধুনিক ভাবে সাজিয়ে বড় ব্যবসায়ী সেজে প্রতারণার চালিয়ে যাচ্ছে তারা প্রথমে অন্য ব্যবসায়ী থেকে নগদ টাকায় কাপড় অথবা সুতা ক্রয় করে বিশ্বস্ততা অর্জন করে কিছুদিন ব্যবসা চালিয়ে যায় পরে ধীরে ধীরে বাকিতে কাপড় ও সুতা ক্রয় করতে থাকে এক সময় কোটি কোটি টাকা নিয়ে হঠাৎ করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ছেড়ে পালিয়ে যাচ্ছে। এ সব অপরাধীরা পার পেয়ে যায় আইন শৃংখলা বাহিনীর চোখের আড়ালে। এ ব্যাপারে শক্ত পদক্ষেপ নেয়া জরুরী হয়ে পড়েছে বলে মত প্রকাশ করেছেন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ী মহল।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ