মঙ্গলবার ১৪ জুলাই ২০২০
Online Edition

চীন হচ্ছে বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার

চট্টগ্রাম অফিস : ২৩ ডিসেম্বর চট্টগ্রাম  ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারস্থ চেম্বার কার্যালয়ে দি চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি’র সভাপতি মাহবুবুল আলম’র সাথে বাংলাদেশস্থ চায়না দূতাবাসের ইকনোমিক ও কমার্সিয়াল কাউন্সিলর লী গুয়াংজুন মতবিনিময় করেন। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন দূতাবাসের থার্ড সেক্রেটারি এলভি ইয়াং, চাইনিজ চেম্বার অব কমার্স ইন বাংলাদেশের ভাইস-প্রেসিডেন্ট ঝেং ওয়েনশেং, উইনকি ঝেং প্রমুখ।
চিটাগাং চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন-চীন হচ্ছে বাংলাদেশের  আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার। তিনি বাংলাদেশকে ‘উন্নয়নের মডেল’ উল্লেখ করে এদেশের মেগা প্রজেক্টে চীন সরকারের কারিগরি ও আর্থিক সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ জানান। মাহবুবুল আলম উভয় দেশের ব্যবসায়ীদের মধ্যে বাণিজ্যিক সম্পর্ক জোরদারে সার্বিক আস্থা ও বিশ্বাসের উপর গুরুত্বারোপ করে এ প্রসংগে  কিছু অসাধু চাইনিজ সাপ্লাইয়ার কর্তৃক নির্দিষ্ট পণ্যের পরিবর্তে অন্য ও নিম্নমানের পণ্য প্রেরণের অভিযোগ অবহিত করে এ ব্যাপারে দূতাবাসের কার্যকর পদক্ষেপ কামনা করেন। তিনি বেসরকারি খাতের বিকাশ ও অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টিতে অত্র চেম্বারের পক্ষ থেকে সার্বিক সহযোগিতারও আশ্বাস প্রদান করেন।
ইকনোমিক ও কমার্সিয়াল কাউন্সিলর লী গুয়াংজুন বলেন-বৈশ্বিক অর্থনীতিতে বাংলাদেশ হচ্ছে উদীয়মান শক্তি। চট্টগ্রামে প্রধান সমুদ্রবন্দর থাকায় বাংলাদেশের অর্থনীতিতে এর গুরুত্ব অপরিসীম। এ জন্য তিনি দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য সম্প্রসারণে পর্যাপ্ত গ্যাস, অবকাঠামো উন্নয়নসহ বিদ্যমান ব্যবসায়িক পরিবেশ আরো উন্নতকরণের উপর গুরুত্বারোপ করেন। লী গুয়াংজুন চায়নিজ কোম্পানীর মালামাল ছাড়করণসহ তাঁদের বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে চিটাগাং চেম্বারের সহযোগিতা কামনা করেন। তিনি ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারস্থ বাংলাদেশী রপ্তানিযোগ্য পণ্যের স্থায়ী এক্সিবিশন হল পরিদর্শনকালে চিটাগাং চেম্বার ও চায়না দূতাবাস যৌথভাবে খাতভিত্তিক মেলা আয়োজন করার কথাও জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ