মঙ্গলবার ১৪ জুলাই ২০২০
Online Edition

চৌগাছায় শীতের সবজির বাম্পার ফলন ॥ দাম পাচ্ছে না কৃষক

এম এ রহিম চৌগাছা (যশোর) : যশোরের চৌগাছায় শীতের সবজির বাম্পার ফলন হলেও দাম পাচ্ছেনা কৃষকরা। স্থানীয় ব্যাপারীদের হাজার হাজার টাকা লোকসান গুনতে হচ্ছে। অনেক কৃষক ক্ষেত থেকে সবজি তুলছেন না। উপজেলা কৃষি অফিসার কেএম শাহাবুদ্দীন জানান চলতি মৌসুমে উপজেলায়  মুলা, গাজর, ফুলকপি, বাঁধা কপি, শিম, বেগুন, লাউ, পেপে, টমেটা, পটল, মিষ্টি কুমড়া, পালং শাক, পুইশাক, লালশাক, ধনিয়াপাতা ও বরবটিসহ বিভিন্ন জাতের তরিতরকারির চাষ হয়েছে প্রায় ২৫শ ৯০ হেক্টর জমিতে। ফলনও বেশ ভাল হয়েছে। কিন্তু উৎপাদিত তরকারির বাজারে দাম পড়ে যাওয়ায় লোকসান গুনতে হচ্ছে কৃষকদের। কৃষকদের অভিযোগ উৎপাদিত সবজির দাম না পাওয়ায় সবজি নিয়ে মহাবিপাকে পড়তে হচ্ছে। অনেকে সবজির ক্ষেতে ছাগল-গরু দিয়ে খাওয়াচ্ছেন। শুক্রবার সরেজমিনে উপজেলার পেটভরা, হাজরাখানা, ঠেঙ্গুরপুর, চাদপাড়া, হোগলডাঙ্গা, বুন্দলীতলা, বাটিকামারী পৌর এলাকার ইছাপুর, পাচনামনা, চাদপুর গ্রামের মাঠে গেলে চোখে পড়ে মাঠের পর মাঠ সবজির ক্ষেত। চৌগাছা কাঁচাবাজারে গেলে কথা হাজরাখানা গ্রামের আয়ুব হোসেন, পেটভরা গ্রামের ষামাউল ইসলাম, সৈয়দপুর গ্রামের শওকত আলী সাঞ্চাডাঙ্গা গ্রামের চাষী সামাউল ইসলাম, হাফিজুর রহমান, দিঘড়ী গ্রামের বজলুর রহমান, হাজরাখানা গ্রামের আনছার আলী, লিয়াকত আলী, চাদপাড়া গ্রামের শহীদ হোসেন, কুরমান আলী ও মাধবপুর গ্রামের ওমর আলীর সাথে। তারা জানান এ বছর সবজির ফলন খুবই ভাল হয়েছে তবে বাজারে দাম একেবারেই কম।
পেটভরা গ্রামের আজিজুর রহমান জানান এ বছর  আমার কমপক্ষে ৫০ থেকে ৬০ হাজার টাকার সবজি বিক্রি হওয়ার কথা সেখানে ২০ হাজার টাকা লোকসান হচ্ছে। লোকসানের কারণ জানতে চাইলে তিনি জানান কৃষি খাতের ব্যয় আগের তুলনায় ৪/৫ গুন বেড়ে গেছে। তাই কিটনাশক, সার-সেচ খরচ অনেক বেশী পড়েছে। পাশাপাশি শ্রমিকের মজুরী ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। যার ফলে সবজি উৎপাদন খরচ অন্যান্য বছরের তুলনায় বৃদ্ধি পেয়েছে কয়েক গুন। সবজির উৎপাদন খরচ বিঘা প্রতি ২০/২৫ হাজার টাকা সেখানে কোন কোন সবজি বাজারে বিক্রিও হচ্ছে না। তাই অনেকে ক্ষেত থেকে সবজি তুলছেন  না।
ফলে লাভের আশায় চাষ করে লোকসান গুনতে হচ্ছে। অনেকে সবজির ক্ষেত ছাগল-গরু দিয়ে খাওয়াচ্ছেন। কথা হয় সবজির ক্রয় করতে আসা রহমত আলী ব্যাপারীর সাথে তিনি জানান চলতি মৌসুমে সবজি উৎপাদন হয়েছে ভাল কিন্তু যানবাহন ভাড়া অনেক বেশি বাজারে সবজির দামও একেবারে কমে গেছে। স্থানীয় ব্যাপারী রেজাউল ইসলাম, বুদো রহমান, ইমরাম হোসেন, আকবার আলী, নাসির উদ্দীন, আমির হোসেন, তোতা মিয়া জানান বর্তমানে সকল সবজির দাম ব্যাপক হারে কমে যাওয়ায় আজকের বাজারে আমাদের ৫/৭ হাজার টাকা লোকসান গুনতে হচ্ছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ