শনিবার ১১ জুলাই ২০২০
Online Edition

যুক্তরাষ্ট্রসহ ১১ দেশের রাষ্ট্রদূতকে তলব করলো ক্ষুব্ধ ইসরাইল

২৬ ডিসেম্বর, বিবিসি/ফক্স নিউজ/আনাদোলু এজেন্সি/আলজাজিরা : ফিলিস্তিনী ভূখণ্ডে অবৈধ ইসরাইলী বসতি স্থাপন বন্ধের প্রস্তাবে সমর্থন দেওয়া নীরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী-অস্থায়ী সদস্য দেশগুলোর বিরুদ্ধে ক্ষোভে ফুঁসছে ইসরাইল। এরইমধ্যে অধিকৃত ফিলিস্তিনী ভূখণ্ডে বসতি স্থাপন বন্ধের প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দেওয়া ১০ টি দেশ এবং ভোটদানে বিরত থাকা যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতকে তলব করেছে তেল আবিব। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম খবরটি নিশ্চিত করেছে।
যুক্তরাষ্ট্রের পাশাপাশি তলব করা হয়েছে যুক্তরাজ্য, চীন, রাশিয়া, ফ্রান্স, জাপান, মিসর, উরুগুয়ে, স্পেন, ইউক্রেন ও নিউজিল্যান্ডের রাষ্ট্রদূতকেও।
শুক্রবারের ভোটাভুটিতে যুক্তরাষ্ট্রের অনন্য ঐতিহাসিক নীরবতার ভূমিকায় জাতিসংঘে পাস হয় ফিলিস্তিনী ভূখণ্ডে ইসরাইলী বসতি স্থাপন বন্ধের প্রস্তাব। তাৎক্ষণিক বিবৃতিতে প্রস্তাবকে নিন্দনীয় উল্লেখ করে এর কোনও শর্ত না মানার হুমকি দেয় ইসরাইল। পরে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে তেল আবিব সূত্রে খবর প্রকাশিত হয়, জাতিসংঘের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার কথা ভাবছে ইসরাইল। খবরে বলা হয়, এরইমধ্যে জাতিসংঘের ৫ টি প্রতিষ্ঠানকে দেওয়া সহায়তা তহবিল বাতিল করেছে তেল আবিব। গত রোববার ইসরাইলী মন্ত্রিসভার বৈঠকে দেশটির প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু আবারও ওবামা প্রশাসনের কঠোর সমালোচনা করেন।
এর আগে এ ঘটনায় প্রস্তাব উত্থাপনকারী সেনেগাল ও নিউজিল্যান্ড থেকে ইসরাইলী রাষ্ট্রদূতদের দেশে ফেরার নির্দেশ দেয় তেল আবিব।
এ প্রস্তাব পাসের উদ্যোগ নেওয়ার জন্য বারাক ওবামা প্রশাসনকে অভিযুক্ত করেছেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। তার ভাষায়, ‘আমাদের কাছে যেসব তথ্য রয়েছে সে অনুযায়ী আমাদের কোনও সন্দেহ নেই যে, ওবামা প্রশাসন এ প্রস্তাবের উদ্যোগ নিয়েছে, এর পেছনে দাঁড়িয়েছে, এর ভাষা ঠিক করে দিয়েছে এবং প্রস্তাবটি পাসের জন্য দাবি তুলেছে। নেতানিয়াহু’র দাম্ভিক উচ্চারণ, ‘ইস্যুটি সমাধানের জন্য জাতিসংঘ নীরাপত্তা পরিষদ উপযুক্ত জায়গা নয়।’
তিনি জানিয়েছেন, এ প্রস্তাব পাসের জাতিসংঘের সঙ্গে সম্পর্ক রাখা-না রাখার ব্যাপারেও ভাবছে ইসরাইল। এর আগে শনিবার এক সাক্ষাৎকারে নেতানিয়াহু বলেন, ‘জাতিসংঘের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ইসরাইলী সহায়তা, ইসরাইলে থাকা জাতিসংঘ প্রতিনিধিসহ ওই সংস্থার সঙ্গে আমাদের যাবতীয় সম্পর্ক এক মাসের মধ্যে পুনর্বিবেচনা করতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দিয়েছি।’ সাক্ষাৎকারে জাতিসংঘের ৫ সংস্থাকে ইসরাইলের প্রতি শত্রুভাবাপন্ন বলে আখ্যায়িত করেন নেতানিয়াহু। তিনি জানান, এরইমধ্যে ওই সংস্থাগুলোতে ৭৮ লাখ ডলারের তহবিল বাতিল করা হয়েছে। পাশাপাশি আরও তহবিল বন্ধ করে দেওয়া হতে পারে।
প্রসঙ্গত, ফিলিস্তিনীরা চায় পশ্চিম তীরে একটি স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে এবং পূর্ব জেরুসালেমকে এর রাজধানী বানাতে। ১৯৬৭ সালের আরব যুদ্ধের পর থেকে ইসরাইল পূর্ব জেরুসালেম দখল করে রেখেছে। পূর্ব জেরুসালেমকে নিজেদের অবিভাজ্য রাজধানী বলে দাবি করে থাকে ইসরাইল। অবশ্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় পূর্ব জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়নি। ১৯৬৭ সালের পর পশ্চিম তীর ও পূর্ব জেরুসালেমে শতাধিক বসতি স্থাপন করেছে ইসরাইল। আন্তর্জাতিক আইনের আওতায় এ বসতি স্থাপনকে অবৈধ বলে বিবেচনা করা হলেও ইসরাইল তা মানতে চায় না। ১৯৯০ এর দশকের শুরু থেকে ইসরাইল ও ফিলিস্তিনের মধ্যে বেশ কয়েক দফায় শান্তি আলোচনা হলেও তা ব্যর্থ হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ