বুধবার ২৭ জানুয়ারি ২০২১
Online Edition

‘বঙ্গবন্ধুর পায়ের কাছে অস্ত্র জমা দেয়া কোনো কাজেই আসেনি’

সংগ্রাম ডেস্ক : কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বীর উত্তম বলেছেন, স্বাধীনতাযুদ্ধের পর তিনি বঙ্গবন্ধুর পায়ের কাছে অস্ত্র জমা না দিয়ে যদি ঘাড়ে তুলে দিতেন, তাহলে কারো সাধ্য ছিল না অস্বীকার করার। সেদিন বঙ্গবন্ধুর পায়ের কাছে অস্ত্র জমা দেয়া কোনো কাজেই আসেনি। তিনি ভুল করেছিলেন। আমাদের সময়.কম।
শনিবার দুপুরে টাঙ্গাইল শহীদ স্মৃতি পৌর উদ্যানে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের ১৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন ও টাঙ্গাইল জেলা সম্মেলনের উদ্বোধনী বক্তব্যে এ কথা বলেন কাদের সিদ্দিকী।
কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বলেন, ‘আমি আওয়ামী লীগের ঘরে জন্মগ্রহণ করেছিলাম। আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে আমি মুক্তিযুদ্ধ করেছি। কিন্তু বর্তমানের আওয়ামী লীগ আর বঙ্গবন্ধুর আওয়ামী লীগের সঙ্গে কোনো মিল খুঁজে পাই না।’
কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘২৪ জানুয়ারি ১৯৭২ আমরা বঙ্গবন্ধুর পায়ের কাছে অস্ত্র জমা দিয়েছিলাম। আমি যদি সেদিন বঙ্গবন্ধুর পায়ের কাছে অস্ত্র জমা না দিয়ে বঙ্গবন্ধুর ঘাড়ে অস্ত্র তুলে দিতাম কারো সাধ্য ছিল না অস্বীকার করে। আমি যেভাবে দিতাম সেভাবে সেদিন নিতেন। বঙ্গবন্ধুর পায়ের কাছে অস্ত্র বুঝিয়ে দিয়েছিলাম। অস্ত্রের কোনো শক্তি নাই। অস্ত্র যে চালায় তারই শক্তি। সেজন্য বঙ্গবন্ধুর পায়ের কাছে অস্ত্র জমা দিয়েছিলাম। আমার সেদিনের বঙ্গবন্ধুর পায়ের কাছে অস্ত্র বুঝিয়ে দেওয়া কোনো কাজে আসে নাই। কোনো কাজে আসে নাই। আমি ভুল করেছিলাম।’
কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান তালুকদার বীরপ্রতীকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সাবেক সংসদ সদস্য ও টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফজলুর রহমান খান ফারুক। বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন সাবেক পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আবুল হাসান চৌধুরী, আওয়ামী লীগ নেতা ও একাত্তরের কাদেরিয়া বাহিনীর বেসামরিক কর্মকর্তা আবু মোহাম্মদ এনায়েত করিম প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ