শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

‘ইতিহাস চর্চায় সচেতনতার অভাব রয়েছে’

স্টাফ রিপোর্টার : বাংলা ও বাঙালীর ইতিহাস চর্চায় সচেতনতার অভাব রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। তিনি মনে করেন, বিকৃত ইতিহাসের চর্চার মাধ্যমে দেশবাসীকে বিভ্রান্ত করে দেশকে অনেক পিছিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।
গতকাল শনিবার সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে ( টিএসসি) বাংলাদেশ ইতিহাস সম্মিলনীর প্রথম ত্রি-বার্ষিক সম্মিলনে ‘৪৫ বছরে বাংলাদেশ’ শীর্ষক উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মন্ত্রী এ মন্তব্য করেন। ইতিহাস সম্মিলনীর সভাপতি অধ্যাপক ড. মুনতাসীর মামুনের সভাপতিত্বে উক্ত অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন সম্মিলনীর সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মেসবাহ কামাল। এ সম্মিলনে বিভিন্ন কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০০ জন ডেলিগেট অংশ নেন।
মন্ত্রী বলেন, স্কুল-কলেজে শিক্ষার্থীদের ইতিহাস পাঠে শিক্ষকদের সচেতনতা ও আন্তরিকতার অভাব যেমন রয়েছে, তেমনি রয়েছে ধ্যান-ধারণাগত সমস্যা। পুঁথিগতবিদ্যায় সীমাবদ্ধ থাকলে শিক্ষার্থীরা সঠিক ইতিহাস জানতে পারবে না।
বিকৃত ইতিহাস ঠেকাতে সঠিক ইতিহাস চর্চার গুরুত্বের ওপর জোর দিয়ে নূর বলেন, ইতিহাস পড়ার বা চর্চার গুরুত্ব অনস্বীকার্য। কিন্তু পূর্বে আমাদের দেশে সঠিক ইতিহাস চর্চার থেকে ইতিহাস বিকৃতি বা বিকৃত ইতিহাস চর্চাই হয়েছে বেশি। তরুণ প্রজন্মকে প্রকৃত ইতিহাস জানানো ও তা চর্চায় উদ্বুদ্ধ করতে উদ্যোগ গ্রহণের আহ্বান জানিয়ে এক্ষেত্রে তার মন্ত্রণালয় সহযোগিতা করতে ‘প্রস্তুত’ বলে জানান মন্ত্রী।
অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন অভিযোগ করেন, স্কুল-কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে ইতিহাস পাঠ ইস্যুতে কাজ করতে গিয়ে বাংলাদেশ ইতিহাস সম্মিলনী নানা জটিলতার মুখোমুখি হয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতা না পাওয়ায় হতাশা ও ক্ষোভও প্রকাশ করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের এই অধ্যাপক।
সম্মেলনের উদ্বোধনির পর সাহিত্য, উন্নয়ন ও তথ্য প্রযুক্তি, সমাজ ও সংস্কৃতি, মুক্তিযুদ্ধ, বাংলাদেশ ও বহির্বিশ্ব, প্রতিষ্ঠান ও সংরক্ষণ-শিরোনামে ছয়টি অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ