শনিবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

আদমদীঘিতে নাগর নদে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলনের মহোৎসব

আদমদীঘি (বগুড়া) সংবাদদাতা : বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার চাঁপাপুর ইউনিয়নের বাঘাদহ-কালিতলা নামকস্থানে নাগর নদে শ্যালো মেশিন বসিয়ে ড্রেজারের মাধ্যমে বালু উত্তোলন ও বাঁধ ঘেঁষে মাটি কাটার মহোৎব চলছে। এক শ্রেণির লোক আইনকে উপেক্ষা করে বালু উত্তোলন ও মাটি কেটে নেয়ায় এলাকার শত শত একর ফসলি জমি ও বাঁধ দেবে ফাটল দেখা দিয়েছে। এতে এলাকার বেশ কয়েকটি বসতবাড়ি হুমকির মুখে পড়েছে। প্রশাসনিকভাবে কোন ব্যবস্থা না নেয়ায় প্রতিবছরই এর প্রবণতা বৃদ্ধি পাচ্ছে বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ। আদমদীঘি উপজেলার কুন্দগ্রাম ও চাঁপাপুর ইউনিয়নের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া নাগর নদের বাঁধ ভেঙে বর্ষা মওসুমে পানি উপচে পড়ে এলাকার বিপুল পরিমাণ আবাদি জমির ফসল নষ্ট, বসতবাড়ির ক্ষতি এবং বন্যার পানিতে ডুবে যাওয়া জমিতে আবাদের প্রচুরি ক্ষতি হয়। এতে কৃষকদের ব্যাপক ক্ষতি হওয়ায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের উদ্যোগে নাগর নদের ধার দিয়ে বেড়ি বাঁধ নির্মাণ করা হয়। 

সরেজমিনে দেখা গেছে, চাঁপাপুর ইউনিয়নের বাঘাদহ-কালিতলা এলাকার এক প্রভাবশালী ব্যক্তি নাগর নদে ড্রেজারের মাধ্যমে নদীর তলদেশ থেকে বালি উত্তোলন করছে। এ ছাড়া স্থানীয় কিছু লোক বাঁধ ঘেঁষে মাটি কাটছে। বালি উত্তোলন করে ট্রাকযোগে বিভিন্ন স্থানে বালি বিক্রি ও মাটি কেটে ইট ভাটায় সরবরাহ লরা হচ্ছে। ড্রেজার মেশিন স্থাপনে নদীর গভীর পর্যন্ত খনন হওয়ায় বিশেষ করে বর্ষা মওসুমে বাঁধের পাড় দেবে পাশের বাঘাদহ, কালিতলা, বাশলিপুকুর ও পালংকুড়িসহ কয়েকটি গ্রামের বসতবাড়ি ও শত শত একর ফসলি জমি হুমকির মুখে পড়েছে। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার রেজাউল করিম জানান, নাগর নদ থেকে কেউ অবৈধভাবে বালি উত্তোলন করলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ