শনিবার ১১ জুলাই ২০২০
Online Edition

বার্লিনে ক্রিসমাস মার্কেটে হামলায় নিহত ১২ ॥ আহত ৪০

২০ ডিসেম্বর, গার্ডিয়ান/বিবিসি/ ডিপিএ/রয়টার্স : জার্মানির বার্লিনে ক্রিসমাস মার্কেটের হামলায় ব্যবহৃত লরির চালক আফগানিস্তান কিংবা পাকিস্তানের নাগরিক বলে দাবি করা হয়েছে। অভিবাসনের প্রত্যাশায় গত ফেব্রুয়ারিতে তিনি জার্মানিতে আসেন। নিরাপত্তা সূত্রকে উদ্ধৃত করে জার্মান বার্তা সংস্থা ডিপিএ এমন খবর দিয়েছে বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি।
আসন্ন বড় দিন উপলক্ষ্যে জার্মানির অন্য সব শহরের মতো রাজধানী বার্লিনও ছিল উৎসবমুখর। উৎসবের আনন্দের মাঝেই সোমবার নগরীর ব্রাইটশাইড প্লাৎস স্কয়ারের ক্রিসমাস মার্কেটে ঢুকে পড়ে একটি ঘাতক লরি। স্থানীয় সময় সোমবার সন্ধ্যায় মার্কেটটিতে সাধারণ মানুষের ওপর লরি উঠিয়ে দিয়ে এ হামলা চালানো হয়। উৎসবের আনন্দে মৃত্যুদানব হয়ে ঢুকে পড়া লরিটির লাইসেন্স প্লেট ছিল পোল্যান্ডের। ওই ঘটনায় ১২ জন নিহত এবং ৪০ জনেরও বেশি মানুষ আহত হন।
বার্লিন পুলিশের মুখপাত্র উইনফ্রিড ওয়েনজেল বলেছেন, হামলাস্থলের এক মাইল দূরের এলাকা থেকে এক সন্দেহভাজনকে আটক করা হয়েছে। তাকে এখন জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তার পরিচয় প্রকাশ না করা হলেও ডিপিএ-এর খবরে বলা হয়েছে হামলাকারী চালক আফগানিস্তান কিংবা পাকিস্তান থেকে আসা অভিবাসন প্রত্যাশী। এদিকে পোল্যান্ডের লাইসেন্সকৃত ওই লরির পোলিশ মালিক দাবি করেছেন, লরিটি মূল চালকের কাছ থেকে ছিনতাই হয়ে থাকতে পারে। আর পুলিশের ধারণা, একটি নির্মাণ এলাকা থেকে লরিটি চুরি করা হয়ে থাকতে পারে। বার্লিন পুলিশের বরাত দিয়ে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ান জানিয়েছে, লরিটি এবং এর চালকের ব্যাপারে আরও বিস্তারিত তদন্ত চলছে।
গার্ডিয়ান জানায়, পোল্যান্ডের একটি নির্মাণকাজের এলাকা থেকে লরিটি চুরি করা হয়েছে বলে সন্দেহ করছে বার্লিন পুলিশ। লরিটির মালিকও পোল্যান্ডের নাগরিক। ফরাসি বার্তা এএফপির কাছে তিনি দাবি করেছেন হামলার আগে থেকে তার চালক নিখোঁজ ছিল। চালকের কী হয়েছে সে ব্যাপারে তাদের জানা নেই। আরিয়েল জুরাউস্কি নামের ওই ব্যক্তি আরও বলেন, ‘ও আমার চাচাতো ভাই। ছোটবেলা থেকে তাকে আমি চিনি। আমি তার জন্য সাক্ষ্য দিতে পারি।’
ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জুরাউস্কি বলেছিলেন, লরিটি ছিনতাই হয়েছে বলে তিনি ধারণা করছেন। তিনি জানান, তার চাচাতো ভাইয়ের সঙ্গে দুপুরের দিকে কথা হয়েছিল। তখন তিনি বার্লিনে আছেন বলে জানিয়েছিলেন এবং বলেছিলেন মঙ্গলবার সকালে তিনি লরির মালামাল খালাস করবেন। কিন্তু তার আগে অর্থাৎ সোমবার রাতে বার্লিনে সেই লরি ব্যবহার করে হামলা হয়। এদিকে লরির ভেতর থেকে এক পোলিশ নাগরিকের মৃতদেহ উদ্ধার হলেও পুলিশ জানিয়েছে তা চালকের মৃতদেহ নয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ