শনিবার ১১ জুলাই ২০২০
Online Edition

রাষ্ট্রদূত হত্যার ঘটনায় তুরস্ক নয় পুতিনের ক্ষোভের দৃষ্টি যুক্তরাষ্ট্রের দিকে!

২০ ডিসেম্বর, বিবিসি/আল জাজিরা/ইন্ডিপেন্ডেন্ট/রয়টার্স/জিও টিভি : তুরস্কে রাষ্ট্রদূত আন্দ্রে কারলভ হত্যায় ক্ষুব্ধ হয়েছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন। ইতোমধ্যে বিশ্বে রাশিয়ার দূতাবাসগুলোর নিরাপত্তা জোরদারের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। একই সঙ্গে তিনি জোর দিয়ে জানতে চেয়েছেন হত্যাকারীর নেপথ্যে নির্দেশদাতা কে ছিল। তিনি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, এই হত্যাকা-ে রাশিয়ার জবাব হবে ভয়াবহ।
তবে পুতিনের এই ক্ষোভ তুরস্কের উপর নয়। পুতিন বলেছেন, রাশিয়া ও তুরস্কের সম্পর্ককে নস্যাৎ করে দিতে এ হত্যাকা- চালানো হয়েছে।
সিরিয়া সঙ্কট সমাধানে ইরান ও তুরস্ককে সঙ্গে নিয়ে মস্কো যে উদ্যোগ নিয়েছে তাকে বানচাল করার উদ্দেশ্যেই এই হামলা চালানো হয়েছে বলে তিনি মনে করেন।
পুতিন বলেছেন, এরই মধ্যে রাশিয়ার তদন্তকারীরা কাজ শুরু করেছেন। এ খবর দিয়েছে লন্ডনের অনলাইন দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট। এতে বলা হয়েছে, ক্রেমলিনে এক বিশেষ বৈঠকে বক্তব্য রাখছিলেন পুতিন। সেখান থেকে তার মন্তব্য প্রকাশ করা হয় টেলিভিশনে। এতে তিনি নিহত রাষ্ট্রদূত কারলভের ভূয়সী প্রশংসা করেন। তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় চিত্র প্রদর্শনীতে একটি আর্ট গ্যালারিতে উপস্থিত হয়েছিলেন রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আন্দ্রে কারলভ। সেখানে তাকে পিছন থেকে গুলী করা হয়।
ক্রেমলিন থেকে যখন পুতিনের বক্তব্য প্রচার করা হয় টেলিভিশনে তখন তার মুখম-লে মাংসপেশিগুলো শক্ত হয়ে ওঠে। তাতে ফুটে ওঠে তার ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ। তিনি বলেন, একটি অপরাধ সংঘটিত হয়েছে। রাশিয়া ও তুরস্কের মধ্যে সম্পর্ক স্বাভাবিক হয়ে আসা ও সিরিয়া সঙ্কটের একটি শাস্তিপূর্ণ সমাধানের পথকে নষ্ট করতে কোনো প্ররোচণা ছাড়াই এ হত্যাকা- ঘটানো হয়েছে এতে কোনো সন্দেহ নেই। রাশিয়া, তুরস্ক, ইরান ও অন্যরা সিরিয়া সঙ্কট সমাধানের ওই উদ্যোগ নিয়েছিল।
পুতিন বলেন, এ সময়ে এমন হত্যাকা- একটিই জবাব হতে পারে। তাহলো সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে লড়াই জোরালো করা। শত্রুরা তা সহসাই টের পাবে। পুতিন বলেন, নিহত রাষ্ট্রদূতকে তিনি ব্যক্তিগতভাবে ভালভাবে জানেন। এরই মধ্যে এ নিয়ে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগানের সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন পুতিন। এতে রাশিয়ান তদন্তকারীদের অবিলম্বে আঙ্কারা যাওয়ার অনুমতি দিয়েছে তুরস্ক। একই সঙ্গে তারা তদন্তে সহায়তা করার কথাও বলেছে। রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ, বৈদেশিক গোয়েন্দা সংস্থা এসভিআরের প্রধান সের্গেই নারিশকিন ও আভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা সংস্থা এফএসবি’র প্রধান আলেকজান্দার বর্টনিকোভকে এরই মধ্যে এ বিষয়ে পুতিন নির্দেশ দিয়েছেন। তাদেরকে তিনি বলেছেন, আমাদেরকে অবশ্যই জানতে হবে এই ঘাতকের নেপথ্যে কে রয়েছে। অর্থাৎ খুঁজে বের করতে হবে কার কথায় এই ঘাতক রাশিয়ার রাষ্ট্রদূতকে হত্যা করেছে। এর বাইরে তুরস্কে রাশিয়ার যেসব কূটনৈতিক মিশন আছে সেখানে নিরাপত্তা বাড়ানোর নির্দেশ দিয়েছেন। এসব মিশনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার গ্যারান্টি চেয়েছেন তিনি তুরস্কের কাছে। ওদিকে আজ মস্কোতে সিরিয়া সঙ্কট নিয়ে আলোচনায় বসার কথা রাশিয়া, ইরান ও তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রীদের। কিন্তু রাষ্ট্রদূতকে হত্যার ফলে এ বৈঠক হবে কিনা তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে অনেকের। কিন্তু এমন সন্দেহের সঙ্গে দ্বিমত প্রকাশ করেছেন রাশিয়ার সিনিয়র একজন পার্লামেন্টারিয়ান লিওনিদ ¯¬ুটস্কাই। তাকে উদ্ধৃত করে বার্তা সংস্থা ইন্টারফ্যাক্স বলেছেন, রাষ্ট্রদূত নিহত হলেও এ আলোচনা হবে।
হত্যাকারীর পরিচয় প্রকাশ
এদিকে আন্দ্রেই কারলভের হত্যাকারীর নাম-পরিচয় প্রকাশ করেছে সে দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। তারা দাবি করেছে, অ্যাডিনে জন্ম নেয়া ২২ বছর বয়সী হত্যাকারীর নাম মেভলুট মার্ট আলটিনটাস। দাঙ্গা পুলিশের হয়ে কাজ করতেন তিনি।
গত  সোমবার সন্ধ্যায় একটি আর্ট গ্যালারি পরিদর্শন করছিলেন তুরস্কে নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আন্দ্রেই কারলভ। হঠাৎই হামলার শিকার হন তিনি। বন্দুকধারীর ওই হামলায় তিনি গুলীবিদ্ধ হন। রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন মুখপাত্র সূত্রে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স তার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে। বিবিসি জানিয়েছে, হামলায় আরও বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। সিরিয়ায় রুশ বাহিনীর হস্তক্ষেপের প্রতিবাদে তুরস্কে বিক্ষোভের একদিন পরই এ হামলা চালানো হয়। হত্যা করা হয় রুশরাষ্ট্রদূতকে।
২০১৩ সাল থেকে আন্দ্রেই কারলভ তুরস্কে রুশ রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন। তার হত্যাকারী মেভলুট মার্ট আলটিনটাস সম্পর্কে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী সুলায়মান সয়লু বলেন, ‘তিনি ২২ বছর বয়স্ক একজন ব্যক্তি। গত আড়াই বছর ধরে দাঙ্গা পুলিশের হয়ে কাজ করতেন।’
অন্যদিকে রাষ্ট্রদূতকে হত্যার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি। গতকাল মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এই নিন্দা জানান।
বিবৃতিতে তিনি রাশিয়া ও তুরস্ক চাইলে যুক্তরাষ্ট্র হত্যাটি নিয়ে তদন্ত করতে সহায়তা  করতে রাজি বলে জানান ।
জন কেরি হত্যাটি সকল কূটনীতিকদের নিরাপদে বিশ্বজুড়ে জাতির প্রতিনিধিত্ব করার অধিকারের উপর আঘাত বলেও বিবৃতিতে জানান।
হোয়াইট হাউজ, মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর পেন্টাগণ ও দেশটির নব নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও হত্যাটির নিন্দা জানিয়েছেন। এছাড়া নিন্দা জানিয়েছে যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, জার্মানি।
রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আন্দ্রেই কার্লভ নিহত হওয়ার ঘটনায় ‘নিরাপত্তা পরি¯ি’তির’ পরিপ্রেক্ষিতে রাজধানী আঙ্কারার মার্কিন দূতাবাস বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।
মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর সোমবার টুইট বার্তায় নিজ নাগরিকদের ওই এলাকা এড়িয়ে চলার পরামর্শ দেয়। মার্কিন দূতাবাসের কাছাকাছি গুলীর খবর প্রচারিত হওয়ার পর এ বার্তা দেয়া হয়।
মার্কিন বার্তায় সেখানকার অবস্থাকে ‘চলমান নিরাপত্তা পরিস্থিতি’ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। টুইট বার্তায় বলা হয়, পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সব মার্কিন নাগরিককে দূতাবাস চত্বরের কাছাকাছি এলাকা এড়িয়ে চলা উচিত।
এ ছাড়া, বার্তায় মার্কিন নাগরিকদের দক্ষিণ-পূর্ব তুরস্ক সফর এড়িয়ে চলার পরামর্শের পাশাপাশি গোটা তুরস্ক ভ্রমণের ঝুঁকি বিবেচনায় নেয়ার উপদেশ দেয়া হয়।
অবশ্য, রুশ রাষ্ট্রদূত নিহত হওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে মার্কিন দূতাবাস বন্ধ করা হয়েছে কিনা সে বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ