বুধবার ১৫ জুলাই ২০২০
Online Edition

জাতীয় ক্রিকেট লিগে প্রথম দিনেই অল আউট ঢাকা মেট্টো ও বরিশাল


স্পোর্টস রিপোর্টার : জাতীয় ক্রিকেট লিগে প্রথম দিনেই অল আউট হয়েছে ঢাকা মেট্রো আর বরিশাল বিভাক। ফতুল্লায় ঢাকা বিভাগের বিপক্ষে আর বিকেএসপিতে খুলনার বিপক্ষে প্রথম দিনে অলআউট হয় বরিশাল বিভাগ। জাতীয় ক্রিকেট লিগের চতুর্থ রাউন্ডের প্রথম দিনে ফতুল্লায় দাপট দেখিয়েছে বোলাররা। খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে ঢাকা বিভাগের বোলিং তোপে ১৬৬ রানে শেষ হয়েছে ঢাকা মেট্রোর প্রথম ইনিংস। জবাবে মাত্র ১৯ রান তুলতেই দুই উইকেট হারিয়েছে ঢাকা বিভাগ। প্রথম দিনে ১৮৫ রানে দু’দলের উইকেট পড়েছে ১২টি। টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা মেট্রোর ইনিংসকে টেনে নেন ওপেনার সাদমান ইসলাম ও  মোহাম্মদ আশরাফুল। দলীয় শতরান পার করে ব্যক্তিগত ৪৭ রানে সাজঘরে  ফেরেন সাদমান। তিনটি চার ও ইনিংসের একমাত্র ছক্কা হাকানো আশরাফুল দলীয় পঞ্চম ব্যাটসম্যান হিসেবে সাজঘরে ফেরেন ৩৯ রান করে। মেহরাব হোসেন জুনিয়র ২২ রানের ইনিংস খেললে দেড়শ’ পেরোয় ঢাকা  মেট্রো। শেষ ৭ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বসলে ১৬৬ রানে থামে তাদের প্রথম ইনিংস।  মোহাম্মদ শরীফ ৩৫ রান খরচায় নেন চার উইকেট। তিনটি উইকেট নিয়েছেন বাঁহাতি স্পিনার নাজমুল ইসলাম। শাহাদাত হোসেন রাজিব, দেওয়ান সাব্বির ও মিনহাজ খান নেন একটি করে উইকেট। শেষ বিকেলে ব্যাটিংয়ে নেমে সুবিধা করতে পারেনি ঢাকা বিভাগ। স্কোরবোর্ডে ১৯ রান তুলতে আব্দুল মজিদ ও জয়রাজ শেখের উইকেট হারায় তারা। মেট্রোর হয়ে শহীদুল ইসলাম ও সৈকত আলী নিয়েছেন একটি করে উইকেট।
বিকেএসপির তিন নম্বর মাঠে প্রথম স্তরের চতুর্থ রাউন্ডের ম্যাচে প্রথম দিনটি নিজেদের করে নিয়েছে খুলনা বিভাগ। পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা বরিশাল বিভাগকে ১৭১ রানে অলআউট করে দিন শেষে এক উইকেটে ১০১ রান তুলেছে খুলনা। ৯ উইকেট হাতে রেখে মাত্র ৭০ রানে পিছিয়ে তারা। মেহেদী হাসান ৫৫ ও এনামুল হক বিজয় ১৫ রানে অপরাজিত থেকে দিন শেষ করেছেন। ২৪ বলে ২৩ রান করে সালমান হোসেনের বলে আউট হন ওপেনার হাসানুজ্জামান। টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে বরিশালের হয়ে একাই লড়েন ফজলে মাহমুদ। তিন নম্বরে নেমে এ বাঁহাতি ব্যাটসম্যান খেলেন ৯৫ রানের দুর্দান্ত ইনিংস। বাকি ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় দলীয় সংগ্রহ বড় হয়নি বরিশালের। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৮ রান আসে শাহীন হোসেনের ব্যাট থেকে।সমান ১০ রান করেছেন শাহরিয়ার নাফীস, সালমান হোসেন ও শাওন গাজী। আর কেউই দুই অঙ্কের ঘরে যেতে পারেননি। খুলনার বোলার জিয়াউর রহমান ও আশিকুর রহমান নিয়েছেন তিনটি করে উইকেট। দুটি করে নেন আল আমিন হোসেন ও বিশ্বনাথ হালদার।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ