সোমবার ১০ আগস্ট ২০২০
Online Edition

আলেপ্পোতে নরকের অবস্থা বিরাজ করছে -বান কি মুন

১৮ ডিসেম্বর, ইন্ডিপেনডেন্ট : সিরিয়ার আলেপ্পোর বর্তমান অবস্থাকে নরকের সঙ্গে তুলনা করেছেন জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুন। তিনি বলেন, ‘আলেপ্পো এখন নরকেরই সমার্থক। আমরা সিরিয়ার পাশে দাঁড়াতে ব্যর্থ হয়েছি।’
শনিবার জাতিসংঘের মহাসচিব হিসেবে তার শেষ সাংবাদিক বৈঠকে সিরিয়া এবং দক্ষিণ সুদান নিয়ে গভীর আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন।
আলেপ্পোতে অবিরাম চলছে গোলাগুলি। ধূলোয় মিশে গিয়েছে গোটা শহর। সরকার-বিদ্রোহী সংঘর্ষে এখনও রক্তাক্ত সিরীয় শহর আলেপ্পো।
প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদের পাশাপাশি সিরিয়ার পরিস্থিতিতে রাশিয়া ও ইরানের ম“ দেয়া নিয়ে সরব হয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাও। তবে আলেপ্পো এখনও সেই তিমিরেই।
শুক্রবার এক দফা সংঘর্ষ-বিরতির কথা ঘোষণা হলেও উদ্ধারকাজ শুরুর সঙ্গে সঙ্গেই বিদ্রোহীদের গুলিতে তা ভেস্তে যায়। শনিবার ফের আলেপ্পোয় উদ্ধারকাজ শুরু করতে উদ্যোগী হয়েছে আন্তর্জাতিক মহল। সেই মর্মে নতুন একটি চুক্তির কথাও জানা গিয়েছে। যাতে বলা হয়েছে, নতুন করে সংঘর্ষ-বিরতি ঘোষণা করে পূর্ব আলেপ্পোর সুরক্ষা-করিডর দিয়ে সাধারণ মানুষকে বের করে আনার প্রক্রিয়া শুরু করা হবে।
বিদ্রোহীদের দখলে থাকা ইদলিব প্রদেশের শিয়া শহর ফোয়া এবং কেফ্রায়া থেকে সরিয়ে আনা হবে ত্রাণকর্মী ও আম জনতাকে। কিন্তু নতুন এই চুক্তি কতটা কার্যকর করা সম্ভব হবে, তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন বিশেষজ্ঞদের একটা বড় অংশ।
আলেপ্পোর পরি¯ি’তি নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বলেন, আসাদ সরকার এবং তার পৃষ্ঠপোষক ইরান ও রাশিয়ার হাতেও আলেপ্পোর রক্তের দাগ রয়েছে। আলেপ্পোয় বন্দি মানুষকে সুরক্ষা-করিডর তৈরি করে নিরাপদে বের করে আনতে নিরপেক্ষ আন্তর্জাতিক সর্বেক্ষণ বাহিনী গঠনের কথাও বলেছেন ওবামা।
আলেপ্পো নিয়ে ভোটাভুটি হওয়ার কথা জাতিসংঘের সুরক্ষা পর্ষদে। ফ্রান্সের উদ্যোগে আন্তর্জাতিক সর্বেক্ষণ ও ত্রাণকর্মীদের নিয়ে আলেপ্পোর হাসপাতালে উদ্ধারকার্য চালানোর প্রস্তবাবিত একটি খসড়াও তৈরি হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ