বুধবার ১২ আগস্ট ২০২০
Online Edition

জগন্নাথপুরে এক নৈশ প্রহরীকে কুপিয়ে হত্যা ॥ আরেকজন নিখোঁজ

জগন্নাথপুর সংবাদদাতা : জগন্নাথপুরে হিরন মিয়া (২৮) নামের এক নৈশ প্রহরীকে নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। তিনি জগন্নাথপুর পৌর এলাকার কেশবপুর গ্রামের মৃত হুসমত আলীর ছেলে। এছাড়া ইছাক আলী মুছা (২৫) নামের আরেক নৈশ প্রহরী নিখোঁজ রয়েছেন। তিনি জগন্নাথপুর উপজেলার পাটলি ইউনিয়নের সাতহাল গ্রামের মৃত সিরাজ আলীর ছেলে। এ ঘটনায় নৈশ প্রহরীসহ খামারের আরো ৭ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, জগন্নাথপুর পৌর শহরের হাসিমাবাদ গ্রাম এলাকায় যুক্তরাজ্য প্রবাসী গয়াছ মিয়ার একটি বড় মৎস্য খামার রয়েছে। খামারে ৭ নৈশ প্রহরীসহ মোট ৯ জন লোক কাজ করে। গত শুক্রবার রাতে হিরন মিয়া ও ইছাক আলী মুছা নামের দুই নৈশ প্রহরী দায়িত্ব পালন করছিলেন। রাত প্রায় ২ টার দিকে দুর্বৃত্তরা নৈশ প্রহরী হিরন মিয়াকে নির্মমভাবে রামদা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে। এ ঘটনার পর থেকে আরেক নৈশ প্রহরী ইছাক আলী মুছা নিখোঁজ রয়েছেন।
খবর পেয়ে গত শনিবার জগন্নাথপুর থানা পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে। এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জগন্নাথপুর থানার এসআই আশরাফুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় খামারে থাকা নৈশ প্রহরীসহ আরো ৭ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। নিখোঁজ নৈশ প্রহরীকে উদ্ধারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। তবে খামারের ম্যানেজার আংগুর মিয়া জানান, এ খামার নিয়ে স্থানীয় জগন্নাথপুর গ্রামের সুন্দর আলীর লোকজনের সাথে আমাদের বিরোধ ও মামলা-মোকদ্দমা চলছে। তিনি ধারণা করে জানান, প্রতিপক্ষের লোকজন খামারটি লুটপাট করার জন্য নৈশ প্রহরীদের উপর হামালা চালিয়ে এ ঘটনা ঘটাতে পারেন।
রহস্যজনক আত্মহত্যা
জগন্নাথপুরে ফারজানা বেগম (১৮) নামের এক কিশোরী আত্মহত্যা করেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। তিনি জগন্নাথপুর পৌর এলাকার হবিবপুর-আশিঘর গ্রামের জমির আলীর কন্যা।
গত শুক্রবার রাতে নিজ ঘরের তীরের সাথে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে কিশোরী ফারজানা বেগম আত্মহত্যা করে। খবর পেয়ে গত শনিবার জগন্নাথপুর থানা পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছেন। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জগন্নাথপুর থানার এসআই কায়েমুল ইসলাম জানান, এ আত্মহত্যার কারণ জানা যায়নি। তবে সরজমিনে স্থানীয়দের মধ্যে অনেকে জানান, রহস্যজনক কারণে মেয়েটি আত্মহত্যা করেছে। রহস্য উদঘাটন হলেই সব কিছু জানা যাবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ