শনিবার ০৮ আগস্ট ২০২০
Online Edition

ইবিতে ৫০ বিদেশী শিক্ষার্থী পড়ার সুযোগ

ইবি সংবাদদাতা : ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) ১ম বর্ষে ৫০ বিদেশী শিক্ষার্থী ভর্তি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। বিদেশী শিক্ষার্থীদের ভর্তির জন্য ফরেন সেল গঠন করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এস.এম আব্দুল লতিফ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে আসন্ন ২০১৬-১৭ শিক্ষা বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা উপলক্ষে রোববার বেলা সাড়ে ১২টায় কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়। কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষা কমিটির সভাপতি ভিসি প্রফেসর ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারীর সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন প্রো-ভিসি প্রফেসর ড. মো. শাহিনুর রহমান, ট্রেজারার প্রফেসর ড. সেলিম তোহা, রেজিস্ট্রার এস. এম আব্দুল লতিফসহ সকল অনুষদীয় ডিন ও সভাপতিবৃন্দ। সভায় আন্তর্জাতিক মানের বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে তুলতে এবছর বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৫টি বিভাগে ২ জন করে সর্বমোট ৫০জন বিদেশী শিক্ষার্থী ভর্তি করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। বিশ্বের সকল দেশের শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবে।
 বৈঠকে ২০০২ সালের ২১ জুলাই অনুষ্ঠিত একাডেমিক কাউন্সিলের ৬৭তম সভার সিদ্ধান্ত ও সুপারিশ অনুযায়ী একই সালের ২৮ জুলাই অনুষ্ঠিত সিন্ডিকেটের ১৬৭তম সভায় বিশ^বিদ্যালয়ের বিদেশী শিক্ষার্থীর ভর্তির ব্যাপারে গৃহীত হওয়া সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করা হয়।
ইতোমধ্যে বিদেশী শিক্ষার্থীদের ভর্তির জন্য ইংরেজী বিভাগের প্রফেসর ড. মো. রেজাউল হককে আহ্বায়ক করে পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করে দিয়েছেন প্রশাসন।
এ বিষয়ে আরো জানতে, বিদেশী শিক্ষার্থীরা তাদের দেশের দূতাবাসের মাধ্যমে অথবা বিশ^বিদ্যালয়ের ওয়েব সাইট (www.iu.ac.bd) থেকে ভর্তির বিজ্ঞাপনসহ বিভিন্ন তথ্যাদি জানতে পারবে।
ভিসি প্রফেসর ড. মো. হারুন-উর-রশিদ আসকারী বলেন, “বিদেশী শিক্ষার্থী ভর্তির উদ্যোগ অনেক আগেই নেয়া হয়েছিল। আমরা তার বাস্তবায়ন করার চেষ্টা করছি। বিদেশী শিক্ষার্থী ভর্তি করাতে পারলে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় আর্ন্তজাতিকায়নে নতুন মাত্রিকতা যুক্ত হবে এবং আন্তর্জাতিকভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমর্যাদা উজ্জল হবে।”
উল্লেখ্য, বিশ্ববিদ্যালয়ে বিদেশী শিক্ষার্থীদের জন্য আবাসিকতাসহ নানা সুযোগ-সুবিধা রয়েছে।
মতবিনিময়
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে হজ্ব ও ওমরা বিষয়ক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার বেলা সাড়ে ১১টায় “সমকাল এয়ার সার্ভিস” এর উদ্যোগে বিশ্ববিদ্যালয় অনুষদ ভবনের থিওলজি এন্ড ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের সভা কক্ষে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। মো. ইসমাইল হুসাইনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন প্রফেসর ড. ফারুক আহমদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন থিওলজি এন্ড ইসলামিক স্টাডিজ অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. এ.বি.এম ফারুক। বক্তব্য রাখেন মানবিক ও সমাজ বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মো. রুহুল আমিন। এছাড়াও প্রফেসর ড. আ.ব.ম আকবর হোসাইন, প্রফেসর ড. ছিদ্দিকুর রহমান আশ্রাফী, প্রফেসর ড. এইচ.এ.এন.এম এরশাদ উল্লাহ, সমকাল এয়ার সার্ভিস এর চেয়ারম্যান হাফেজ আশরাফুল আলমসহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।
তদন্ত কমিটি
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে মোবাইল টাওয়ারের বিল খতিয়ে দেখতে ৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। বিশ্ববিদ্যালয় ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এস.এম আব্দুল লতিফ স্বাক্ষরিত বার্তা থেকে এ তথ্য জানা গেছে। তদন্ত কমিটিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর প্রফেসর ড. মো. মাহবুবর রহমানকে আহ্বায়ক ও প্রফেসর ড. আহসান-উল-আম্বিয়াকে সদস্য এবং অর্থ ও হিসাব বিভাগের উপ-পরিচালক মো. কামাল উদ্দিনকে সদস্য সচিব করা হয়েছে। কমিটিকে টাওয়ার স্থাপনকাল থেকে কোম্পানীগুলোকে বাৎসরিক কত টাকা, কার বরাবর এবং কোন হিসাব নম্বরে জমা হয় তা খতিয়ে দেখতে বলা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ