সোমবার ১০ আগস্ট ২০২০
Online Edition

সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে সরকার এলে ডা. মিলন হত্যার বিচার হবে -আমান

স্টাফ রিপোর্টার : সবার সাথে আলোচনা না করে নির্বাচন কমিশন গঠন করা হলে কোনভাবেই মেনে নেওয়া হবে না উল্লেখ করে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান বলেছেন, ২০১৪ সালে যেভাবে নির্বাচন করেছেন ২০১৬ সালে এসে তা করলে চলবে না। এবার নিরপেক্ষ নির্বাচন হতেই হবে। আর নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে যে সরকার ক্ষমতায় আসবে সেই সরকারের সময় ডা. মিলন হত্যার বিচার হবে।
গতকাল সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবে শহীদ ডা. শামসুল আলম খান মিলন স্মরণে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। বাংলাদেশ ইয়ুথ ফোরাম এই আলোচনা সভার আয়োজন করে।
বাংলাদেশ ইয়ুথ ফোরামের সভাপতি মুহাম্মদ সাইদুর রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় অন্যদের মধ্যে ৯০ এর স্বৈরাচার বিরোধী ছাত্র ঐক্যের নেতা ও বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, যুগ্ম মহাসচিব খায়করুল কবীর খোকন, নাজিম উদ্দিন আলম, মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, সাইফুদ্দিন মনি, খন্দকার লুৎফর রহমান, আসাদুর রহমান আসাদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
শহীদ ডা. মিলনের মায়ের কথা উল্লেখ করে আমান উল্লাহ আমান বলেন, রোববার মিলনের মা বলেছেন যারা মিলনকে হত্যা করেছে তারা এখন ক্ষমতায়। সুতরাং তাদের কাছে বিচার চাওয়া বাতুলতা মাত্র। তিনি আশ্বস্ত করে বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় এলে ডা. মিলনের খুনিদের বিচার করা হবে।
আমান বলেন, আমরা এত লড়াই করে গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা করলাম। অথচ আজ দেশে গণতন্ত্র নেই। মানবাধিকার নেই। সুষ্ঠু নির্বাচন করতে দেওয়া হচ্ছে না। এসময় তিনি নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠনে বেগম জিয়ার দেওয়া প্রস্তাব নিয়ে আলোচনায় বসার আহ্বান জানান।
হাবিবুর রহমান হাবিব বলেন দেশে স্বৈরাচারী শাসন চলছে। এই অপশাসনের অবসান হবেই। এবং এই বাংলার মাটিতে স্বৈরাচারী এরশাদ, ইনুদের বিচার হবেই।
ডা.মিলন হত্যাকাণ্ড বাংলাদেশ স্বৈরাচার মুক্ত করার টার্নিং পয়েন্ট ছিল বলে মন্তব্য করেন খায়রুল কবির খোকন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ