শুক্রবার ১৪ আগস্ট ২০২০
Online Edition

২৫ বছরেও নির্মিত হয়নি পৌরসভার কশাইখানা

নীলফামারী সংবাদদাতা : নীলফামারী পৌরসভা প্রথম শ্রেণির হলেও এখানে নেই কোন কশাইখানা। ফলে যত্রতত্র জবাই হচ্ছে গরু-ছাগল। ভেটেনারী চিকিৎসক কিংবা পরিদর্শকও নেই এই পৌরসভায়। জবাইকৃত পশুর স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও মান যাচাই ছাড়াই বিক্রির অনুমতি দিয়ে মারা হচ্ছে পৌরসভার সিল। আর এ কাজটি করছেন কশাইখানা ইজারাদার নিজেই। তবে নামকাওয়াস্তে হোটেল রেস্তোঁরার খাবার মান পরীক্ষার জন্য একেএম মর্তুজা আলী নামের একজনকে ডিপুটেশনে নেয়া হয় জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর থেকে।  জানা গেছে, প্রায় ২৫ আগে নীলফামারী ষ্টেডিয়াম সংলগ্ন কশাইখানাটি ফুটবল খেলা চলাকালীন সময় দর্শকের ভারে ভেঙ্গে পড়ে। ঐ ঘটনায় ৩জন নিহত হয়। আহত হয় বেশ কয়েকজন। এর পর থেকে নীলফামারী পৌরসভা কর্তৃপক্ষ অনেকটাই উদাসীন জনগুরুত্বপূর্ণ কশাইখানার ব্যাপারে। আর তখন থেকেই শহরের শ্মশান ঘাট, বারাইপাড়া, সরকার পাড়া, হাড়োয়া, নতুনবাজার, বোসাদ্ধার, রেলষ্টেশনসহ শহরের যত্রতত্র নোংরা অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে ঝোপঝাড়ে জবাই করা হচ্ছে গরু-মহিষ-ছাগল। ব্যবহার করা হচ্ছে নোংরা পানি। অনেক কশাই আবার নিজ বাড়িতেই জবাই করছেন গরু ছাগল। শাখামাছা বাজারের বেশ কয়েকজন কশাই অভিযোগ করে বলে, পৌরসভা শুধু টাকা নেয়। কশাইখানার ব্যাপারে পৌর কর্তৃপক্ষের কোন মাথাব্যথা নেই।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ