বৃহস্পতিবার ০১ অক্টোবর ২০২০
Online Edition

বিএনপি গণতন্ত্রকে রক্তাক্ত করার চক্রান্ত করছে -ওবায়দুল কাদের

স্টাফ রিপোর্টার : বিএনপির প্রতি ইঙ্গিত করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, যারা আন্দোলনে ব্যর্থ হয়েছে, নির্বাচনে না এসে ভুল করেছে আজ তারাই বেপরোয়া চালকের মতো রাজনীতির বেপরোয়া চালক হয়ে গণতন্ত্রকে রক্তাক্ত করার চক্রান্ত করছে। দেশের গণতন্ত্র এখনো বিপদ ও ঝুঁকিমুক্ত নয়।
গতকাল শুক্রবার বিকালে রাজধানীর রমনা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ সব কথা বলেন। শহীদ নূর হোসেনের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আওয়ামী মটরচালক লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় এ কথা বলেন আওয়ামী লীগের সম্পাদক। সংগঠনের সভাপতি মো. আলী হোসেনের সভাপতিত্বে সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন- আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, প্রধানমন্ত্রীর সহকারী একান্ত সচিব সাইফুজ্জামান শেখর, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মো. কালু শেখ প্রমুখ।
সেতুমন্ত্রী বলেন, শহীদ নূর হোসেন যে গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করেছে, আত্মদান দিয়েছে, সেই গণতন্ত্র স্বৈরাচার থেকে মুক্তি পেলেও বিপদ থেকে মুক্তি পায়নি। এখনও গণতন্ত্র বিপদমুক্ত নয়।’
চক্রান্তের বিরুদ্ধে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমাদের ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে উল্লেখ করে এ নেতা বলেন, ‘৫ জানুয়ারি নির্বাচনের পর পেট্রোল বোমা দিয়ে গাড়ির চালক পুড়িয়ে, তারা দেশের গণতন্ত্রকে পুড়িয়ে মারতে চেয়েছে। আজও গণতন্ত্রকে পুড়িয়ে মারার, গণতন্ত্রকে গুলি করে হত্যা করার, গণতন্ত্রকে রক্তাক্ত করার চক্রান্ত চলছে।’
নারীচালক বাড়ানোর উপর জোর দিয়ে সড়ক পরিবহনমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের দেশে আরও নারী ড্রাইভার দরকার। নারীদের মাথা ঠাণ্ডা থাকে, তারা গাড়ি চালালে ঝুঁকি থাকে না। পুরুষদের মধ্যেও অনেক দক্ষ চালক আছে, তা না হলে তো বাংলাদেশে খালি দুর্ঘটনাই ঘটতো।
চালকদের উদ্দেশে তিনি আরও বলেন, আমি আপনাদের অনুরোধ করবো শিশুদের চালক বানাবেন না। যানজট আর দুর্ঘটনার জন্য দায়ী আমাদের মন-মানসিকতা। মন-মানসিকতা পরিবর্তন না হলে সড়কে শৃঙ্খলা ফিরে আসবে না। শৃঙ্খলা না আসলে দুর্ঘটনা বা যানজট হবেই।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ