শুক্রবার ১৪ আগস্ট ২০২০
Online Edition

আশুলিয়ার কারখানায় দগ্ধ কিশোরীর ঢামেকে মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার : আশুলিয়ায় গ্যাস লাইটার কারখানায় অগ্নিদগ্ধ শ্রমিকদের মধ্যে এক কিশোরী মারা গেছে। তার নাম আঁখি আক্তার (১৪)। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (ঢামেক) বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার দিনগত রাত ২টা ৪৫ মিনিটে তার মৃত্যু হয়।
ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা. পার্থ শংকর পাল জানান, শরীরের ৭০ শতাংশই পুড়ে যাওয়ায় চেষ্টার পরেও আঁখিকে বাঁচানো সম্ভব হয়নি। কিশোরীটির বাড়ি রংপুর জেলায়। তার বাবার নাম আশরাফুল আলম। মায়ের নাম নাসিমা আক্তার। এক ভাই এক বোনের মধ্যে সে ছিল বড়। তিনি জানান, আঁখির লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে রাখা হয়েছে।
উল্লেখ্য, মঙ্গলবার বিকালে আশুলিয়ায় অবস্থিত কালার ম্যাচ বিডি লিমিটেড নামের একটি গ্যাস লাইটার কারখানায় আগুন লেগে ২৬ জন শ্রমিক দগ্ধ হন। এদের অনেকেরই অবস্থা গুরুতর। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা পৌনে দুই ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে এনে তাদের উদ্ধার করে সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও পরে সেখান থেকে ঢাকা ঢামেক হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করেন। 
ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ও সার্জারি ইউনিটের অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম জানিয়েছেন, দগ্ধ সবারই শ্বাসনালী দগ্ধ হয়েছে ও শরীর ২০ থেকে ৭০ ভাগ পুড়ে গেছে। তাৎক্ষণিকভাবে ৭ জনকে আইসিইউতে নিয়ে চিকিৎসাসেবা দেওয়া হচ্ছে। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে স্থানীয় সংসদ সদস্য ডা. এনামুর রহমান বলেন, অগ্নিকান্ডের ঘটনায় সাভার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে আগামী ৭ কর্মদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় আহতদের চিকিৎসার জন্য এক লাখ টাকা সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে প্রয়োজনে আরও সহযোগিতা করা হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ