মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

ধ্বংস করা হচ্ছে রোহিঙ্গাদের মসজিদ ও বাড়ি

২৩ নবেম্বর, ইন্টারনেট: আন্তর্জাতিক চাপের মুখেও মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের ওপর সরকারি বাহিনীর দমন-পীড়ন, হত্যা ও বর্বর নির্যাতনের ঘটনা ঘটেই চলছে।
এ অবস্থা থেকে বাঁচতে দেশটির রোহিঙ্গা সদস্যরা পালিয়ে বেড়াচ্ছে। বাংলাদেশ সীমান্ত বন্ধ থাকায় অনেক রোহিঙ্গা সদস্যই নাফ নদীসহ বাংলাদেশ সীমান্তের কাছে মানবেতর জীবন যাপন করছে। এদিকে মিয়ানমারের সরকারি বাহিনী রোহিঙ্গাদের গ্রামগুলো ধ্বংসের পাশাপাশি তাদের মসজিদগুলোও ধ্বংস করে দিচ্ছে। রোহিঙ্গা ভিশনের অনলাইন সংস্করণে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়, মঙ্গলবার দেশটির মংডু এলাকার ডার গেই জার গ্রামের অন্তত ১৫টি বাড়ি পুড়িয়ে দেয় বার্মিজ বাহিনী। একই সঙ্গে গ্রামটিতে অবস্থিত অনেক পুরাতন একটি মসজিদও ধ্বংস করে দেয় তারা। ইব্রাহিম মসজিদ নামের মুসলিমদের ওই প্রার্থনাকক্ষটি আনুমানিক দুইশ বছরের পুরাতন। মিয়ানমারে নিরাপত্তা বাহিনীর অব্যাহত অভিযানে এ পর্যন্ত গ্রামটির শতাধিক রোহিঙ্গা নিহত হয়েছেন। এ ছাড়া গ্রেফতার হয়েছে সহস্রাধিক। গ্রামের ৮০ জনেরও অধিক নারী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ